Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২১ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

দুর্নীতি কাণ্ডে রমনের ইস্তফা দাবি কংগ্রেসের

শিবরাজ সিংহ চৌহানের পর রমন সিংহ। মধ্যপ্রদেশের পর ছত্তীসগঢ়। পরশু সরকারি চাকরিতে নিয়োগের ক্ষেত্রে বিপুল দুর্নীতির অভিযোগে মধ্যপ্রদেশে বিজেপি স

নিজস্ব সংবাদদাতা
নয়াদিল্লি ২৬ মার্চ ২০১৫ ০৫:২২
Save
Something isn't right! Please refresh.
ছত্তীসগঢ়ের মুখ্যমন্ত্রী রমন সিংহ।

ছত্তীসগঢ়ের মুখ্যমন্ত্রী রমন সিংহ।

Popup Close

শিবরাজ সিংহ চৌহানের পর রমন সিংহ। মধ্যপ্রদেশের পর ছত্তীসগঢ়। পরশু সরকারি চাকরিতে নিয়োগের ক্ষেত্রে বিপুল দুর্নীতির অভিযোগে মধ্যপ্রদেশে বিজেপি সরকারের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিংহ চৌহানের বিরুদ্ধে সিবিআই তদন্তের দাবি জানিয়েছিল কংগ্রেস। এ বার রেশনের চাল-গম-নুন নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগে ছত্তীসগঢ়ের মুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে রমন সিংহ তথা ‘চাউল বালে বাবা’-র পদত্যাগ দাবি করল তারা।

প্রায় ১২ বছর ধরে এই দুই রাজ্যে সরকার চালাচ্ছে বিজেপি। কংগ্রেসের বক্তব্য, দুই সরকারের বিরুদ্ধে হালফিলে উঠে আসা দুর্নীতির অভিযোগও মারাত্মক। মধ্যপ্রদেশে বেআইনি ভাবে সরকারি চাকরিতে দু’লক্ষের মতো কর্মী নিয়োগ হয়েছে। এ ব্যাপারে মুখ্যমন্ত্রী ছাড়াও তাঁর স্ত্রী, আপ্ত সহায়ক এবং রাজ্যপাল রাম নরেশ যাদব ও তাঁর পরিবারের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে। এর মধ্যেই এই মামলায় অভিযুক্ত রাম নরেশের ছেলে শৈলেশ যাদবের আজ রহস্যজনক মৃত্য ঘটায় জটিলতা আরও বেড়েছে। এ দিন রাজভবনে শৈলেশের দেহ উদ্ধার হয়েছে। মৃত্যুর কারণ জানা যায়নি। তবে শৈলেশের পারিবারিক বন্ধু এবং কংগ্রেস নেতা সত্যদেও ত্রিপাঠী জানিয়েছেন, দুর্নীতিতে নাম জড়িয়ে যাওয়ার পর থেকেই অবসাদে ভুগছিলেন শৈলেশ।

অন্য দিকে, ছত্তীসগঢ় সরকারের বিরুদ্ধে অভিযোগ, রেশনে যে চাল-গম-নুন সরবরাহ করা হয়েছে তা নিম্নমানের তো বটেই, সেই সঙ্গে ভুয়ো রেশন কার্ড দেখিয়ে ওই চাল-গম সরবরাহের নামে সরকারি কোষাগারের টাকা লুঠ হয়েছে। রাজ্যের দুর্নীতি দমন শাখা এই ঘটনায় তদন্ত শুরু করে অভিযুক্ত এক ব্যবসায়ীর কাছ থেকে একটি ডায়েরি উদ্ধার করেছে। রমন সিংহের বিরুদ্ধে সেই ডায়েরিই এখন কংগ্রেসের অস্ত্র। কংগ্রেসের অভিযোগ, সেই ডায়েরিতে মুখ্যমন্ত্রী, তাঁর স্ত্রী, ব্যক্তিগত সহায়ক ও শ্যালকের নাম রয়েছে। ডায়েরির ছত্রে ছত্রে বিভিন্ন তারিখে মুখ্যমন্ত্রী ও তাঁর পরিবারকে টাকা পাঠানোর কথা লেখা রয়েছে। কংগ্রেস নেতাদের কটাক্ষ, যাঁকে বিজেপি এত দিন ‘চাউল বালে বাবা’ বলে তুলে ধরত, এখন দেখা যাচ্ছে তিনি ‘চাওল বালে চোর’।

Advertisement

যদিও বিজেপি নেতাদের দাবি, গোটা ব্যাপারটাই কংগ্রেসের রাজনৈতিক প্রচার মাত্র। একটা ডায়েরি দিয়ে কিছুই প্রমাণিত হয় না। এটা ঠিকই যে দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে। কিন্তু তার তদন্তে দুই রাজ্যের সরকারই তত্‌পর।

তবে কংগ্রেসের বক্তব্য, সরষের মধ্যেই ভূত রয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী কি নিজের বিরুদ্ধে তদন্ত করাবেন? নাকি মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে তাঁর প্রশাসন স্বাধীন ভাবে তদন্ত করতে পারবে? তা হলে রমন সিংহের বিরুদ্ধেও কি সিবিআই তদন্তের দাবি জানাবে কংগ্রেস? জবাবে কংগ্রেস মুখপাত্র অভিষেক মনু সিঙ্ঘভি আজ বলেন, “এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলেও তিনি নীরব রয়েছেন। ভাল-মন্দ কিছুই বলেননি। যার অর্থ একটাই। দুর্নীতির বিরুদ্ধে বড় বড় কথা বললেও তাতে প্রশ্রয় দিচ্ছেন মোদী। তাই তাঁর দ্বারস্থ না হয়ে রাষ্ট্রপতির কাছে যাবেন ছত্তীসগঢ়ের কংগ্রেস নেতারা।” তবে ছত্তীসগঢ়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত কংগ্রেস নেতা বি কে হরিপ্রসাদ জানান, সিবিআই তদন্তের নির্দেশ হয় রাজ্য সরকার দেয়, নইলে আদালত। রাজ্যের ওপর আস্থা নেই। সিবিআই তদন্তের দাবিতে তাই আদালতেও যাবে কংগ্রেস।



Something isn't right! Please refresh.

আরও পড়ুন

Advertisement