দিল্লির টাউন হল হবে হেরিটেজ হোটেল

শাহজাহানের কন্যা জাহানারার উদ্যানের পাশেই ছিল পারস্যের ধনী ব্যবসায়ীদের সরাই। চাঁদনি চক এলাকার সেই জমিতেই ব্রিটিশ আমলে ১৮৬৩ সালে ভিক্টোরীয় স্থাপত্য রীতিতে তৈরি হয় টাউন হল। নাম হয় লরেন্স ইনস্টিটিউট, শুরু হয় ব্রিটিশ অফিসারদের কলেজ। তিন বছর পরে ১৬ একর জমির উপর ওই বাড়ি কিনে নেয় দিল্লি পুরসভা, ১.৩৫ লক্ষ টাকায়।

অভিজাত: দিল্লির টাউন হল। এখন সংস্কারের অপেক্ষায়

তার পর থেকে এই টাউন হলেই বসেছে দিল্লি পুরসভার দফতর। স্বাধীনতার পর টাউন হলে রানি ভিক্টোরিয়ার মূর্তি সরিয়ে বসানো হয় স্বামী শ্রদ্ধানন্দের মূর্তি। আট বছর আগে দিল্লি রেল স্টেশনের কাছে নতুন বাড়িতে পুর দফতর সরে যাওয়ার পর, টাউন হল তালাবন্ধ। ভিতরে গ্যালারিতে বন্ধ পড়ে আছে ইউরোপের নানা দেশের দুষ্প্রাপ্য সামগ্রী, সোভিয়েত আমলের পুতুল। এমনকি লাইব্রেরিতে বন্ধ অবস্থায় পড়ে আছে আঠারো হাজারেরও বেশি বই। এ বার পুরসভা ঠিক করেছে, টাউন হলের সংস্কার করে চালু হবে হেরিটেজ হোটেল।

কী হবে

২০১৪ সালে দিল্লির সব লোকসভা আসনই বিজেপি দখল করেছিল। এ বার কিন্তু টেনশন আছে। শোনা যাচ্ছে, কিছু ‘সিটিং এমপি’-র নামও বাদ যেতে পারে। তার বদলে অরাজনৈতিক জনপ্রিয় ব্যক্তিদের আনা হতে পারে। যেমন ক্রিকেটার গৌতম গম্ভীর, বা অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত। গৌতম দিল্লির ছেলে, তাঁর ছেলেবেলা কেটেছে বারাখাম্বা রোডে। কঙ্গনাও দিল্লিতে কাটিয়েছেন বেশ ক’বছর। ভবিষ্যতে কী হয়, সময়ই বলবে।

আরও দু’বছর

অসম-মেঘালয় ক্যাডারের বাঘা আইপিএস অফিসার জি পি সিংহ কাশ্মীরের সন্ত্রাসের ঘটনার তদন্ত করছিলেন। জাতীয় তদন্ত সংস্থা বা এনআইএ-র আইজি (ইনটেলিজেন্স) হিসেবে তাঁর দায়িত্ব ছিল, সন্ত্রাসে আর্থিক মদত বন্ধ করা। সম্প্রতি মোদী সরকার তাঁর কাজের মেয়াদ দু’বছর বাড়িয়ে দিল। তদন্তে যাতে ছেদ না পড়ে, সেটাই নাকি উদ্দেশ্য। বাতাসে অবশ্য জোর গুঞ্জন, এই জি পি সিংহই মালেগাঁও বিস্ফোরণের তদন্ত হাতে নিয়ে সাধ্বী প্রজ্ঞা ঠাকুরদের রেহাই দিয়েছিলেন। প্রজ্ঞা ছাড়া পেতে বিজেপি বলতে পেরেছে, গেরুয়া সন্ত্রাসের অভিযোগ আসলে বানানো গল্প। জি পি-র উপরেও কি সে কারণেই সরকার সদয়! উত্তর মেলেনি।

নতুন সাজে

প্রথমে হুমায়ুন, পরে তাঁকে হঠিয়ে শের শাহ সুরি। দিল্লির ‘পুরানা কিলা’র সঙ্গে জড়িয়ে দু’জনেই। এই কেল্লার ভিতরেই আছে শের মণ্ডল। হুমায়ুনের নিজস্ব লাইব্রেরি। যার উপরতলা থেকে তাড়াহুড়ো করে খাড়া সিঁড়ি বেয়ে নামতে গিয়েই পা ফস্কে পড়ে মৃত্যু হয় হুমায়ুনের। সালটা ১৫৫৬। এ যুগে পুরানা কিলা মানেই কেল্লার প্রাচীরের সামনের লেক-এ বোটিং, আর শীতে ভিতরের মাঠে গান-বাজনার অনুষ্ঠান। মাঝে লেক-এর জল শুকিয়ে গিয়েছিল। কেল্লাতেও মেরামতির কাজ চলছিল। মায়াবী আলো, ফোয়ারায় সেজে অবশেষে ফের দরজা খুলল পুরানা কিলা-র। হাসি ফুটল দিল্লিবাসীর মুখে।

জিয়াংয়ের ‘ঘুমর’

লাও ঝাওহুই

পদ্মাবতে ‘ঘুমর’ নেচেছিলেন দীপিকা পাড়ুকোন। সেই ঘুমর নাচ দেখিয়েই সাড়া ফেলেছেন চিনা রাষ্ট্রদূতের স্ত্রী জিয়াং ইলি। চিনের ৬৯-তম জাতীয় দিবসের আগে দিল্লির চিনা দূতাবাসে রাজনীতিক, কূটনীতিকদের আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন রাষ্ট্রদূত লাও ঝাওহুই। ভারত-চিন বন্ধুত্বের উদ্‌যাপনে চিনা গানের সঙ্গে শোনা গেল ‘আওয়ারা হুঁ’ এবং ‘ঘুমর’। তার সঙ্গে রাজস্থানি পোশাকে নাচলেন জিয়াং।

লাও ঝাওহুইয়ের স্ত্রী জিয়াং ইলি

জিয়াং দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়েছেন, বলিউডের গানের সঙ্গে তাঁর পরিচয় নতুন নয়। কিন্তু তাঁকে ‘ঘুমর’ নাচতে দেখে বিস্মিত দুই কমিউনিস্ট নেতা সীতারাম ইয়েচুরি ও ডি রাজা।

তুমি ‘শশী’ হে

শশী তারুর মানেই নতুন নতুন ইংরেজি শব্দের চমক। সম্প্রতি টুইট করলেন নরেন্দ্র মোদীকে নিয়ে লেখা তাঁর নতুন বই ‘দ্য প্যারাডক্সিকাল প্রাইম মিনিস্টার’ নিয়ে, সেখানেই পাওয়া গেল বিরাট এক ইংরেজি শব্দ: ‘ফ্লক্সিনসিনিহিলিপিলিফিকেশন’। মানে কোনও কিছুকে নগণ্য, অর্থহীন প্রতিপন্ন করার স্বভাব। সোশ্যাল মিডিয়ায় কলরোল, তোমারই তুলনা তুমি, শশী হে!