Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২১ অক্টোবর ২০২১ ই-পেপার

নীতীশ কুমারই মুখ্যমন্ত্রী, প্রতিশ্রুতি পালন করবে বিজেপি, ঘোষণা সুশীল মোদীর

সংবাদ সংস্থা
পটনা ১১ নভেম্বর ২০২০ ১৩:৪৩
সুশীল মোদী এব‌ং নীতীশ কুমার— ফাইল চিত্র।

সুশীল মোদী এব‌ং নীতীশ কুমার— ফাইল চিত্র।

বিহার বিধানসভার ভোটে আসনপ্রাপ্তির নিরিখে মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমারের দল জেডি(ইউ)-কে অনেকটাই পিছনে ফেলে দিয়েছে বিজেপি। এই পরিস্থিতিতে রাজ্য বিজেপি-র একাংশ মুখ্যমন্ত্রী পদে বদলের দাবি তুলেছে। বিহারের উপমুখ্যমন্ত্রী তথা বিজেপি নেতা সুশীল মোদী কিন্তু মঙ্গলবার স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, নীতীশই ফের ৫ বছরের জন্য পটনার কুর্সিতে বসবেন।

সুশীল এ দিন বলেন, ‘‘ভোটের আগে আমরা প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম, এনডিএ জোট জিতলে নীতীশজি মুখ্যমন্ত্রী হবেন। সেই প্রতিশ্রুতি ভাঙার কোনও প্রশ্নই নেই। এ বিষয়ে বিভ্রান্তির কোনও অবকাশ থাকতে পারে না।’’

২৪৩ আসনের বিহার বিধানসভায় এ বার বিজেপি ৭৪টি আসনে জিতেছে। নীতীশের দলের ঝুলিতে গিয়েছে ৪৩টি। এনডিএ জোটের অন্য দুই শরিক দল, হিন্দুস্থানী আওয়াম মোর্চা (হাম) এবং বিকাশশীল ইনসান পার্টি (ভিআইপি) ৪টি করে আসন জিতেছে। সুশীলের কথায়, ‘‘আমরা সকলে জোট বেঁধে ভোটে লড়েছিলাম। কেউ বেশি আসনে জিতেছেন। কেউ কম আসনে। কিন্তু সকলেই সমান ভাবে জয়ের অংশীদার।’’

Advertisement



গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ।

চিরাগ পাসোয়ানের লোক জনশক্তি পার্টি (এলজেপি) ভোট কাটার কারণে জেডি(ইউ) এ বার অন্তত ২০টি বিধানসভা আসনে হেরেছে বলেও জানান সুশীল। প্রসঙ্গত, ২০১৫ সালের বিধানসভা ভোটে আরজেডি এবং কংগ্রেসের সঙ্গে জোট বেঁধে নীতীশের দল ৭১টি আসনে জিতেছিল। বিজেপি পেয়েছিল ৫৩টি।

আরও পড়ুন: বিহারের বিধানসভা ভোটে অপ্রত্যাশিত ‘স্ট্রাইকিং রেট’ তিন বাম দলের

বিহার বিজেপি-র সভাপতি সঞ্জয় জয়সওয়ালও এ দিন জানিয়েছেন, তাঁর দল মু্খ্যমন্ত্রী বদলের দাবি তুলবে না। তিনি বলেন, ‘‘বিজেপি-র কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব ভোটের আগেই এনডিএ জোটের মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী হিসেবে নীতীশজির নাম ঘোষণা করেছিলেন। সেই সিদ্ধান্তই কার্যকর করা হবে।’’ কিন্তু দু’দশকের সহযোগী জেডি(ইউ)-কে পিছনে ফেলে তো এ বার বিহারে ‘বড় ভাই’ হয়েছে বিজেপি? সঞ্জয়ের জবাব, ‘‘জোট রাজনীতিতে বড় ভাই, ছোট ভাই বলে কিছু হয় না। সকলেই যমজ ভাই।’’

আরও পড়ুন: নীতীশের দলকেও পিছনে ফেলল বিজেপি, মোদী বললেন উন্নয়নের জয়

ঘটনাচক্রে, সুশীল এবং সঞ্জয় দু’জনেই নীতীশের ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিত। কিন্তু বিহারের বিজেপি নেতাদের মধ্য নীতীশ-বিরোধীর সংখ্যা কম নয়। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী গিরিরাজ সিংহ থেকে দলের প্রাক্তন রাজ্য সভাপতি তথা বিদায়ী মন্ত্রী নন্দকিশোর যাদবের মতো অনেকেই রয়েছেন এই তালিকায়। তাঁরা পরিস্থিতির ‘সদ্ব্যবহার’ করে নীতীশকে কোণঠাসা করতে তৎপর। নীতীশ-বিরোধী নেতারা বেশ কিছু আসনে জেডি(ইউ) প্রার্থীকে হারাতে গোপনে এলজেপি-কে মদত দিয়েছেন বলেও অভিযোগ। প্রসঙ্গত, বিহারের বিধানসভা ভোটে জেডি(ইউ)-র বিরুদ্ধে লড়লেও বিজেপির লড়া অধিকাংশ আসনকেই ছাড় দেন চিরাগ।

আরও পড়ুন: বিহারের জয় মোদীর কৃতিত্ব, বলছে বিজেপি

গিরিরাজ কিছুদিন আগেই ভোটের ফল আঁচ করে বলেছিলেন, ‘‘জেডি(ইউ)-র তুলনায় বিজেপি বেশি আসন পেলে নিত্যানন্দ রাইকে (কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী তথা বিজেপি নেতা) মুখ্যমন্ত্রী করা উচিত।’’ গতকাল রাজ্য বিজেপি নেতা অজয়কুমার চৌধুরীও জানিয়েছেন, প্রথম বিজেপি মুখ্যমন্ত্রী পাওয়া উচিত বিহারের। কিন্তু রাজ্য বিজেপির প্রথম সারির নেতাদের বক্তব্যে স্পষ্ট, আপাতত প্রাক নির্বাচনী প্রতিশ্রুতিকেই মর্যাদা দিতে চান তাঁরা।

আরও পড়ুন

Advertisement