Advertisement
২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২
গুপ্তধনের সন্ধান জারি। আসতে চলেছে ফ্র্যাঞ্চাইজ়ির তৃতীয় ছবি।
Abir Chatterjee

Abir Chatterjee: নতুন অভিযানের পথে সোনাদা

‘গুপ্তধনের সন্ধানে’ বা ‘দুর্গেশগড়ের গুপ্তধন’-এ বাংলার ইতিহাসের সঙ্গে খানিকটা রহস্য, খানিকটা অ্যাডভেঞ্চার মিশিয়েছিলেন ধ্রুব।

‘গুপ্তধনের সন্ধানে’-ছবিতে আবীর, অর্জুন এবং ইশা

‘গুপ্তধনের সন্ধানে’-ছবিতে আবীর, অর্জুন এবং ইশা

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ৩১ ডিসেম্বর ২০২১ ০৮:৪৫
Share: Save:

ফের নতুন অ্যাডভেঞ্চারে জড়িয়ে পড়তে চলেছে সোনাদা, আবীর আর ঝিনুক। তার সঙ্গে দর্শকও পেতে চলেছেন গুপ্তধন ফ্র্যাঞ্চাইজ়ির তৃতীয় ছবি। পরিচালক ধ্রুব বন্দ্যোপাধ্যায় জানালেন, তাঁর নতুন ছবির নাম ‘কর্ণসুবর্ণের গুপ্তধন’। নামেই স্পষ্ট এ বারেও কাহিনির সঙ্গে আষ্টেপৃষ্ঠে জড়িয়ে থাকবে ইতিহাস আর অ্যাডভেঞ্চার। মূল চরিত্রে যথারীতি আবীর চট্টোপাধ্যায়, অর্জুন চক্রবর্তী এবং ইশা সাহা।

‘গুপ্তধনের সন্ধানে’ বা ‘দুর্গেশগড়ের গুপ্তধন’-এ বাংলার ইতিহাসের সঙ্গে খানিকটা রহস্য, খানিকটা অ্যাডভেঞ্চার মিশিয়েছিলেন ধ্রুব। এ বারেও তার অন্যথা হচ্ছে না। পরিচালকের কথায়, ‘‘বাংলার ইতিহাস, সাহিত্য, সংস্কৃতিকে নতুন প্রজন্মের কাছে পৌঁছে দেওয়ার কাজটা গুপ্তধন ফ্র্যাঞ্চাইজ়ির মাধ্যমে করতে চাই। আমাদের ইতিহাসের এমন অনেক দিক আছে যেগুলো চর্চিত নয়, অথচ ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ। কর্ণসুবর্ণ তেমনই একটা অধ্যায়।’’

শাহ সুজা, পলাশির যুদ্ধ, রাজা কৃষ্ণচন্দ্র, বাঙালির দুর্গাপুজোর সূত্রপাত... আগের দু’টি ছবিতে ইতিহাসের নানা দিক স্পর্শ করেছেন পরিচালক। এ বার সোনাদার অ্যাডভেঞ্চারের নেপথ্যে থাকবে কর্ণসুবর্ণের গৌরবময় অধ্যায়। বাংলার প্রথম স্বাধীন শাসক শশাঙ্কের রাজধানী ছিল কর্ণসুবর্ণ। চলতি কথায় বলা হত কানসোনা। হিউয়েন-সাঙের ভ্রমণকাহিনিতে সেই রাজধানীর উজ্জ্বল বিবরণ পাওয়া যায়। অবস্থানগত ভাবে জায়গাটি মুর্শিদাবাদে অবস্থিত ছিল। গুপ্তধন সিরিজ়ের প্রথম দু’টি ছবি সফল হওয়ায়, ধ্রুব তৃতীয় ছবির ক্যানভাস আরও বাড়াতে চাইছেন। ‘‘এ বার একটু হাত খুলে খেলতে চাইছি। বিষয়ের পরিধিও এ বার বেড়ে গিয়েছে। এমন কিছু ঘটনা তুলে ধরব, যা দেখলে ছোট-বড় সবাই গর্ববোধ করবে। মনে হবে, বাংলা এ রকমও ছিল,’’ মন্তব্য পরিচালকের।

বাংলা সাহিত্য-সিনেমায় গোয়েন্দার অভাব নেই। কিন্তু সোনাদা সেই জায়গা থেকে স্বতন্ত্র। ‘‘সোনাদা কিন্তু কখনওই গোয়েন্দা নয়। সে গুপ্তধনও খুঁজে বেড়ায় না। সে একজন অধ্যাপক। কোথাও বেড়াতে গিয়ে বা অন্য কোনও সূত্রে অ্যাডভেঞ্চারে জড়িয়ে পড়ে। জার্নিতে শামিল হয় আবীর-ঝিনুকও। এই তিনটি চরিত্রের মধ্যে যে বাঙালিয়ানা আছে, তা দর্শককে আকর্ষণ করে,’’ বললেন ধ্রুব।

আপাতত ছবির চিত্রনাট্য লেখার কাজ চলছে। ছবিটি ২০২২-এ রিলিজ় করার পরিকল্পনা নির্মাতাদের। ধ্রুবর আরও একটি ছবি ‘রঘু ডাকাত’-এর ঘোষণা হয়েছিল সম্প্রতি, যে ছবিতে নামভূমিকায় রয়েছেন দেব। পরিচালক জানালেন, ওই ছবির প্রস্তুতি নিতে তাঁদের আরও সময় লাগবে। তাই ‘কর্ণসুবর্ণের গুপ্তধন’-এর শুটিং আগে শুরু হবে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.