টাকার বিপুল পতন তো আছেই। সোমবার শেয়ার বাজারে কাঁপুনি ধরাল বিশ্ব বাজারে অশোধিত তেলের দাম বৃদ্ধি এবং চিন-মার্কিন শুল্ক যুদ্ধের উত্তাপও। ফলে ভারত-সহ বিভিন্ন দেশেই নামল সূচক। সেনসেক্স ৪৬৭.৬৫ পয়েন্ট পড়ে দাঁড়াল ৩৭,৯২২.১৭ অঙ্কে। পড়ল নিফ্‌টিও।

একে তো ইরানের তেল না কেনার জন্য মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের জারি করা ফরমানে বিশ্ব বাজারে অশোধিত তেলের জোগান ঘিরে দুশ্চিন্তা দানা বেঁধেছে। যার জেরে বাড়ছে তার দাম। তার উপর আরও বেশি চিনা পণ্যে শুল্ক বসানোর হুমকি দিয়েছেন তিনি। যার পাল্টা জবাব দেওয়ার শপথ নিয়েছে বেজিংও। ফলে বাণিজ্য যুদ্ধের আশঙ্কাও বহু দেশের বাজারে অস্থিরতা বাড়িয়েছে। বিশেষজ্ঞেরা বলছেন, এর পাশাপাশি ভারতে পেট্রল-ডিজেলের দরও বাড়ছে হুড়মুড়িয়ে। ফলে মূল্যবৃদ্ধির আরও মাথা তোলার আশঙ্কা তৈরি হচ্ছে। উদ্বেগ বাড়ছে ঘাটতিতে লাগাম থাকা নিয়েও। টোল খাচ্ছে লগ্নিকারীদের আস্থা। এরই প্রভাব পড়েছে সূচকে।

তবে এডেলওয়েইজ ব্রোকিংয়ের কর্তা রাহুল জৈন বলেন, ‘‘বাজার এখন অনিশ্চিত থাকবে ঠিকই। কিন্তু গত ত্রৈমাসিকে বহু সংস্থার ফল ভাল হয়েছে। বর্ষাও হচ্ছে ভাল। বৃদ্ধির গতি বেড়েছে। এ সবের ইতিবাচক প্রভাবও পড়বে। তবে ভোটের আগে স্থিতিশীলতা আসার সম্ভাবনা কম।’’

এ অবস্থায় লগ্নিকারীদের সাবধানে পা ফেলতে বলছেন দেকো সিকিউরিটিজের কর্ণধার অজিত দে। স্টুয়ার্ট সিকিউরিটিজের চেয়ারম্যান কমল পারেখের পরামর্শ, ‘‘বাজার থেকে দূরে থাকুন ছোট লগ্নিকারীরা।’’

ধাক্কা
• সেনসেক্স নামল ৪৬৭.৬৫ পয়েন্ট। নিফ্‌টি ১৫১।

• বিএসই-তে এক দিনে মুছে গেল লগ্নিকারীদের ১.৯৬ লক্ষ কোটি টাকার সম্পদ।

কারণ
• টাকার বিপুল পতন।

• আন্তর্জাতিক বাজারে অশোধিত তেলের দাম বাড়া।

• চিন-মার্কিন শুল্ক লড়াইয়ের উত্তাপ বাড়ার কারণে বিশ্ব জুড়ে বাণিজ্য যুদ্ধের ভয়।

• বিভিন্ন দেশের শেয়ার বাজারে সূচকের পতন।