×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১১ মে ২০২১ ই-পেপার

মৃত্যুর আড়াই বছর পর গো-পাচারের অভিযোগ থেকে ‘অব্যাহতি’ পেলেন সেই পেহলু খান

সংবাদ সংস্থা
জয়পুর ৩০ অক্টোবর ২০১৯ ১৯:৩৯
 এ ভাবেই রাস্তায় ফেলে মারধর করা হয় পেহলু খানকে। —ফাইল চিত্র।

এ ভাবেই রাস্তায় ফেলে মারধর করা হয় পেহলু খানকে। —ফাইল চিত্র।

খুনে অভিযুক্ত ছ’জন ছাড়া পেয়েছে আগেই। এত দিনে গরু পাচার মামলায় ‘অব্যাহতি’ পেলেন রাজস্থানে স্বঘোষিত গোরক্ষকদের হাতে নিহত পেহলু খান। বুধবার পেহলু খান ও তাঁর ছেলেদের বিরুদ্ধে দায়ের ওই মামলা খারিজ করেছে রাজস্থান হাইকোর্ট।

এ দিন বিচারপতি পঙ্কজ ভাণ্ডারীর একক ডিভিশন বেঞ্চে শুনানি চলাকালীন, রাজ্যের পশু নিরাপত্তা আইনে ওই মামলা বাতিল করেন বিচারপতি। তিনি জানান, মেরে ফেলার উদ্দেশেই গরুগুলিকে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল, এর সপক্ষে কোনও প্রমাণ নেই।

২০১৭-র এপ্রিলে পশুমেলা থেকে গরু কিনে ফেরার পথে অলওয়রে স্বঘোষিত গোরক্ষকদের হাতে আক্রান্ত হন ৫৫ বছরের পেহলু খানের। বেধড়ক মারধর করা হয় তাঁকে। মোবাইল ফোনে সেই ভিডিয়ো রেকর্ডও করা হয়। তিন দিন পর হাসপাতালে মৃত্যু হয় তাঁর।

Advertisement

আরও পড়ুন: আপেলবাগানে জঙ্গিদের দেখাই কি কাল হল ওঁদের! ভাত আনতে গিয়ে বেঁচে গেলেন টিপু​

সেই ঘটনায় হামলাকারীদের বিরুদ্ধে খুনের মামলা দায়ের করার পাশাপাশি, পেহলু খান, তাঁর দুই ছেলে এবং ট্রাকের ড্রাইভারের বিরুদ্ধে বেআইনি ভাবে গরু পাচারের এফআইআর দায়ের করে পুলিশ। সেই থেকে একাধিক বার ওই এফআইআর তুলে নেওয়ার আর্জি জানিয়েছিলেন পেহলুর পরিবার। এমনকি গরু কেনার রসিদও তাঁদের কাছে রয়েছে বলে জানান তাঁরা।

আরও পড়ুন: কাশ্মীর ছেড়ে আজই ওঁদের রওনা দেওয়ার কথা ছিল, সাগরদিঘির গ্রামে হাহাকারে মিশে আক্ষেপ​

তার পরেও ওই এফআইআর তুলে নেওয়া হয়নি। উল্টে প্রমাণের অভাবে গত অগস্ট মাসে পেহলু খান হত্যা মামলায় অভিযুক্ত ছ’জনকেই বেকসুর খালাস করে দেয় অলওয়ার জেলা আদালত। নিম্ন আদালতের সেই রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে ইতিমধ্যেই আবেদন জানিয়েছে রাজস্থান সরকার।

Advertisement