ফের ফিক্সড ডিপোজিট বা স্থায়ী আমানতে সুদের হার কমাল স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া। রিজার্ভ ব্যাঙ্ক রেপো রেট ৩৫ বেসিস পয়েন্ট কমানোর পর অগস্ট মাসের ১ তারিখেই এক দফা সুদ কমানোর ঘোষণা করেছিল এসবিআই। তার ১৫ দিনের মধ্যে ফের ১০ থেকে ৫০ বেসিস পয়েন্ট পর্যন্ত কমানো হয়েছিল সুদের হার। ২৬ অগস্ট থেকে যে রেট কার্যকর হয়েছে। তার ১৫ দিনের মধ্যে ফের স্থায়ী আমানতে সুদের হার কমানোয় উদ্বিগ্ন গ্রাহকেরা। প্রবীণ নাগরিকদের ক্ষেত্রেও কাটছাঁট করা হয়েছে এই সুদের হারে। স্থায়ী আমানতে পরিবর্তিত সুদের হার ১০ সেপ্টেম্বর থেকে কার্যকর হওয়ার কথা। এই নিয়ে এক বছরের মধ্যে পাঁচবার সুদ কমাল স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া।

স্থায়ী আমানতে সুদের হার কমানোর ফলে ছবিটা যে রকম দাঁড়াল, সেটা হল, ২৬ অগস্ট থেকে ১৮০ দিন থেকে ২১০ দিন স্থায়ী আমানতে পর্যন্ত সুদের হার কমে হয়েছিল ৬ শতাংশ। ১০ সেপ্টেম্বর থেকে তা কমে হবে ৫.৮০ শতাংশ। তেমন প্রবীণদের ক্ষেত্রে এই হার ৬.৫০ শতাংশ থেকে কমে হচ্ছে ৬.৩০ শতাংশ।

সেরকমই ২১১ দিন থেকে ১ বছরের কম পর্যন্ত স্থায়ী আমানতে সুদের হার কমে হল ৫.৮০ শতাংশ। প্রবীণদের ক্ষেত্রে ৬.৫০ শতাংশ থেকে ৬.৩০ শতাংশ। ১ বছর থেকে ২ বছরের কম পর্যন্ত স্থায়ী আমানতে সুদের হার ৬.৭০ শতাংশ থেকে কমে হল ৬.৫০ শতাংশ। প্রবীণদের ক্ষেত্রে যা কমে হল ৭.২০ শতাংশ থেকে ৭ শতাংশ। তবে ৭ দিন থেকে ৪৫ দিন পর্যন্ত স্থায়ী আমানত, ৪৬ দিন থেকে ১৭৯ দিন পর্যন্ত এবং ৩ বছরের বেশি স্থায়ী আমানতে সুদের হারের কোনও পরিবর্তন হয়নি। অর্থাৎ স্থায়ী আমানতে ২০ থেকে ২৫ বেসিস পয়েন্ট কমিয়েছে স্টেস ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া।

গ্রাফিক: তিয়াসা দাস।

আরও পড়ুন: বৌবাজারে ফের হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ল তিনতলা বাড়ি, ক্ষতিগ্রস্ত বাড়ি ভাঙার কাজও শুরু করল মেট্রো

এসবিআই গ্রাহকদের মধ্যে নিম্নবিত্ত, মধ্যবিত্ত গ্রাহকের সংখ্যা অন্যান্য ব্যাঙ্কের তুলনায় সবচেয়ে বেশি। গ্রাহক হিসাবে প্রবীণ নাগরিকের সংখ্যা এসবিআইয়ে সর্বাধিক। ফের সুদের হার কমায় তাই দুশ্চিন্তায় তাঁরা। তবে যাঁরা গৃহঋণ নিয়েছিলেন তাঁদের মুখে কিছুটা হাসি ফুটিয়েছে এসবিআই। কারণ, স্থায়ী আমানতের পাশাপাশি গৃহ ঋণেও সুদের হার কমিয়েছে স্টেট ব্যাঙ্ক।

আরও পড়ুন: অরবিটারের তাপচিত্র দিল বিক্রমের হদিস, ‘জীবিত’ না ‘মৃত’ স্পষ্ট নয়

এমসিএলআর ১০ বেসিস পয়েন্ট কমিয়েছে স্টেট ব্যাঙ্ক, তার অর্থ দাঁড়ায় প্রতি বছর ৮.১৫ শতাংশ এমসিএলআর দিতে হবে গ্রাহককে। এতদিন যেটা ছিল ৮.২৫ শতাংশ। ১০ সেপ্টেম্বর অর্থাৎ আগামিকাল থেকে এটাও কার্যকর হবে। কিন্তু তার মানে এই নয় যে, আগামিকাল থেকেই গ্রাহককে গৃহঋণের ইএমআই কম গুনতে হবে। স্টেট ব্যাঙ্কের গৃহঋণের ফ্লোটিং রেট একবছর যাবত এমসিএলআর-এর সঙ্গে যুক্ত। ফলে গৃহঋণে ব্যাঙ্কের রিসেট ক্লজ যদি অগস্ট হয়ে থাকে, আর সেপ্টেম্বরে গৃহঋণে সুদের হার কমে, তাহলে পরবর্তী অগস্ট মাস পর্যন্ত গৃহঋণে সুদের হার কমবে না। শুধু স্টেট ব্যাঙ্কই নয়, সেন্ট্রাল ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া, অ্যাক্সিস ব্যাঙ্ক, ওরিয়েন্টাল ব্যাঙ্ক অফ কমার্স, আইডিবিআই ব্যাঙ্ক এবং আইডিএফসি ব্যাঙ্কও গৃহ ঋণে সুদ কমাচ্ছে।