Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৮ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

সুদ কমার আশায় সূচক বাড়ল ৩২২ পয়েন্ট

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ৩০ মে ২০১৫ ০২:০৩

ইন্ডিয়ান অয়েল (আইওসি) এবং সেলের মতো বড় মাপের সংস্থার খারাপ আর্থিক ফলাফলকে উপেক্ষা করে বাড়ল শেয়ার বাজার। শুক্রবার সেনসেক্স ৩২১.৭৩ পয়েন্ট উঠেছে। থিতু হয়েছে ২৭,৮২৮.৪৪ অঙ্কে। গত দু’সপ্তাহের মধ্যে সেনসেক্সের এতটা উত্থান দেখা যায়নি। বিশেষজ্ঞেরা মনে করছেন, রিজার্ভ ব্যাঙ্ক আগামী ২ জুন ঋণনীতি ফিরে দেখতে গিয়ে সুদ কমানোর পথে হাঁটবে, এই আশাতেই শেয়ার কিনতে ভিড় করেন লগ্নিকারীরা। তবে এ দিন গত ২০১৪-’১৫ অর্থবর্ষের আর্থিক বৃদ্ধির ফল প্রকাশের আগেই বাজার বন্ধ হয়ে যায়। অবশ্য বৃদ্ধির হার ভাল হওয়ার প্রত্যাশাও সূচক ওঠার অন্যতম কারণ বলে ইঙ্গিত বিশেষজ্ঞদের।

শুক্রবার আইওসি জানিয়েছে, গত অর্থবর্ষের চতুর্থ ত্রৈমাসিকে তাদের নিট মুনাফা ৩৩% কমে হয়েছে ৬,২৮৫.৩৫ কোটি টাকা। সেলের নিট মুনাফাও ১১৯ কোটি টাকা কমে হয়েছে ৩৩৪ কোটি। তবে সাতটি ত্রৈমাসিক পরে ২০১৪-’১৫ সালের চতুর্থ ত্রৈমাসিকে মুনাফা করেছে স্পাইসজেট, যার জেরে এ দিন সংস্থাটির শেয়ার দর বেড়ে গিয়েছে ৭%।

আইওসি, সেলের মতো সংস্থার ফল খারাপ হলেও লগ্নিকারীরা কিন্তু এ দিন শেয়ার কিনতে নেমেছেন। ফলে উঠেছে সূচকের পারা। প্রবীণ বাজার বিশেষজ্ঞ এবং ক্যালকাটা স্টক এক্সচেঞ্জের প্রাক্তন সভাপতি কমল পারেখ বলেন, ‘‘আর্থিক ফল যে খারাপ হবে, সেটা আগেই আঁচ করেছিল বাজার। তাই তার বিরূপ প্রভাব পড়ছে না।’’ তা ছাড়া, হালে বাজারে ভাল রকম সংশোধন হওয়ায় বহু নামী সংস্থার শেয়ার অনেক কম দামে মিলছে। পড়তি বাজারে শেয়ার কেনার এই সুযোগ লগ্নিকারীরা হাতছাড়া করছেন না।

Advertisement

তবে বাজারমহল এখন তাকিয়ে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের দিকে। ঋণনীতির পর্যালোচনায় শীর্ষ ব্যাঙ্ক সুদ কমায় কি না, সেটাই দেখার জন্য বসে তারা। ক্যালকাটা স্টক এক্সচেঞ্জের প্রাক্তন ডিরেক্টর এস কে কৌশিক বলেন, ‘‘বাজারে আরও কিছু সংশোধনের সুযোগ আছে। তবে সেটা যে হবেই জোর দিয়ে বলা যাচ্ছে না। কারণ, সুদ কমলে ও ভাল বর্ষা শুরু হলে সূচক উঠবে।’’

বিদেশি লগ্নিকারী সংস্থাগুলি যদিও টানা শেয়ার বিক্রি করে চলেছে। বিশেষজ্ঞদের বক্তব্য, এর কারণ, আমেরিকায় সুদের হার বাড়ার সম্ভাবনা। সেটা সত্যিই ঘটলে ওই সব সংস্থা ভারতের বাজারে যে-টাকা লগ্নি করেছে, তার একটা বড় অংশ তুলে নিয়ে আমেরিকায় ঢালবে।

কমলবাবু অবশ্য বলেন, ‘‘বিদেশি লগ্নিকারী সংস্থাগুলি শেয়ার বেচলেও ভারতের বিভিন্ন আর্থিক সংস্থা টানা শেয়ার কিনছে। লগ্নি করছে মিউচুয়াল ফান্ডগুলিও। তাই বিদেশিদের শেয়ার বিক্রি তেমন ভাবে ভারতের বাজারে বিরূপ প্রভাব ফেলতে পারবে বলে মনে হয় না।’’

আরও পড়ুন

Advertisement