• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

প্রতিবাদের ভাষা

Kareena Kapoor Khan
করিনা

সময় বদলায়। কিন্তু কিছু জিনিস কিছুতেই বদলায় না। যতই বদলে যাওয়ার বার্তা চারপাশে ছড়িয়ে পড়ুক, আমেরিকায় ভিনদেশি নিগ্রহ থামেনি। আর সেটা যদি খোদ প্রশাসনের হাতে হয়, তাতে ছড়িয়ে পড়ে জনরোষ। সম্প্রতি তেমনই একটি ঘটনার প্রতিবাদে বিশ্বের অন্যান্য তারকার পাশে এসে দাঁড়ালেন করিনা কপূর খান।

কয়েক দিন ধরেই একটি ভিডিয়ো সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল। আমেরিকার মিনেসোটার মিনিয়াপোলিসে শুট করা হয়েছে ভিডিয়োটি। সেখানে দেখা যাচ্ছে, এক ব্যক্তির উপরে চড়াও হয়েছে একাধিক পুলিশ। হ্যান্ডকাফ পরা অবস্থায় সেই ব্যক্তি রাস্তায় শুয়ে এবং পুলিশ পাঁচ মিনিটেরও বেশি সময় ধরে হাঁটু গেড়ে বসে তাঁর ঘাড়ে চাপ দিয়ে রয়েছে। ওই ব্যক্তি রুদ্ধশ্বাস অবস্থায় কোনও মতে বলছেন, ‘‘আমি শ্বাস নিতে পারছি না।’’ তার পরেও তাঁকে ছাড়া হয়নি। পরে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে ওই ব্যক্তিকে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়। জানা যায়, ব্যক্তির নাম জর্জ ফ্লয়েড। তিনি আদতে আফ্রিকার হলেও থাকতেন আমেরিকায়। জর্জ গ্রেফতার হওয়ার পরে কোনও ভাবেই পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেননি। অথচ তাঁকে ‘খুন’ করেছে আমেরিকার পুলিশ, অভিযোগ উঠছে তেমনই। ঘটনার সময়ে রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে থাকা এক ব্যক্তি ভিডিয়ো তুলে তা ছড়িয়ে দেন সোশ্যাল মিডিয়ায়।

এ ঘটনার প্রতিক্রিয়ায় হ্যাশট্যাগ জাস্টিস ফর জর্জ ফ্লয়েড লিখে অনলাইনেও চলছে প্রতিবাদ। জাস্টিন বিবার, কিম কার্দাশিয়ান, ডেমি লোভাটোর মতো তারকাদের  সঙ্গে গলা তুলেছেন করিনাও। ইনস্টাগ্রামে নায়িকার পোস্ট করা ছবি থেকে স্পষ্ট যে, ১৯৬৮ বা ২০১৫ সালের পরেও আমেরিকায় ‘কালো’ মানুষ নিগ্রহ বন্ধ হয়নি।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন