Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

০৩ জুলাই ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

Heart Attack Risk: যে ২টি পরীক্ষা বছরখানেক আগেই জানান দেবে হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি আছে কি না

ধমনীতে বাধার কারণে হৃদ্‌যন্ত্রে রক্ত সঞ্চালন ব্যাহত হয়। মূলত সেই কারণে হৃদ্‌রোগের আশঙ্কা দেখা দেয়।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ০১ মার্চ ২০২২ ০৮:৫৫
Save
Something isn't right! Please refresh.
হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হতে পারেন কিনা তার পূর্বাভাসও আপনি পেতে পারেন বহু আগে থেকেই।

হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হতে পারেন কিনা তার পূর্বাভাসও আপনি পেতে পারেন বহু আগে থেকেই।
ছবি: সংগৃহীত

Popup Close

বর্তমানে হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সংখ্যাটা দিন দিন বাড়ছে। অনেকেই মনে করেন যে, বয়সের সঙ্গে বোধহয় হৃদ্‌রোগের ঝুঁকি বৃদ্ধি পায়। তবে সাম্প্রতিক কয়েকটি ঘটনা কিন্তু সে ধারণাকে নস্যাৎ করে দেওয়ার জন্য যথেষ্ট। কয়েক মাস আগেই হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে বলিউড অভিনেতা সিদ্ধার্থ শুক্লার।

কয়েক সপ্তাহ আগেই বলিউডের কৌতুকশিল্পী এবং অভিনেতা সুনীল গ্রোভারও আক্রান্ত হয়েছিলেন হৃদ্‌রোগে। অস্ত্রোপচারের পরে এখন তিনি সুস্থতার পথে।

ধমনীতে বাধার কারণে যখন হৃদ্‌যন্ত্রে রক্ত সঞ্চালন ব্যাহত হয়, মূলত তখনই হৃদ্‌যন্ত্রের এই সমস্যাগুলি দেখা দেয়। কেউ যদি উচ্চ কোলেস্টেরল বা উচ্চ রক্তচাপে আক্রান্ত হন, তাহলে হৃদ্‌রোগের ঝুঁকি অনেকাংশে বৃদ্ধি পায়।

ডায়াবিটিস শনাক্তকরণের জন্য যেমন রক্ত পরীক্ষার প্রয়োজন পড়ে, তেমনই আপনি হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হতে পারেন কিনা তার পূর্বাভাসও আপনি পেতে পারেন বহু আগে থেকেই।

Advertisement
রেটিনার চরিত্র, আচার-আচরণ দেখে অনেক আগেই হার্ট অ্যাটাকের পূর্বাভাস পাওয়া যায়।

রেটিনার চরিত্র, আচার-আচরণ দেখে অনেক আগেই হার্ট অ্যাটাকের পূর্বাভাস পাওয়া যায়।
ছবি: সংগৃহীত


কী ভাবে?

১। সিআরপি(সি-রিঅ্যাকশন প্রোটিন) পরীক্ষার দ্বারা। লন্ডনের ‘ন্যাশনাল হার্ট অ্যান্ড লাং ইনস্টিটিউট’-এর বিশেষজ্ঞরা এই পদ্ধতিটি আবিষ্কার করেছেন। ‘সিআরপি’ এক ধরনের প্রোটিন। হার্ট অ্যাটাকের পর রক্তে যার অস্তিত্ব পাওয়া যায়। মূলত রক্তে এই প্রোটিন বৃদ্ধি পেলে হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা তৈরি হয়। তাই এই ‘সিআরপি’ পরীক্ষার মাধ্যমে প্রায় বছর তিনেক আগে থেকে জেনে নেওয়া সম্ভব যে হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা আছে কি না। থাকলেও তা কতটা।

‘সিআরপি’-এর মাত্রা সাধারণত ২ মিলিগ্রাম বা তার নীচে থাকা স্বাভাবিক। তবে এর মাত্রা যদি ১০-১৫ মিলিগ্রাম থাকে, তাহলে হৃদ্‌যন্ত্র ক্ষতিগ্রস্থ হওয়ার আশঙ্কা থেকে যায়।

‘সিআরপি’ ছাড়াও আরও একটি পরীক্ষার মাধ্যমে প্রায় বছর খানেক আগে থেকে বুঝতে পারবেন যে, পরবর্তীতে হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি আছে কি না।

২। শরীরের প্রায় অনেক রোগের পূর্ব লক্ষণ দেখা দেয় চোখে। হৃদ্‌রোগের ক্ষেত্রেও এর অন্যথা হয়নি। চোখে রেটিনার চরিত্র, আচার-আচরণ দেখে অনেক আগেই হার্ট অ্যাটাকের পূর্বাভাস পাওয়া যায়। এই অভিনব পদ্ধতি আবিষ্কার করেছে গুগ্‌লের আট সদস্যের একটি গবেষক দল। ডায়াবিটিস, উচ্চ রক্তচাপ ও কোলেস্টেরলের উচ্চ মাত্রা বোঝার প্রাথমিক উপায় হিসাবে চিকিৎসকরা বহু দিন ধরেই রেটিনা পরীক্ষা করে আসছেন। রেটিনার ধমনীতে একটুও বদল চোখে পড়লে তা হার্ট অ্যাটাকের পূর্বাভাস হতে পারে। এ ছাড়াও কয়েক ধরনের ক্যানসারের ক্ষেত্রেও প্রাথমিক ভাবে রেটিনা পরীক্ষার চল রয়েছে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement