Advertisement
২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
Tamilnadu

B.S. Bharathi Anna: সময়ের চাকায় দৃষ্টি হারিয়েও সিপিএমের জেলা সম্পাদক হলেন ভারতী আন্না

তামিলনাড়ু সিপিএম সদস্য বিএস ভারতী আন্না প্রমাণ করলেন, কাজ করার অদম্য ইচ্ছার কাছে হার মানতে বাধ্য হয় সমস্ত প্রতিকূলতা।

বিএস ভারতী আন্না।

বিএস ভারতী আন্না। গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ

সংবাদ সংস্থা
চেন্নাই শেষ আপডেট: ১২ জানুয়ারি ২০২২ ১২:৫৬
Share: Save:

তামিলনাড়ুর ইতিহাসে প্রথম কোনও রাজনৈতিক দলের জেলা স্তরের সম্পাদক হলেন এক দৃষ্টিহীন ব্যক্তি। তামিলনাড়ু সিপিএম সদস্য বিএস ভারতী আন্না প্রমাণ করলেন, কাজ করার অদম্য ইচ্ছার কাছে হার মানতে বাধ্য হয় সমস্ত প্রতিকূলতা। সম্প্রতি তামিলনাড়ুর চেঙ্গলপাট্টু জেলার দলীয় সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন তিনি।

পেশায় উকিল বিএস ভারতী কলেজে পড়ার সময় সিপিএমের ছাত্র সংগঠন এসএফআই-এর মাধ্যমে রাজনীতিতে প্রবেশ করেন। চেন্নাইয়ের ডঃ আম্বেদকর গভর্নমেন্ট ল’ কলেজ থেকে আইনে স্নাতক হওয়ার পর তিনি চেঙ্গলপাট্টুতে অনুশীলন শুরু করেন। একই সঙ্গে দলের তামিলনাড়ু অস্পৃশ্যতা দূরীকরণ ফ্রন্টের সহকারী সম্পাদক হিসেবেও কাজ শুরু করেন তিনি ।

সর্বত্র ‘ভারতী আন্না’ নামে পরিচিত সিপিএম নেতা বলেন, “তিন বছর বয়স পর্যন্ত আমার দৃষ্টি ছিল। তারপর ধীরে ধীরে দৃষ্টিশক্তি কমতে শুরু করে। ২০১৪ সালে আমি সম্পূর্ণ দৃষ্টিহীন হয়ে যাই। দৃষ্টিহীন হওয়ার ফলে মানুষের পাশে থেকে কাজ করায় ব্যাঘাত ঘটে এবং আমি পদত্যাগ করি। বিষণ্ণ হয়ে পড়েছিলাম। কিন্তু পরে আধুনিক প্রযুক্তির সাহায্যে আমি আবার দলে যোগ দিয়ে শারীরিক প্রতিবন্ধীদের জন্য কাজ শুরু করি। ”

ভারতী আন্না জানান, তিনি ‘তামিলনাড়ু অ্যাসোসিয়েশন ফর দ্য রাইটস অফ অল টাইপ্‌স অফ ডিফারেন্টলি এবল্‌ড অ্যান্ড কেয়ারগিভার্স’ সংগঠনের সহ-সভাপতি হিসেবেও কাজ করছেন। তামিলনাড়ুর কোনও রাজনৈতচিক দলেই এমন দৃষ্টান্ত নেই। সে অর্থে সিপিএম ওই সিদ্ধান্ত নিয়ে সেই রাজ্যের রাজনৈতিক ইতিহাসে একটি যুগান্তকারী কাজ করেছে বলেই মনে করছেন দলের নেতারা।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement

Share this article

CLOSE