×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২১ এপ্রিল ২০২১ ই-পেপার

ঊষসী চক্রবর্তীর দিকে তেড়ে গেলেন মহিলা!

মৌসুমী বিলকিস
কলকাতা ০৭ জানুয়ারি ২০২০ ১৫:৫৪
জুন আন্টি ওরফে ঊষসী চক্রবর্তী।

জুন আন্টি ওরফে ঊষসী চক্রবর্তী।

ঊষসী চক্রবর্তীকে মারতে গেলেন এক দর্শক! কেন এই ‘হামলা’? আসলে,‘শ্রীময়ী’ ধারাবাহিকের গল্পে গতানুগতিক ‘ভাল মেয়ে’ চরিত্র নয় জুন, যে চরিত্রে অভিনয় করেছেন ঊষশী। তাকে মেলানো যায় না ছকে বাঁধা ভালমানুষ চরিত্রের সঙ্গে। ফলে দর্শক জুনকে খলনায়িকা হিসেবেই দেখেন। আর তাই এক দর্শক মেনে নিতে পারলেন না জুনকে। ধারাবাহিক দেখতে দেখতে জুনের দিকে রেগেমেগে তেড়ে গেলেন সেই মহিলা। আর সেই ভিডিয়ো তুললেন সেই মহিলার মেয়ে। শুধু ভিডিও তুলেই ক্ষান্ত থাকলেন না, সেই ভিডিও ঊষসীর ফেসবুকে পোস্টও করলেন!

এরকম প্রতিক্রিয়া কেন দেখালেন মহিলা?

ঊষসীর কথায়: “আমার কাছে আমার চরিত্রটা কিন্তু নেগেটিভ নয়। আই থিঙ্ক শি হ্যাজ হার ওন জাস্টিফিকেশন। আমার মনে হয় নন-কনফরমিস্ট একটা ক্যারেক্টার করছি, যে টিপিক্যাল সমাজের নর্ম মেনে চলে না। দ্যাটস হোয়াই মাই ক্যারেক্টার ইজ সো হেটেড। এর মানে চরিত্রটা আমি ভালভাবে ফুটিয়ে তুলতে পারছি। আর এটা আমার কাছে অভিনেতা হিসেবে বড় পাওনা।”

Advertisement

দীনবন্ধু মিত্রের লেখা ‘নীলদর্পণ’ নাটক দেখতে গিয়ে অত্যাচারী ইংরেজ উডের চরিত্রাভিনেতা অর্ধেন্দুশেখর মুস্তাফির দিকে জুতো ছুড়ে মেরেছিলেন ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর। অর্ধেন্দুশেখর বিদ্যাসাগরের জুতোকে তাঁর অভিনয় দক্ষতার পুরস্কার হিসেবেই নিয়েছিলেন। ঊষসীও দর্শকের এই ধরনের প্রতিক্রিয়া তাঁর অভিনয় দক্ষতার প্রাপ্তি হিসেবেই নিয়ে থাকেন।

দেখুন সেই ভিডিয়ো


এদিকে জুন চরিত্রটি নিয়ে নানারকম মিম ঘুরে বেড়াচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। জুনের ফ্যানরা জুনকে নিয়ে বানাচ্ছে মজার ভিডিয়ো। সব মিলিয়ে জুনের ইমপ্যাক্ট ফ্যাক্টর বেশ জমজমাট।

এই মুহূর্তে জুনের জীবন টালমাটাল। জুনের বাড়িতে তার প্রেমিক অনিন্দ্য। অনিন্দ্য-শ্রীময়ীর মেয়ে দিঠিও জুনের বাড়িতে থাকে। এদিকে জুনের বর সম্বিৎ অপমান করে যায় অনিন্দ্যকে। যার ফলে অনিন্দ্য ও দিঠি জুনের বাড়ি ছেড়ে চলে যেতে চায় হোটেলে বা ভাড়াবাড়িতে। জুনের তাতে প্রবল আপত্তি। জুন যেতে চায় অনিন্দ্যর বাড়ি। অসুস্থ শ্রীময়ী হসপিটাল থেকে ফেরার পর আছে সেই বাড়িতেই। অনিন্দ্য ও শ্রীময়ীর বিবাহবিচ্ছেদ হয়ে গিয়েছে।অনিন্দ্যর মা পত্রলেখা চায় অনিন্দ্য জুনকে নিয়ে বাড়িতেই বসবাস করুক। কিন্তু অনিন্দ্যর বাবার তাতে আপত্তি। জুনের ছেলে বুকান চায় সবার সঙ্গেই যেন সে থাকতে পারে। এমনকি, শ্রীময়ীও বুকানের প্রিয় মানুষ। ফলে চরিত্রগুলির টানাপড়েন পৌঁছেছে এক খাদের কিনারায়। কী ঘটতে চলেছে জানে না কেউই!



‘শ্রীময়ী’-ধারাবাহিকের একটি দৃশ্যে ইন্দ্রাণী, সুদীপ এবং ঊষসী

গল্পের ভবিষ্যৎ বোঝা না গেলেও ‘শ্রীময়ী’ চলতি সপ্তাহের টিআরপি রেটিং-এ সব ধারাবাহিক মিলিয়ে চতুর্থ স্থানে আছে। মাঝখানে কিছুদিন দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছিল। তাহলে কি তালিকায় কিছুটা পিছিয়ে গেল ‘শ্রীময়ী’?

ঊষসী বলছেন,“এই সপ্তাহের রেটিং ৮.৪। আমরা পিছিয়ে যাইনি। স্টারের হায়েস্ট ছিলাম, এখনও আছি। স্টারের জিআরপি (Gross Rating Point) তো জি চ্যানেলের থেকে অনেক কম, সেটাও কনসিডার করতে হবে। ‘শ্রীময়ী’ সবসময় চতুর্থ ছিল। ‘কৃষ্ণকলি’, ‘রাসমণি’, ‘ত্রিনয়নী’-র পরেই। দু, একটা সপ্তাহ ‘কৃষ্ণকলি’র থেকে আমরা বেশি ছিলাম। কিন্তু সব চ্যানেল মিলিয়ে লাগাতার চার নম্বর ধরে রেখেছে। টিআরপি-র সংখ্যার হিসেবে ওই তিন ধারাবাহিকের কাছাকাছিই আছি।”



Tags:
শ্রীময়ীঊষসী চক্রবর্তী Indrani Haldarইন্দ্রানী হালদার Ushasie Chakraborty Tollywood

Advertisement