এক দিকে আমেরিকা ও চিনের মধ্যে শুল্ক যুদ্ধ বন্ধ নিয়ে চুক্তি স্বাক্ষর ঘিরে অনিশ্চয়তা। অন্য দিকে মুনাফার টাকা তুলে নিতে শেয়ার বিক্রির হিড়িক। এই দুইয়ের জাঁতাকলে পড়ে শুক্রবার পড়ল সূচক। শুক্রবার সেনসেক্স নামল ৪২৪.৬১ পয়েন্ট। আর নিফ্‌টি খোয়াল ১২৫.৮০ পয়েন্ট। বাজার বন্ধের সময় সেনসেক্স ৩৬,৫৪৬.৪৮ অঙ্কে এবং নিফ্‌টি ১০,৯৪৩.৬০ অঙ্কে শেষ হয়।

তবে বাজার পড়লেও এ দিন ডলারের সাপেক্ষে বেড়েছে টাকার দাম। এক ডলারের দাম ১৪ পয়সা পড়ে দাঁড়িয়েছে ৭১.৩১ টাকা।

অনেকের মতে, কয়েক দিনে সেনসেক্স বেড়েছে প্রায় ১,০০০ পয়েন্ট। কিন্তু ওই বৃদ্ধি হয়েছে দামে সংশোধন ছাড়াই। ফলে চড়া বাজারে হাতের শেয়ার বিক্রি করে লাভের টাকা তোলার যে সুযোগ তৈরি হয়েছিল, লগ্নিকারীরা তা-ই কাজে লাগিয়েছেন। যা টেনে নামিয়েছে বাজারকে। সূচক পড়ার অন্যতম কারণ টাটা মোটরসের লোকসানও। যার প্রভাবে সংস্থার শেয়ারদর পড়েছে প্রায় ১৮%।

এ দিন শুধু ভারতই নয়, বিশ্বের সিংহভাগ শেয়ার সূচকই পড়েছে। শুল্ক যুদ্ধের থামাতে আমেরিকা ও চিনের মধ্যে মার্চের শুরুতে যে বৈঠক হওয়ার কথা ছিল, তা হওয়ার সম্ভাবনা নেই বলে জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এরই বিরূপ প্রভাব পড়েছে বিশ্ব জুড়ে শেয়ার বাজারে।