Advertisement
৩০ নভেম্বর ২০২২

প্রসেনজিৎ এ বার তথ্যচিত্রেও

তাঁর জীবন নিয়ে ছবি। খবর পেল আনন্দplus

শেষ আপডেট: ০২ জুন ২০১৪ ০০:০৬
Share: Save:

‘অটোগ্রাফ’ যে দিন মুক্তি পেল সে দিন সকালবেলা তাঁর মাথায় সব চেয়ে বড় চিন্তা কী ছিল? বাংলাদেশে ভোর তিনটের সময় যখন মেক আপ করতে বসতেন তখন ঘরে কেউ বেশি কথা বললে কেন রেগে যেতেন?
আইসল্যান্ডে শু্যটিংয়ে হনুমান চালিশা পড়ার সময় বের করতেন কী ভাবে?

Advertisement

ব্যক্তিগত জীবনের নানা টানাপড়েনকে অতিক্রম করে বার বার ঘুরে দাঁড়ানোর মন্ত্রটাই বা কী?

প্রসেনজিৎকে নিয়ে এই রকম নানা চেনা অচেনা গল্প আর কিছুদিন পরে বহু মানুষ জানতে পারবেন।

Advertisement

কী করে?

জানতে পারবেন তার কারণ এ বার তাঁকে নিয়ে শুরু হতে চলেছে এক পূর্ণদৈর্ঘ্য তথ্যচিত্র। পরিচালনা করবেন প্রয়াত চিত্রপরিচালক শ্যামল ঘোষালের কন্যা মিতালি ঘোষাল। এর আগে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কে নিয়েও তথ্যচিত্র ‘দ্য ওয়ারিয়র প্রিন্স’ বানিয়েছিলেন তিনি। ‘দ্য ওয়ারিয়র প্রিন্স’য়ের চিত্রনাট্য এবং মূল ভাবনা ছিল যাঁর সেই সম্রাটই প্রসেনজিৎকে নিয়ে নির্মীয়মাণ এই তথ্যচিত্রের মূল ভাবনা ও চিত্রনাট্য বিন্যাসে রয়েছেন।

এই মুহূর্তে ‘ফোর্স’ ছবির শু্যটিংয়ে ব্যস্ত প্রসেনজিৎ। এ ছবির কাজ শেষ হলেই তিনি তথাচিত্রের জন্য শু্যট শুরু করবেন। ইতিমধ্যে প্রসেনজিৎ সম্পর্কে যাবতীয় তথ্যই জড়ো করে ফেলেছেন পরিচালক। বললেন, “দেখলাম প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় তিরিশ বছর ধরে কাজ করছেন। তিনি বাংলার একজন আইকন। এ কথা মনে হয়েছিল সৌরভের সঙ্গে তথ্যচিত্র বানানোর সময় থেকেই। সৌরভ ছাড়া এই বাংলায় যদি কেউ থাকেন যাঁর জীবন বহু মানুষের অনুপ্রেরণা হতে পারে তা হলে সেটা বুম্বাদা। সেই চিন্তাধারা দিয়ে যাত্রা শুরু। বুম্বাদা এবং তাঁর পুরো টিমের সঙ্গে আমাদের মিটিং হয়েছে। জুন মাসের মাঝামাঝি থেকে শু্যটিং শুরু হবে,” বলছেন মিতালি।

দেবশ্রী বা ঋতুপর্ণা কী ভাবে প্রসেনজিৎকে মূল্যায়ন করেন সেটা একটা গুরুত্বপূর্ণ দিক
মিতালি ঘোষাল

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়কে নিয়ে তথ্যচিত্র করার আগে তাঁর স্কুল, ছোটবেলার পাড়া, মুম্বইয়ের স্টুডিয়ো ঘুরে দেখার পরিকল্পনাও রয়েছে পরিচালকের। এমনকী টালিগঞ্জ পাড়ায় প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের ঘনিষ্ঠ যাঁরা, তাঁদের সঙ্গে কথা বলাও শুরু করে দিয়েছেন পরিচালক। তাঁকে নিয়ে এই রকম তথ্যচিত্র তৈরি হচ্ছে তা নিয়ে খুশি প্রসেনজিৎও। “দেখুন এর আগে নীল ও অদিতি আমাকে নিয়ে একটা তথ্যচিত্র বানিয়েছে। কিন্তু সেটা একেবারেই ব্যক্তিগত। অন্য দিকে এই তথ্যচিত্র আমার ৩১ বছরের কাজের জীবন নিয়ে। আমি মিতালির ‘ওয়ারিয়র প্রিন্স’ দেখেছি। ওদের কনসেপ্টটা ভাল লেগেছে আমার। তাই সম্মতি দিয়েছি। ওরা তিরিশে সেপ্টেম্বর আমার জন্মদিনে রিলিজ করতে চাইছে এই ছবি। আমিও সব রকম সাহায্য করব যাতে ওরা কাজটা ভাল ভাবে করতে পারে,” সাফ বলছেন অরুণ চট্টোপাধ্যায়।

তথ্যচিত্রের নাম কী? “নাম এখনও ঠিক হয়নি। খুব শিগগির বুম্বাদার সঙ্গে আলোচনা করে আমরা নাম ঠিক করব,” বলছেন মিতালি।

প্রসেনজিৎকে নিয়ে তথ্যচিত্র তৈরি হচ্ছে বলে একটা প্রশ্ন স্বাভাবিক ভাবেই এসে পড়ে, তা হল দেবশ্রী রায় বা ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তকে কি দেখা যাবে এই তথ্যচিত্রে? “দেখুন প্রথম স্ত্রী হিসেবে শুধু নয়, দেবশ্রী রায় তো বুম্বাদার বহু ছবির নায়িকাও। অন্য দিকে ঋতুর সঙ্গে প্রসেনজিতের হিট ছবির সংখ্যা সব চেয়ে বেশি। পেশাদারিত্ব নিয়ে ওঁরা দু’জন কী ভাবে মূল্যায়ন করেন প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়কে সেটা অবশ্যই একটা গুরুত্বপূর্ণ দিক। আমরা চেষ্টা করব ওঁদের সঙ্গে কথা বলতে, ” বলছেন মিতালি।

সব মিলিয়ে যা পরিস্থিতি ‘ওয়ারিয়র প্রিন্স’য়ের পর বাংলার আর এক ‘দাদা’কে নিয়ে এই তথ্যচিত্র যে চারিদিকে শোরগোল ফেলবেই তা প্রায় এখনই বলে দেওয়া যায়।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.