Advertisement
১৮ জুলাই ২০২৪
MCD

দিল্লি পুরসভা উপনির্বাচনে শূন্য বিজেপি, ৪ আসনে আপ, ১টিতে কংগ্রেসের জয়

উত্তর-দিল্লি এবং পূর্ব-দিল্লি পুরসভার ওই ৫টি আসনের মধ্যে ১টি বিজেপি-র দখলে ছিল।

দিল্লিতে আপ সমর্থকদের জমায়েত।

দিল্লিতে আপ সমর্থকদের জমায়েত। ফাইল চিত্র।

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি শেষ আপডেট: ০৩ মার্চ ২০২১ ১৫:৫৯
Share: Save:

দিল্লির ২টি পুরসভার ৫টি ওয়ার্ডের উপনির্বাচনে ধরাশায়ী হল বিজেপি। অরবিন্দ কেজরীবালের আম আদমি পার্টি (আপ) জিতল ৪টি আসনে। অবশিষ্ট আসনটি দখল করেছে কংগ্রেস। নয়া কৃষি আইনের প্রতিবাদে উত্তর ভারত জুড়ে কৃষক আন্দোলনের অভিঘাতেই দেশের রাজধানীতে বিজেপি-র এই বিপর্যয় বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের একাংশ।

রবিবার উত্তর-দিল্লি পুরসভার রোহিণী-সি, শালিমার বাগ এবং পূর্ব-দিল্লি পুরসভার ত্রিলোকপুরী, কল্যাণপুরী ও চৌহান বাঙ্গর আসনে উপনির্বাচন হয়েছিল। এর মধ্যে শালিমার বাগ ছিল বিজেপি-র দখলে। সেখানকার বিজেপি কাউন্সিলরের মৃত্যুতে উপনির্বাচন হয়। অন্য ৪টি ওয়ার্ড আপ-এর দখলে ছিল। কংগ্রেসের ঝুলিতে ছিল শূন্য।

বুধবারের গণনার ফল জানাচ্ছে, রোহিণী-সি, শালিমার বাগ, ত্রিলোকপুরী এবং কল্যাণপুরীতে জয়ী হয়েছেন আপ প্রার্থীরা। আপ-এর থেকে চৌহান বাঙ্গর ছিনিয়ে নিয়েছে কংগ্রেস। শতাংশের হিসেবেও কংগ্রেসের ভোট বেড়েছে। শালিমার বাগে বিজেপি প্রার্থীকে প্রায় ৩ হাজার ভোটের ব্যবধানে হারিয়েছেন আপ প্রার্থী। আগামী বছর উত্তর-দিল্লি, পূর্ব-দিল্লি এবং দক্ষিণ-দিল্লি পুরসভার ভোট। তার আগে উপনির্বাচনের এই ফল বিজেপি-কে কিছুটা চাপে রাখল বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকেরা।

কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল দিল্লিতে আপ-এর সরকার থাকলেও সেখানকার ৩টি পুরসভাতেই ক্ষমতায় রয়েছে বিজেপি। বুধবার উপনির্বাচনের গণনার ফল সামনে আসার পরে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী তথা আপ প্রধান অরবিন্দ কেজরীবাল দিল্লির ভোটদাতাদের ধন্যবাদ জানান। তিনি টুইটারে লেখেন, ‘দিল্লির জনতা ফের এক বার কাজের মূল্যায়নের ভিত্তিতে ভোটদান করলেন। সকলকে ধন্যবাদ। গত ১৫ বছরে দিল্লি পুরসভায় বিজেপি-র কুশাসনের ফলে জনতা বীতশ্রদ্ধ। মানুষ এখন দিল্লি পুরসভাতেও আপ-কে ক্ষমতায় আনতে উদ্‌গ্রীব’।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE