• জয়ন্ত ঘোষাল
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

রিজার্ভ ব্যাঙ্কের শীর্ষে কৌশিক বসুকে আনতে আপত্তি সঙ্ঘের

kaushuk basu
আইআইএম কলকাতায় কৌশিক বসু। শুক্রবার। ছবি: সুদীপ্ত ভৌমিক

Advertisement

রিজার্ভ ব্যাঙ্কের গভর্নর পদে মোদী-সরকার কৌশিক বসুকে চাইলেও, তাতে আপত্তি তুলেছে সঙ্ঘ-পরিবার। কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলিও কৌশিক বসুকে চান। কিন্তু সঙ্ঘ-পরিবারের মত হল, কৌশিকবাবু অর্থনীতিবিদ হিসেবে অনেক বেশি আর্থিক উদারীকরণ ও সংস্কারপন্থী। তাঁর এই পরিচিতির জন্যই কৌশিকবাবুর নামে সঙ্ঘ-পরিবারের আপত্তি রয়েছে।

জেটলির অবশ্য মত, রঘুরাম রাজন রিজার্ভ ব্যাঙ্কের গভর্নর পদ থেকে সরে যাওয়ার ঘটনায় শিল্পমহল, বিশেষ করে বিদেশের শিল্পমহল ও বুদ্ধিজীবী মহলে বিরূপ প্রতিক্রিয়া হয়েছিল। কিন্তু কৌশিকবাবুকে সেই পদে নিয়ে এলে তা অনেকটাই প্রশমিত করা যেতে পারে। কারণ তিনি এত দিন বিশ্ব ব্যাঙ্কের প্রধান অর্থনীতিবিদ ছিলেন। যদিও সঙ্ঘ পরিবার মনে করছে, তিনি তাঁদের রাজনৈতিক লাইন মেনে চলবেন না।

এই পরিস্থিতিতে কৌশিক বসু নিজেই রিজার্ভ ব্যাঙ্কের গভর্নরের পদ নিতে চাইছেন না। কারণ, আমেরিকার কর্নেল বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপনার জগতে ফিরে যাওয়ার টান। টাটা গোষ্ঠী ওই বিশ্ববিদ্যালয়ে অর্থ সাহায্য দিচ্ছে। রতন টাটা নিজে ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ছিলেন। তাই কর্নেলকে নব কলেবরে গড়ে তুলতে তিনি উৎসাহ দেখাচ্ছেন। সেখানে কৌশিকবাবু গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নেবেন।

ইউপিএ-জমানায় ২০০৯ থেকে তিন বছর অর্থ মন্ত্রকের মুখ্য উপদেষ্টা ছিলেন কৌশিক বসু। তার পর থেকেই তিনি বিশ্ব ব্যাঙ্কের মুখ্য অর্থনীতিবিদ। এখন মোদী জমানায় রিজার্ভ ব্যাঙ্কের শীর্ষ পদে কাজ করার চ্যালেঞ্জ নিতে আপত্তি না-থাকলেও, আরএসএসের আপত্তির কথা জেনে কৌশিকবাবু তাই এখন অধ্যাপনা বা শিক্ষার জগতে ফিরতেই বেশি আগ্রহী। রাজনের মেয়াদ শেষ ৪ সেপ্টেম্বর। তাঁর উত্তরসূরি বাছাইয়ের কাজটি অবশ্য দ্রুতই সেরে ফেলতে হবে নরেন্দ্র মোদী-অরুণ জেটলিকে।

সবাই যা পড়ছেন

Advertisement

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন