• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

অনুরাগের মৃত্যুর ‘খবর’ ঘটা করে প্রচার অভিনেতার, একহাত নিলেন পরিচালক

anurag kashyap
অনুরাগ কাশ্যপ।

পরিচালকের মৃত্যুর ভুয়ো খবর ছেপেছিলেন বলি অভিনেতা। আর তাতেই সেই অভিনেতাকে নিজস্ব মেজাজে এক হাত নিলেন পরিচালক অনুরাগ কাশ্যপ। শুধু তাই নয় ‘ভক্ত’দের উদ্দেশ্যেও বললেন দু’চার কথা।

কী হয়েছে?

রবিবার রাতে ঘড়ির কাঁটায় তখন  এগারোটা বেজেছে। হঠাৎই সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘুরতে থাকে বলিউডে আর এক স্টারের মৃত্যুর খবর। তিনি পরিচালক অনুরাগ কাশ্যপ। অনুরাগীদের মন খারাপ। ও দিকে অভিনেতা দিব্যি বেঁচে আছেন। শুধু বেঁচেই নেই, রয়েছেন বহাল তবিয়তে।

অনুরাগের ‘মৃত্যুর খবর’ প্রথম প্রকাশিত হয় বলিউড অভিনেতা এবং চিত্র সমালোচক হিসেবে দাবি করা কামাল আর খান ওরফে 'কেআরকে’ র নিজস্ব ওয়েবসাইট থেকে। সেখানে অনুরাগের ছবি দিয়ে লেখা হয়, “খুব ভাল গল্প বলতেন। রেস্ট ইন পিস অনুরাগ কাশ্যপ। আপনাকে খুব মিস করব”। কথাটা অনুরাগের কানে যেতেও বেশি সময় লাগেনি। তিনি রেগে যেতে পারতেন। কিন্তু নিজস্ব কায়দায় অনুরাগ সোমবার পাল্টা লেখেন, “কাল যমরাজের সঙ্গে দেখা করে এলাম। আজ যমরাজ আবার ফেরত পাঠিয়ে দিল। বলল এখন অনেক সিনেমা বাকি আছে।“

এখানেই থামেননি অনুরাগ। ‘ভক্ত’দের উদ্দেশ্যে তাঁর বক্তব্য, “যমরাজ বলল, তুমি ফিল্ম না বানালে ভক্তরা বয়কট কী করে করবে? আর ওরা যদি বয়কটই না করতে পারে তা হলে জীবন সার্থক হবে কী করে? আর সে জন্যই আবারও ছেড়ে দিয়ে গেল। কী আর করব।“

পরিচালকের ওই টুইটের পড়ে যদিও 'কেআরকে’র তরফে অনুরাগের কাছে ক্ষমা চেয়ে নেওয়া হয়। ভুলবশত এই তথ্য দেওয়া হয়েছেও বলে এক বিবৃতিতে জানায় টিম 'কেআরকে'।

অনুরাগ এবং 'কেআরকে’র মধ্যেকার সম্পর্ক বরাবরই বিশেষ ভাল নয়। ২০১৫ সালে 'কেআরকে' অভিযোগ করেন কর্ণ জোহর এবং অনুরাগ কাশ্যপ নাকি তাঁর ওয়েবসাইটে তাঁদের ছবির রিভিউ না দেওয়ার জন্য অনুরোধ করেছেন 'কেআরকে’-কে। অনুরাগও পাল্টা লেখেন, “কে তুমি 'কেআরকে'? আমার জীবনে একেবারেই অপ্রয়োজনীয় একজন ব্যক্তি তুমি। তাই তুমি রিভিউ দিলে বা না দিলে তা নিয়ে আমি একেবারেই ভাবিত নই।“

 

এর একদিন পরেই 'কেআরকে' একটি স্ক্রিনশট শেয়ার করেন। তাঁর অভিযোগ ছিল, কর্ণ জোহর নাকি অনুরাগ কাশ্যপের ছবি ৫-এ ৪ দেওয়ার জন্য 'কেআরকে’ কে ২৫ লক্ষ টাকার প্রস্তাব দেন। 

এই প্রসঙ্গে বলে রাখা ভাল, অনুরাগের ওই ছবিতে কর্ণও একটি চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন। যদিও কর্ণ এ প্রসঙ্গে কোনও মন্তব্য করেননি। ওই মেসেজগুলি আদপে কর্ণই 'কেআরকে’কে করেছিলেন কিনা তা-ও নিশ্চিত বলা যায় না। শুধু কর্ণ বা অনুরাগ নয়, লিসা হেয়ডন থেকে অজয় দেবগণ, রাকুল প্রীত সিংহ থেকে কঙ্গনা রানাউত...বারেবারেই বিভিন্ন বলিসেলেবের সঙ্গে বিতর্কে জড়িয়েছে কামাল আর খান ওরফে কেআরকে।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন