বিছানার চাদর জড়ানো অবস্থায় রাস্তার পাশ থেকে এক মহিলার মৃতদেহ উদ্ধার করল পুলিশ। মৃতের নাম শম্পা চক্রবর্তী (৪৭)। রবিবার সকাল সাড়ে ৬টা নাগাদ তাঁর মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। পর্ণশ্রী থানার বাসুদেবপুর রোডের ঘটনা। এ দিন সকালে প্রথম প্রাতঃভ্রমণকারীরাই তাঁর মৃতদেহ দেখতে পান।

পুলিশ সূত্রে খবর, প্রাতঃভ্রমণকারীরা প্রথমে দেখেন রাস্তার পাশে বিছানার চাদর জড়ানো অবস্থায় কিছু পড়ে রয়েছে। কাছে গেলে মহিলার পা বেরিয়ে থাকতে দেখা যায়। এরপর তাঁরাই পুলিশে খবর দেন। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে চাদর খুললে স্থানীয়েরা তাঁকে চিনতে পারেন। ওই মহিলার গলা কাটা ছিল, মুখে প্লাস্টিক জড়ানো ছিল। মৃতদেহের পাশে একটি ট্রলিও পড়েছিল।

স্থানীয় সূত্রে খবর, শম্পা চক্রবর্তী এই এলাকাতেই থাকতেন। ঘটনাস্থলের ঠিক উল্টো দিকে একটি তিনতলা বাড়ির ছাদের ঘরে তিনি থাকতেন। তাঁর স্বামী ভুপাল চক্রবর্তী পেশায় একজন নিরাপত্তারক্ষী।

আরও পড়ুন: ছোট ভাইয়ের জন্য রাঘিব ‘অনুতপ্ত’

প্রাথমিক তদন্তের পর পুলিশের অনুমান, তাঁকে খুন করে দেহ লোপাটের চেষ্টা করছিল আততায়ীরা। তারাই শম্পাদেবীর দেহ রাস্তার পাশে ফেলে রেখে পালায়।

আরও পড়ুন: চালকই খুনি কলকাতার তরুণীর

স্থানীয়দের জিজ্ঞাসা করে পুলিশ জানতে পেরেছে, শম্পাদেবীর পরিবারে দীর্ঘ দিন ধরেই বিবাদ চলছিল। শনিবার রাত আড়াইটে থেকে ৩টে পর্যন্ত ঘর থেকে চিৎকার শোনা গিয়েছে। এমনকি গভীর রাতে তাঁর মেয়ে-জামাইকে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যেতেও দেখেছেন স্থানীয়েরা। ঘটনার পর থেকে শম্পাদেবীর স্বামী এবং মেয়ে-জামাই পলাতক ছিলেন। বেলা ১২টা নাগাদ তাঁদের আটক করেছে পুলিশ।