দুই বন্ধু। প্রথম জনকে রেডিয়ো দিয়েছিল প্রথম পরিচিতি। তার পর জনপ্রিয়তা এসেছিল টেলিভিশন শোয়ের মাধ্যমে। আর বাচিক শিল্পই দ্বিতীয় জনের আত্মপরিচিতি। পাশাপাশি রয়েছে অভিনয়, লেখালিখির পরিসরও। এই বন্ধুরা হলেন মীর এবং সুজয়প্রসাদ চট্টোপাধ্যায়।

এই দুই শিল্পীকে আপনি নিশ্চয়ই চেনেন। কিন্তু সেই সত্ত্বার আড়ালে থাকা মানুষটাকে ক’জন চেনেন? 

সে সুযোগ এ বার হাতের মুঠোয়। আগামী ২৭ এপ্রিল, শনিবার ‘আইসিসিআর’-এ অনুষ্ঠিত হবে ‘বিয়িং আস’। সেখানেই শিল্পী নয়, মানুষ হিসেবে মীর এবং সুজয়প্রসাদকে চিনে নেওয়ার সুযোগ পাবেন দর্শক।

আরও পড়ুন, মানুষ হিরোদের চোখে জল দেখতে পছন্দ করে না: প্রসেনজিৎ

এই অনুষ্ঠানের মূল ভাবনা সুজয়প্রসাদের। তিনি শেয়ার করলেন, ‘‘শিল্পীদের ভিতরে যে আসল মানুষ থাকে, তাকে বেশির ভাগ সময়েই আমরা আড়াল করে রাখি বা লুকিয়ে রাখি। সেই মানুষটাকে সকলের সামনে আনব এই অনুষ্ঠানে। মীর আর আমি মানুষ হিসেবে যেমন, সেটাই উপস্থাপিত করব। আমাদের জীবনের ১০টা ঘটনা যা মোড় বদলে দিয়েছে, সেটা বলব। গান, আড্ডা, অন্তরঙ্গ আলাপচারিতা হবে দর্শকের সঙ্গে। দর্শকের প্রশ্ন নেব। সব আলো জ্বলবে। মঞ্চ খোলা থাকবে। কাঁচা ফরম্যাটের অনুষ্ঠান বলতে পারেন।’’

আরও পড়ুন, ‘আমি বেকার, কারও কাছে পার্ট আছে?’

মীরের সঙ্গে থাকবেন ‘ব্যান্ডেজ’-এর সদস্যরা। ব্যাকগ্রাউন্ড স্ক্রিনে শৌভিক পাল এবং কাকলি দে-র কিছু ফটো ব্যবহার করা হবে। কখনও কলকাতার ভোর, কখনও মধ্য দুপুর, কখনও বা সূর্যাস্ত— যা সেই সব সময়ে শহরের গতি বোঝাতে সাহায্য করবে বলে দাবি করলেন সুজয়প্রসাদ।

(কোন সিনেমা বক্স অফিস মাত করল, কোন ছবি মুখ থুবড়ে পড়ল - বক্স অফিসের সব খবর জানতে পড়ুন আমাদের বিনোদন বিভাগ।)