×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement
Powered By
Co-Powered by
Co-Sponsors

বাঁকুড়ার ইন্দাসের সভায় লকেট চট্টোপাধ্যায়ের কটাক্ষ

নিজস্ব সংবাদদাতা
ইন্দাস ০২ মার্চ ২০২১ ০৭:১৬
বামনিয়া গ্রামে। নিজস্ব চিত্র

বামনিয়া গ্রামে। নিজস্ব চিত্র

ভোটের প্রচারে বাঁকুড়ায় এসে ‘দুয়ারে সরকার’ প্রকল্পকে কটাক্ষ করলেন বিজেপি হুগলির বিজেপি সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্যায়। সোমবার ইন্দাসের বামনিয়ায় দলীয় সভায় যোগ দিতে এসেছিলেন তিনি। মঞ্চ থেকে লকেট বলেন, ‘‘এত দিন মানুষ যেত সরকারের দুয়ারে, আর তাঁদের সরিয়ে দেওয়া হত। এখন ভোটের ঠ্যালায় দুয়ারে সরকার এসেছে।’’

সম্প্রতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্ত্রীকে সিবিআইয়ের জিজ্ঞাসাবাদের প্রসঙ্গ টেনে লকেটের কটাক্ষ, ‘‘এখন কালীঘাটের দুয়ারে সিবিআই।’’ তিনি বলেন, ‘‘কয়লা চুরির জন্য সিবিআই আমাদের দিদিমণির বৌমার কাছে গেছে। সঙ্গে সঙ্গে উনি বলছেন, আমাদের বাংলার বৌমারা কয়লা চোর? বলা হয়েছে ওঁর বৌমার কথা। তোমার ঘরের ঝামেলা তুমি সামলাও।’’

ইন্দাসের দীঘলগ্রাম পঞ্চায়েতের বামনিয়া এলাকার সভাটিতে এ দিন ছিলেন বিজেপির ইন্দাস বিধানসভার অবজার্ভার মীর নজরুল ইসলাম এবং ইন্দাস ২ মণ্ডলের সভাপতি গৌতম ধাড়া। সভায় লকেট অভিযোগ করেন, প্রধানমন্ত্রী ২০২২ সালের মধ্যে ঘরে ঘরে নলের জল পৌঁছাতে চাইলেও রাজ্যে সেই কাজ আটকে দেওয়া হচ্ছে। দুর্নীতি হয়েছে আমফান এবং করোনার সময়ে কেন্দ্রের পাঠানো ত্রাণ নিয়ে।

Advertisement

বাঁকুড়া জেলা তৃণমূলের চেয়ারম্যান শুভাশিস বটব্যাল বলেন, ‘‘আমাদের রাজ্য সরকার যা করেছে, ভারতের কোনও সরকার তা করতে পারেনি। কাজের জন্য বিভিন্ন জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক পুরস্কার পেয়েছে এ রাজ্য।’’ তাঁর দাবি, ‘‘ভোট এলেই সিবিআই আর ইডি খুব সক্রিয় পড়ে, এখন সবাই মানেটা বোঝেন।’’ কেন্দ্রের ত্রাণ নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগ অস্বীকার করে শুভাশিসবাবুর পাল্টা অভিযোগ, জেলার কিছু জল প্রকল্প কেন্দ্রীয় সরকারের গড়িমসিতেই আটকে রয়েছে।

বামফ্রন্টের ডাকে রবিবারের ব্রিগেড সমাবেশ প্রসঙ্গে এ দিনের সভায় লকেট বলেছেন, ‘‘কারও সঙ্গে কারও মিল নেই, ঝগড়া চলছে। কী ভাবে সংযুক্ত মোর্চা করবে?’’ সিপিএমের বাঁকুড়া জেলা সম্পাদক অজিত পতির প্রতিক্রিয়া, ‘‘উনি সত্য না জেনে কথা বলছেন। ব্রিগেডের বিশাল সভা দেখে বিজেপি
ভয় পেয়েছে।’’

Advertisement