×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২১ জুন ২০২১ ই-পেপার

স্বজনপোষণ! নেটাগরিকদের আক্রমণের মুখে একের পর এক টুইটার ছাড়ছেন সোনাক্ষী, সাকিবরা

সংবাদ সংস্থা
মুম্বই ২১ জুন ২০২০ ২২:৫১
আয়ুষ, সোনাক্ষী, সাকিব। ছবি: সোশ্যাল মিডিয়া থেকে নেওয়া।

আয়ুষ, সোনাক্ষী, সাকিব। ছবি: সোশ্যাল মিডিয়া থেকে নেওয়া।

সুশান্ত সিংহ রাজপুতের মৃত্যু যেন ঝড় বইয়ে দিয়েছে বলিউডে। স্বজনপোষণের অভিযোগে একের পর এক আক্রমণের মুখে পড়তে হচ্ছে ফিল্মি পরিবার থেকে উঠে আসা বা তথাকথিত গডফাদারের স্নেহধন্য অভিনেতা, অভিনেত্রীদের। আর সোশ্যাল মিডিয়ার দৌলতে এখন যে কেউ ভার্চুয়ালি সেলিব্রিটিদের কাছে পৌঁছে যাচ্ছেন। ফলে দিন দিন যেন তীব্র হচ্ছে এই স্টার কিডদের প্রতি নেটাগরিকদের আক্রমণের ধার। তার জেরে টুইটারের মতো মাইক্রো ব্লগিং সাইট ছেড়ে দিলেন সোনাক্ষী সিনহা, আয়ুষ শর্মা, জাহির ইকবাল, সাকিব সালেম-রা।

‘আউট সাইডার’ সুশান্ত সিংহ রাজপুতের আত্মহত্যার পর স্বজনপোষণ নিয়ে সলমন খান, কর্ণ জোহর থেকে নতুন প্রজন্মের আলিয়া, টাইগার, রণবীর কপূরদের মতো অভিনেতাদের বিরুদ্ধে বিষোদগার বেড়েই চলছিল। বাদ যাননি ‘বিহারী বাবু’ শত্রুঘ্ন সিনহার মেয়ে সোনাক্ষীও, তাঁকেও আক্রমণের মুখে পড়তে হয়। তারই জেরে টুইটার ছাড়ার কথা ঘোষণা করলেন। শেষ টুইটের একটি স্ক্রিনশট নিজের ইনস্টাগ্রাম হ্যান্ডলে পোস্ট করেন সোনাক্ষী।

একই পথ ধরলেন হিমাচল প্রদেশের কংগ্রেস নেতা অনিল শর্মার ছেলে ও সলমন খানের ভগ্নিপতি আয়ুষ শর্মাও। তাঁকেও বলিউডে সলমন খানের কারণে সুযোগ-সুবিধা পাওয়ার অভিযোগে বিদ্ধ করেন নেটাগরিকরা। তিনিও টুইটার ছাড়ার কথা ঘোষণা করেন।

Advertisement

Aag lage basti mein... mein apni masti mein! Bye Twitter 👋🏼

A post shared by Sonakshi Sinha (@aslisona) on

হুমা কুরেশির ভাই সাকিব সালেম কুরেশিও একই ঝড়ের মুখে পড়ে মাইক্রো ব্লগিং সাইট আপাতত ছেড়ে দিয়েছেন। তিনি শনিবারই টুইটার ছাড়ার কথা ঘোষণা করেন।

সাকিবের পোস্ট:


আর এক নবাগতকে টুইটার ছাড়তে হল। তিনি হলেন জাহির ইকবাল। জাহির যদিও ফিল্মি ফ্যামিলি থেকে আসেননি। তবে তাঁর বাবা এবং সলমন খান দীর্ঘদিনের বন্ধু। আর বোনের বিয়ের সময় জাহিরকে স্টেজ পারফর্ম করতে দেখে সলমনের মনে ধরে। তার পরই জাহিরকেও লঞ্চ করার পরিকল্পনা করেন সলমন। ২০১৯-এ সলমন খান ফিল্মসের ব্যানারে মুক্তি পায় নোটবুক, মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করেন জাহির ইকবাল। ফলে তাঁকেও সলমন খানের স্নেহধন্য হওয়ার অভিযোগে নেটাগরিকদের কটাক্ষের মুখে পড়তে হয়। তার জেরেই টুইটার ছাড়েন তিনি। এই তালিকা হয়তো আরও দীর্ঘ হবে।

Advertisement