×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৫ জুলাই ২০২১ ই-পেপার

Bengal Polls: ভোটের আগে বিজেপি-র নির্বাচনী কার্যালয়ে আগুন, তৃণমূলের বিরুদ্ধে অভিযোগ, বিক্ষোভ রায়গঞ্জে

নিজস্ব সংবাদদাতা
রায়গঞ্জ ১৬ এপ্রিল ২০২১ ১৫:২৮
পিরোজপুর গ্রামের রাস্তায় বিজেপি-র অবরোধ-বিক্ষোভ।

পিরোজপুর গ্রামের রাস্তায় বিজেপি-র অবরোধ-বিক্ষোভ।
—নিজস্ব চিত্র।

রায়গঞ্জে ভোটের সপ্তাহখানেক আগে বিজেপি-র নির্বাচনী কার্যালয় পুড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠল তৃণমূলের বিরুদ্ধে। এর প্রতিবাদে শুক্রবার এলাকায় টায়ার জ্বালিয়ে রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখালেন বিজেপি-র কর্মী-সমর্থকেরা। গোটা ঘটনায় রায়গঞ্জ বিধানসভার কেন্দ্রে পিরোজপুর গ্রামে তীব্র উত্তেজনা দেখা দিল। যদিও বিজেপি-র অভিযোগ অস্বীকার করে একে তাদের গোষ্ঠী কোন্দলের ফল বলে আখ্যা দিয়েছে তৃণমূল।

বিজেপি-র অভিযোগ, গত কয়েক দিন ধরে তৃণমূলআশ্রিত দুষ্কৃতীরা তাদের কর্মীদের নানা ভাবে হুমকি দিয়ে চলেছে। বৃহস্পতিবার রাতে পিরোজপুর গ্রামে দলের কার্যালয়ে আগুন ধরিয়ে দেয় তারা। এই ঘটনায় বিজেপি নেতৃত্বের দাবি, জনসমর্থন হারিয়ে গিয়েছে বুঝেই এলাকায় সন্ত্রাস চালাচ্ছে তৃণমূল।

শুক্রবার সকালে দলের নির্বাচনী কার্যালয় ভস্মীভূত অবস্থায় দেখতে পান বিজেপি কর্মীরা। এর পর বিজেপি-র কর্মী-সমর্থকেরা পিরোজপুর গ্রামের রাস্তায় জড়ো হয়ে টায়ার জ্বালিয়ে পথ অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন। অবরোধ-বিক্ষোভের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় কর্ণজোড়া ফাঁড়ির পুলিশ। ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন রায়গঞ্জ আসনের বিজেপি প্রার্থী কৃষ্ণ কল্যাণী। তাঁর দাবি, ‘‘তৃণমূলের গুন্ডারা রাতে পার্টি অফিস জ্বালিয়ে দিয়েছে। তাদের পায়ের তলায় মাটি সরে গিয়েছে। ফলে হিংসাই এখন তাদের অস্ত্র। পার্টি অফিস জ্বালিয়ে, সন্ত্রাস করে যদি ভোট লুঠ করা যায়!’’

Advertisement

ষষ্ঠ দফায় বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল রায়গঞ্জে ভোট। তার আগে এই ঘটনায় পুলিশ-প্রশাসনের নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগও করেছেন বিজেপি প্রার্থী। তাঁর দাবি, ‘‘পুলিশ তৃণমূলের ক্যাডার হয়ে কাজ করছে। এই রকম চলতে থাকলে জনতা ক্ষিপ্ত হয়ে উঠবে।’’ তবে স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্বের দাবি, এই ঘটনায় কোনও ভাবেই জড়িত নয় শাসকদল। কমলাবাড়ি ১ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান তথা তৃণমূল নেতা প্রশান্ত দাস বলেন, ‘‘এটা বিজেপি-র গোষ্ঠী কোন্দলের ফলে হয়েছে। এর সঙ্গে তৃণমূল কোনও ভাবে জড়িত নয়। সদ্য বিজেপি-র জেলা সভাপতি পরিবর্তন করায় জায়গায় জায়গায় তার জের দেখা যাচ্ছে।’’

প্রসঙ্গত, উত্তর দিনাজপুরে ভোটের আগেই কার্যত বেনজির ভাবে জেলা সভাপতি বদল করেছেন বিজেপি রাজ্য নেতৃত্ব। বিশ্বজিৎ লাহিড়িকে সরিয়ে তাঁর বদলে বাসুদেব সরকারকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

Advertisement