বাড়ির পাশের কলাবাগান থেকে উদ্ধার হল এক বৃদ্ধের দেহ। মৃতের নাম নিরঞ্জন চৌধুরী (৮০)। তিনি পাটুলির বি ব্লকের বাসিন্দা ছিলেন। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের ধারণা, ওই বৃদ্ধ বাড়ির ছাদ থেকে ঝাঁপ দিয়ে আত্মঘাতী হয়েছেন। তবে, মৃত্যুর কারণ নিয়ে এখনই কিছু বলতে নারাজ পুলিশ। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট আসার পরেই বিষয়টি পরিষ্কার হবে বলে তাদের দাবি।

পুলিশ সূত্রে খবর, পাটুলির ওই বাড়িতে নিরঞ্জনবাবু একাই থাকতেন। তিনি অসম বিদ্যুৎ পর্ষদের অবসরপ্রাপ্ত কর্মী ছিলেন। অন্যান্য দিনের মতো বুধবার ভোরে স্থানীয়দের কয়েক জন প্রাতর্ভ্রমণে বেরিয়েছিলেন। তাঁরাই নিরঞ্জনবাবুর বাড়ির পাশের কলাবাগানে একটি দেহ উপুড় হয়ে পড়ে থাকতে দেখেন। কাছে গিয়ে তাঁরা বুঝতে পারেন, ওই দেহ নিরঞ্জনবাবুর। এর পরেই স্থানীয় এক চিকিৎসককে খবর দেওয়া হয়। জানানো হয় পুলিশকেও। ওই চিকিৎসক এসে নিরঞ্জনবাবুকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। এর পর পুলিশ এসে তাঁর দেহ ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালে পাঠায়।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, গত ডিসেম্বরেই মারা গিয়েছেন নিরঞ্জনবাবুর স্ত্রী। তাঁর ছেলে কর্মসূত্রে থাকেন অসমে। আর মেয়ে স্বামীর কর্মসূত্রে থাকেন দিল্লিতে। কাজেই পাটুলির বাড়িতে একাই থাকতেন তিনি। এক জন আয়া তাঁর দেখভালের কাজ করতেন। তবে, এ দিন তিনি আসেননি বলেই জানতে পেরেছে পুলিশ। কেন আসেননি, তা নিয়ে স্থানীয় আয়া সেন্টারে কথা বলেছে তারা। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের ধারণা, একাকিত্বজনিত কারণে অবসাদ থেকেই বাড়ির ছাদ থেকে ঝাঁপ দিয়ে আত্মঘাতী হয়েছেন বৃদ্ধ। বাড়িতে ঢোকার দরজাও ভিতর থেকে বন্ধ ছিল বলে পুলিশ জানিয়েছে।

আরও পড়ুন: টলিউড অভিনেত্রীকে মাঝপথে নামিয়ে দেওয়ার চেষ্টা, হুমকি! অভিযুক্ত ক্যাবচালক

আরও পড়ুন: কলকাতা বিমানবন্দরে হাইড্রোলিক সাকশানে মাথা আটকে মৃত্যু? অভিযোগ অস্বীকার কর্তৃপক্ষের