বাইপাসের ধারের যে হাসপাতালে অসুস্থতা নিয়ে ভর্তি হয়েছিলেন নুসরত জাহান, সোমবার দুপুরে সেখান থেকেই কথা বললেন আনন্দবাজার ডিজিটালের সঙ্গে। বললেন,“ভাল আছি আমি! কেউ চিন্তা কোরো না আর। আমি তো লাঞ্চ খাচ্ছি এখন।” শান্ত গলায় বললেন তিনি।

রাজনীতি।নতুন ছবি ‘অসুর’-এর প্রমোশন। নিখিলের পারিবারিক ব্যবসায় সাহায্য। সংসারের দায়িত্ব। ছুটে ছুটে টাকি যাওয়া। এত কিছুর দায়িত্বে কিছুটা ক্লান্তও তিনি।
তবে সে সব কিছুর পরোয়া না করেই নুসরত হেসে বললেন, “আমার অ্যাস্থমার প্রবলেম তো আছেই, কাল রাতে প্রচন্ড বাড়াবাড়ি শুরু হয়। তাই হসপিটালে আসতেই হলে। তবে এখন অনেক বেটার লাগছে। আরাম। আর কিছুক্ষণ পরই বাড়ি ফিরে যাব। আবার কাজ শুরু হবে।’’ এর পর, সোমবার রাত ৮টার কিছুটা আগে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয় তাঁকে।

রবিবার রাত সাড়ে ৯টা নাগাদ বাইপাস লাগোয়া একটি হাসপাতালে তাঁকে ভর্তি করা হয়। জানা গিয়েছিল, একসঙ্গে অনেক ওষুধ খেয়ে ফেলার কারণেই অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন অভিনেত্রী তথা বসিরহাটের সাংসদ নুসরত জাহান। হাসপাতালের তরফে নিয়ম মেনে ফুলবাগান থানায় তাঁর ‘ড্রাগ ওভারডোজ’ নিয়ে রিপোর্টও করা হয়েছিল।

আরও পড়ুন-আচমকা অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে নুসরত জাহান, একসঙ্গে অনেক ঘুমের ওষুধ খেয়ে বিপত্তি?

কিন্তু প্রথম থেকেই পরিবারের তরফ থেকে ঘুমের ওষুধ খেয়ে অভিনেত্রীর অসুস্থতার কথা ‘সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন’ বলে উড়িয়ে দেওয়া হয়। নুসরতের স্বামী নিখিলও আনন্দবাজার ডিজিটালকে এ দিন সকালে জানান, ক্রনিক হাঁপানি রয়েছে নুসরতের। বাড়াবাড়ি হওয়াতেই রবিবার রাতে তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়েছিল।