Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২১ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

বন্ধ হয়ে যাচ্ছে ধারাবাহিক ‘কাদম্বিনী’?

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ ১৫:৩৮
কাদম্বিনীর চরিত্রে অভিনয় করছেন উষসী।

কাদম্বিনীর চরিত্রে অভিনয় করছেন উষসী।

বন্ধ হতে চলেছে জি বাংলার ‘কাদম্বিনী’। চ্যানেলের পক্ষ থেকে ‘কাদম্বিনী’ ধারাবাহিকের আর্টিস্টদের মেল করে এই খবর জানানো হয়েছে। ওই ধারবাহিকের অভিনেতা ধ্রুব সরকার আনন্দবাজার ডিজিটালকে বলেন, “চ্যনেলের পক্ষ থেকেই বলা হয়েছে শুট হয়তো এই মাসে শেষ হবে। খুব সম্ভবত অক্টোবরের পাঁচ তারিখ শেষ টেলিকাস্ট হবে ‘কাদম্বিনী’। মন খারাপ ‘কাদম্বিনী’ ধারাবাহিকের ‘নিরঞ্জন মিত্র’ ওরফে, ধ্রুব সরকারের।

ধ্রুব জানান, ধারাবাহিক শেষ হওয়ার ঘটনা তাঁর কাছে নতুন নয়। তাঁর কথায়, “নেতাজিও এক ভাবে শেষ হয়েছিল। এত ভাল কাজ বলেই আজ হিন্দিতে ডাব করে তা জাতীয় স্তরে নিজের জায়গা করে নিয়েছে। ‘কাদম্বিনী’ সেরকম একটা ধারাবাহিক। এত ভাল কাজ কিন্তু, সব দর্শক দেখতে চাইলেন না। খুব ভাল টি আর পি- পেল না এই ধারাবাহিক। জি প্রচুর চেষ্টা করেছিল। লোকে সেই এক নায়ক আর দুই নায়িকার এক-ই প্রেম দেখতে চায়।” হতাশ ধ্রুজ্যোতি সরকার। যিনি নেতাজিতে মেজদা শরৎ বসু হয়েছিলেন।

যদিও ধারাবাহিকটির পরিচালক রাজেন্দ্র প্রসাদ দাস বলেন, "আনুষ্ঠানিক ভাবে এখনও ঘোষণা হয়নি। তবে কানোঘুষো সবাই শুনছি, বন্ধের পথে কাদম্বিনী। এর আগেও একবার এরকম রটেছিল, খনার বচন ধারাবাহিক পরিচালনার সময়। সবাই বলেছিল বন্ধ হয়ে যাবে। আমি দেড় বছর ধরে ধারাবাহিকটি পরিচালনা করেছিলাম। এটাও সেরকমই হোক, একান্ত ভাবে চাইছি। তবে সত্যিই বন্ধ হয়ে গেলে বলব ভীষণ কম সময় দেওয়া হল আমাদের। রেটিংয়ের জন্যেই সম্ভবত বন্ধ হতে চলেছে। কিন্তু আগামী দিনে রেটিং উঠবে না, কে বলতে পারে? তবে আমি এবং আমার টিম কাজ করে তৃপ্ত।"

Advertisement



শুধু জি বাংলা নয়, স্টার জলসাতেও চলছে , “প্রথমা কাদম্বিনী”। এই জায়গায় দাঁড়িয়ে জি বাংলা-র ‘কাদম্বিনী’ আলাদা হয়েছিল গল্প বলায়। সম্প্রচারের আগেই জি বাংলার প্রোমো বলেছিল, কাদম্বিনীর ছোটবেলা দেখানো হবে না। ধারাবাহিকের শুরু থেকেই তিনি বড়। স্টারে কিশোরী কাদম্বিনী, ওরফে সোলাঙ্কি রায় তাই দর্শকের সামনে হাজির বেড়া বিনুনি বাঁধা, ঘরোয়া স্টাইলে শাড়ি পরে। অন্য দিকে জি-র ‘কাদম্বিনী’ মেগার ঊষসী রায়কে দেখা গেল, মোটা দুই বিনুনি, মাঝকপালে ছোট্ট টিপ, শাড়ি, কানের ছোট্ট রিং-এ। যা উনিশ শতকের গন্ধ বয়ে নিয়ে এসেছিল এই শহরের ড্রয়িংরুমে।

আরও পড়ুন

Advertisement