Advertisement
২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
parambrata chattopadhay

Sohorer Ushnotomo Dine: ‘শহরের উষ্ণতম দিনে’ শহর কলকাতা জুড়ে বিক্রম-শোলাঙ্কির রসায়ন!

সোমবার থেকেই বিক্রম-শোলাঙ্কি শহর কলকাতা জুড়ে। তাঁদের রসায়ন তাপমাত্রা বাড়িয়ে দিয়েছে! ‘শহরের উষ্ণতম দিনে’ আর কী কী করলেন জুটি?

বিক্রম-শোলাঙ্কি

বিক্রম-শোলাঙ্কি

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ০৭ জুন ২০২২ ১৩:১৯
Share: Save:

সোমবার শহর কলকাতার পারদ কতটা চড়েছিল? আবহাওয়া দফতর বলছে, ৩৮ ডিগ্রি। এ দিনই কি শহরের উষ্ণতম দিন? প্রযোজক পরমব্রত চট্টোপাধ্যায় বলছেন, ‘‘শহরজুড়ে সারা ক্ষণই প্রেম-ভালবাসার মরসুম। যাঁরা সেই আকর্ষণে ফিরে আসেন তাঁরা জানেন, কলকাতার প্রত্যেকটা দিনই হৃদয়ের উষ্ণতায় উষ্ণ।’’ সেই উষ্ণতায় নতুন মাত্রা যোগ করেছে বিক্রম চট্টোপাধ্যায়-শোলাঙ্কি রায়ের গাঢ় রসায়ন। তাঁদের সঙ্গে অনামিকা চক্রবর্তী, রাহুল দেব বসু এবং দেবপ্রিয় মুখোপাধ্যায়ের বন্ধুত্ব। পাঁচ ইয়ারি কথা, প্রেম ধরা দিতে চলেছে পরিচালক অরিত্র সেনের আগামী ছবি ‘শহরের উষ্ণতম দিনে’-তে। যৌথ প্রযোজনায় শ্যাডো ফিল্মস এবং রোড শো ফিল্মস। মঙ্গলবার আনন্দবাজার অনলাইনে প্রথম প্রকাশ্যে ছবির ‘ফার্স্ট লুক’।

এই গল্প ঋতবান আর অনিন্দিতা। আর তাঁদের বন্ধুদের। কলকাতার এই প্রজন্মের মতোই তাঁরাও নিজের শহরেই যে যার মতো ব্যস্ত। কেউ শিক্ষা বা পেশার টানে ছিটকে গিয়েছেন অন্যত্র। তার পরেও প্রতি মুহূর্তে তাঁদের টানে এই শহর। তাঁরাও ফিরে ফিরে আসেন। ছুঁয়ে যান তাঁদের ফেলে আসা দিনগুলো।

ঋতবানকে যেমন পড়াশোনার কারণে বাইরে চলে যেতে হয়েছিল। অনিন্দিতার সঙ্গে প্রেমটাও থমকে গিয়েছিল তার। অনিন্দিতা এখন রেডিয়ো জকি। আর পড়া শেষ করে কলকাতায় ঋতবান। নতুন করে আবারও প্রেমের বাণ ডাকবে, সেটাই স্বাভাবিক। তাই তারা কখনও বাগবাজার ঘাটে। কখনও দক্ষিণ কলকাতার ছিমছাম রেস্তরাঁয়। এই দুই চরিত্রেই দেখা যাবে বিক্রম-শোলাঙ্কিকে।

মঙ্গলবার আনন্দবাজার অনলাইনে প্রথম প্রকাশ্যে ছবির ‘ফার্স্ট লুক’।

মঙ্গলবার আনন্দবাজার অনলাইনে প্রথম প্রকাশ্যে ছবির ‘ফার্স্ট লুক’।

এ ভাবেই অরিত্রর ছবি জুড়ে উত্তর এবং দক্ষিণ কলকাতা একাকার। ছবির সিংহভাগ শ্যুট শেষ। ১৫ থেকে ২০ জুন টানা শ্যুট করলেই শেষ ছবির কাজ। প্রেমের ছবি মানেই গান। ৩-৪টি গান সম্ভবত থাকবে। গাইতে শোনা যাবে নবারুণকে। ছোট-বড় পর্দার এই পাঁচ তরুণ তুর্কি ছাড়াও পর্দায় থাকবেন দেবেশ রায়চৌধুরী, সুদীপা বসু, সুজয়প্রসাদ চট্টোপাধ্যায়, রেশমি সেন এবং সিদ্ধার্থ চট্টোপাধ্যায় (তোপসে)।

এই মুহূর্তে গৌরব চট্টোপাধ্যায়-সোলাঙ্কি জুটি বড় এবং ছোট পর্দায় জনপ্রিয়। ছবি তৈরির আগে এই জুটির কথা মনে এসেছিল পরিচালকের? অরিত্রর দাবি, ‘‘ইচ্ছে নদী’ ধারাবাহিকে বিক্রম-শোলাঙ্কির রসায়ন আমার এখনও চোখে লেগে আছে। মনে হয়েছে, দু’জনেই এই প্রজন্মকে উপস্থাপন করতে পারবেন। বিক্রম শুরু থেকে এই ছবির সঙ্গে যুক্ত। চিত্রনাট্য লেখার সময় তথ্য, পরামর্শ দিয়ে যথেষ্ট সাহায্য করেছেন। পরমব্রত নিজেও এই জুটির প্রতি আস্থা রেখেছেন। ফলে, মনে হচ্ছে ছোট পর্দার মতোই এই জুটি বড় পর্দাতেও ছাপ ফেলতে চলেছে।’’

‘শহরের উষ্ণতম দিনে’ পরমব্রত কী ভাবে উষ্ণতা ছড়াবেন? তাঁর দাবি, এই ছবিতে খুব মন দিয়ে শুধুই প্রযোজকের দায়িত্ব পালন করবেন। এর বেশি আর কিচ্ছু নয়।

সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তেফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ

Follow us on: Save:
Advertisement

Share this article

CLOSE