সানা থেকে আরও এক দিন বিমানে উদ্ধারের কাজ চালাবে ভারত। বুধবারই সানা থেকে বিমানে উদ্ধারের কাজ শেষ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু আটকে থাকা ১৪০ জন কেরলের নার্সের অনুরোধে সেই সময়সীমা আরও এক দিন বাড়িয়ে দেওয়া হল। ঠিক হয়েছে, বৃহস্পতিবারই এই অভিযান শেষ হবে। বুধবার এ কথা জানিয়েছেন বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র সৈয়দ আকবরউদ্দিন।

বুধবার ইয়েমেনের রাজধানী সানা থেকে আটকে থাকা ভারতীয়দের বিমানে ফিরিয়ে আনার কাজ শেষ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু কেরলের ১৮০ জন নার্স ‘আল কুয়েতি ইউনিভার্সিটি হসপিটাল’-এ এখনও আটকে রয়েছেন। অভিযোগ, কর্তৃপক্ষ তাঁদের পাসপোর্ট ফেরত দিচ্ছেন না। তিন মাস বেতনও পাচ্ছেন না তাঁরা। ফলে তাঁদের বিমানবন্দরে পৌঁছনোর মতো প্রয়োজনীয় অর্থও ছিল না। এই অবস্থায় কয়েক দিন আগে তাঁরা কেরলের মুখ্যমন্ত্রী উমেন চান্ডির কাছে সাহায্য চান। তিনি বিদেশমন্ত্রকে যোগাযোগ করেন। এ দিন সেই নার্সদের নিয়ে আসার জন্যই বিমান উদ্ধারের প্রক্রিয়া আরও এক দিন চালু রাখার সিদ্ধান্ত হল বলে জানাল বিদেশমন্ত্রক। বুধবারই এয়ার ইন্ডিয়ার দু’টি বিমানে সানা থেকে ৪০০ জনকে জিবুতিতে ফিরিয়ে আনা হয়। এ নিয়ে ‘মিশন রাহত’-এ সব মিলিয়ে প্রায় চার হাজার ভারতীয়কে উদ্ধার করা হয়েছে। এ ছাড়াও ২৬টি দেশের মোট ২২৬ জন নাগরিককেও উদ্ধার করেছে ভারতের নৌ এবং বায়ুসেনা। বুধবার সকালে নৌসেনার জাহাজ তারাকাশ ইয়েমেনের আল-হোদেইদা বন্দর থেকে ৭৪ জনকে নিয়ে জিবুতি পৌঁছয়। এর পরেই নৌসেনার অন্য জাহাজ সুমিত্রা আল-হোদেইদা বন্দরে ঢোকে। নৌসেনার অন্য জাহাজও উদ্ধারকাজ চালিয়ে যাচ্ছে। পাক নৌসেনা যে ১১ জন ভারতীয়কে উদ্ধার করেছে তাঁরা করাচি হয়ে দিল্লি পৌঁছেছেন। তাঁদের স্বাগত জানাতে দিল্লি বিমানবন্দরে পাক হাইকমিশনারও উপস্থিত ছিলেন।

বেশ কিছু দিন ধরে শিয়া হুথি বিদ্রোহীরা ইয়েমেন থেকে নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট হাদিকে সরিয়ে দিতে লড়াই করছেন। প্রেসিডেন্ট হাদি আপাতত সৌদি আরবে আশ্রয় নিয়েছেন। তাঁকে ক্ষমতায় ফেরাতে সৌদি আরবের নেতৃত্বে আরব লিগ ইয়েমেনে বিমান হামলা শুরু করেছে। ১৩ দিন ধরে চলা এই হামলায় প্রায় ৫৪০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে ৭৪ জন শিশু বলে জানা গিয়েছে। আহতের সংখ্যা ১৭ হাজার ছাড়িয়ে গিয়েছে।