• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

প্রথম লক্ষ্য সেবির নির্দেশে স্থগিতাদেশ

Ramalinga Raju
আদালতের পথে সত্যম কেলেঙ্কারিতে অভিযুক্ত রামলিঙ্গ রাজু। যে কাণ্ডে জড়িয়ে বিপাকে পিডব্লিউসি। —ফাইল চিত্র।

সেবির নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ জানাতে আইনি পথে হাঁটার ইঙ্গিত দিল অডিট ও উপদেষ্টা সংস্থা প্রাইসওয়াটারহাউস কুপার্স (পিডব্লিউসি)। শেয়ার বাজার নিয়ন্ত্রকের নির্দেশ কার্যকর হওয়ার আগেই তার উপর স্থগিতাদেশ চায় তারা। একই সঙ্গে, তাদের দাবি, সত্যম কাণ্ডে ইচ্ছে করে হিসেব পরীক্ষায় গড়মিল করেনি তারা। ওই ভুল অনিচ্ছাকৃত। উল্লেখ্য, হালে আধারের অডিটেও যুক্ত তারা।

২০০৯ সালে সামনে আসা সত্যম কেলেঙ্কারির সঙ্গে জড়িয়ে যাওয়ার খেসারত হিসেবে বুধবারই পিডব্লিউসির উপর দু’বছরের জন্য নিষেধাজ্ঞা চাপিয়েছে সেবি। জানিয়েছে, এই সময়ের মধ্যে ভারতের শেয়ার বাজারে নথিভুক্ত কোনও সংস্থাকে অডিট (হিসেব পরীক্ষা) শংসাপত্র দিতে পারবে না তারা। সেই সঙ্গে, অন্যায় ভাবে ওই সূত্রে করা ১৩ কোটি টাকা মুনাফা ফেরানোরও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে ওই সংস্থা ও দুই প্রাক্তন অডিটরকে।

অনেকের ধারণা, এতে অডিট ও উপদেষ্টা সংস্থাটির ব্যবসা বেশ কিছুটা ধাক্কা খাওয়ার সম্ভাবনা। এ দেশে টাটা স্টিল, পিরামল এন্টারপ্রাইজেস সহ শেয়ার বাজারে নথিভুক্ত ৭৫টি সংস্থা তাদের ক্লায়েন্ট। আশঙ্কা, সেবির এই ঘোষণায় সেই ব্যবসার একটি বড় অংশ দীর্ঘ মেয়াদে হারাতে পারে তারা। আবার অনেকের মতে, তেমনটা না হলেও এটি নিশ্চিত ভাবে টোল ফেলবে সংস্থার ভাবমূর্তিতে। কারণ, মার্কিন মুলুকে এনরন কাণ্ডের কথা বাদ দিলে, কোনও ‘বিগ ফোর’ অডিট সংস্থার বিরুদ্ধে কোনও নিয়ন্ত্রক এত কড়া পদক্ষেপ কখনও সে ভাবে করেনি। উল্লেখ্য, বিশ্বের প্রথম চার অডিট সংস্থা (পিডব্লিউসি, ডেলয়েট, ইঅ্যান্ডওয়াই এবং কেপিএমজি) বিগ ফোর নামে পরিচিত।

 

নিয়ন্ত্রকের নিদান

• ভারতে শেয়ার বাজারে নথিভুক্ত কোনও সংস্থাকে দু’বছর অডিট শংসাপত্র দিতে পারবে না উপদেষ্টা সংস্থা পিডব্লিউসি

• সত্যম কাণ্ডে নিয়ম ভেঙে মুনাফার ১৩ কোটি টাকা ফেরত দিতে হবে অডিট সংস্থাটি ও তার দুই অভিযুক্ত প্রাক্তন পার্টনারকে

সমস্যার শিকড়

• ২০০৯ সালে তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থা সত্যমে সামনে আসে প্রায় ১০ হাজার কোটির আর্থিক জালিয়াতি

•কর্ণধার রামলিঙ্গ রাজু স্বীকার করেন, শেয়ার দর চড়া রাখতে মুনাফা বাড়িয়ে দেখানো হয়েছে দীর্ঘ দিন

•প্রায় আট বছর সত্যমের অডিট বা হিসেব পরীক্ষার দায়িত্বে ছিল পিডব্লিউসি

• প্রশ্ন ওঠে, সত্যমের ব্যালান্স শিটে ভুয়ো পরিসংখ্যান কী ভাবে বছরের পর বছর নজর এড়াল তাদের

• গ্রেফতার হন অডিট সংস্থার চিফ রিলেশনশিপ পার্টনার এস গোপালকৃষ্ণন এবং এনগেজমেন্ট লিডার শ্রীনিবাস তল্লুরি

•প্রথমে অস্বীকার করলেও, পরে নিজেদের ভুলের সম্ভাবনা কবুল

• সেই সত্যম কাণ্ড খতিয়ে দেখেই এই সিদ্ধান্ত সেবির

সংস্থার দাবি

• ভুল অনিচ্ছাকৃত। তাদের আশা, সিদ্ধান্তে স্থগিতাদেশ মিলবে

যেখানে আশঙ্কা

•ভারতে পিডব্লিউসির কর্মী ৩,০০০। ক্লায়েন্ট ৭৫টি নথিভুক্ত সংস্থা। সেই ব্যবসা কিছুটা ধাক্কা খাওয়ার সম্ভাবনা

• অনেকের মতে, স্থগিতাদেশ পেলেও টোল ভাবমূর্তিতে

উল্টো মত

• এ দেশে অডিট সংস্থার কাজকর্ম মূল্যায়ন করে আইসিএআই। তাই সেবির নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে আইনি পথে যেতে পারে সংস্থা

• বহুজাতিক সংস্থার হয়ে কাজ করা সেবির নিয়মে আটকাবে না। তাই আঁচ কম ওই ধরনের কাজই বেশি করা কলকাতা কেন্দ্রে

তবে কলকাতায় পিডব্লিউসির ব্যবসায় আঁচ পড়ার সম্ভাবনা কম বলে ধারণা সংশ্লিষ্ট মহলের। যুক্তি, সেবির নিয়মের আওতায় পিডব্লিউসি পড়ে না। সে ক্ষেত্রে আদালতে যাওয়ার রাস্তা আছে। তা ছাড়া, এখানে গ্লোবাল ডেলিভারি সেন্টার মূলত কাজ করে বিভিন্ন বহুজাতিকের জন্য। সেবির নিয়মে তা আটকাবে না।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন