Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৯ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

বিহারে আক্রান্ত স্কটিশ দম্পতি

২২ অক্টোবর আগ্রার ফতেপুর সিক্রি স্টেশনে একই পরিস্থিতির মুখে পড়েছিলেন এক সুইস দম্পতিও। নিজস্বী তুলতে বাধা দেওয়ায় পাঁচ দুষ্কৃতীর প্রচণ্ড মারধ

নিজস্ব সংবাদদাতা
পটনা ০৭ নভেম্বর ২০১৭ ০৩:২৫
Save
Something isn't right! Please refresh.
Popup Close

ফের ভারতে হামলার মুখে পড়লেন বিদেশি পর্যটক দম্পতি। এ বার বিহারের পটনা লাগোয়া মোকামায়। রবিবার সন্ধেয় দুষ্কৃতীদের আক্রমণের হাত থেকে বাঁচতে গঙ্গায় ঝাঁপ দেন স্কটল্যান্ডের ওই দুই অতিথি। আধঘণ্টা সাঁতরে পৌঁছন বক্তিয়ারপুরের প্রত্যন্ত গ্রামে।

২২ অক্টোবর আগ্রার ফতেপুর সিক্রি স্টেশনে একই পরিস্থিতির মুখে পড়েছিলেন এক সুইস দম্পতিও। নিজস্বী তুলতে বাধা দেওয়ায় পাঁচ দুষ্কৃতীর প্রচণ্ড মারধরে মাথার খুলি ফেটেছিল তাঁদের এক জনের, অন্য জনের ভাঙে হাত।

পুলিশ সূত্রে খবর, ১৩ সেপ্টেম্বর নয়াদিল্লিতে পৌঁছেছিলেন স্কটল্যান্ডের ম্যাথু কিড ও তাঁর স্ত্রী জেসিকা। বয়স ৩৫-৪০। ‘অ্যাডভেঞ্চার ট্যুরিজম’-এর নেশায় হরিদ্বার থেকে রাবারের ভেলায় কলকাতা যাওয়ার পরিকল্পনা ছিল দু’জনের। ২৭ সেপ্টেম্বর তাঁরা রওনা দেন হরিদ্বার থেকে। গত কাল বিকেলে পটনার মোকামার কাছে গঙ্গার একটি চরে (দিয়ারা) নামেন কিড দম্পতি। আশপাশের ছবি তুলছিলেন তাঁরা। অভিযোগ, তখনই কয়েক জন যুবক সেখানে আসে। প্রথমে বিদেশি ওই দম্পতির সঙ্গে ছবি তোলে। তার পর লুটের চেষ্টা করে। বাধা দিলে মহিলা পর্যটকের শ্লীলতাহানি করা হয়। দুষ্কৃতীদের হাত থেকে বাঁচতে গঙ্গায় ঝাঁপ দেন দু’জন। পুলিশ জানিয়েছে, আধঘণ্টা সাঁতরে একটি জনপদে পৌঁছন তাঁরা। সেই গ্রামের লোকেরা বিদেশিদের মুখে ইংরেজি কথাবার্তা প্রথমে কিছুই বুঝতে পারেননি। ‘হেল্প, হেল্প’ শুনে কয়েক জন বিপদ টের পান। তাঁরা দু’জনকে রাত ১০টা নাগাদ নিয়ে যান বক্তিয়ারপুর থানায়। জেলার ডিএসপি মনোজ তিওয়ারি জানান— লুঠপাট, শ্লীলতাহানির অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। গ্রেফতার করা হয়েছে দু’জনকে। বাকিদের খোঁজ চলছে।

Advertisement

এত কিছুর পরও দমতে নারাজ ম্যাথু, জেসিকারা। তাঁরা বলছেন, ‘‘ঘটনাটি দুর্ভাগ্যজনক। এত দেশ ঘুরেছি, কোথাও এমন কাণ্ড ঘটেনি।’’ তবে একই সঙ্গে তাঁরা জানিয়ে দিয়েছেন, ভেলায় চেপে নদীপথেই যাবেন কলকাতায়।



Something isn't right! Please refresh.

Advertisement