Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৩ অগস্ট ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

‘লকডাউনের ফলে ৭৮ হাজার মৃত্যু ঠেকানো গিয়েছে’, দাবি হর্ষ বর্ধনের

মন্ত্রীর দাবি, লকডাউনে ১৪ থেকে ২৯ লক্ষ করোনা সংক্রমণ এড়ানো গিয়েছে। রক্ষা পেয়েছে ৩৭ হাজার থেকে ৭৮ হাজার মানুষের প্রাণ।

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ ১৭:২৯
Save
Something isn't right! Please refresh.
লোকসভায় বক্তৃতা হর্ষ বর্ধনের। সৌঃ লোকসভা টিভি

লোকসভায় বক্তৃতা হর্ষ বর্ধনের। সৌঃ লোকসভা টিভি

Popup Close

লকডাউন ‘অপরিকল্পিত’ বলে প্রথম থেকেই অভিযোগ তুলছে কংগ্রেস-সহ অন্য বিরোধীরা। প্রবল সমালোচনার মাঝে পড়েও অবশ্য অটল কেন্দ্রীয় সরকার। সোমবার সংসদে দাঁড়িয়ে লকডাউনকে ‘সাহসী সিদ্ধান্ত’ বলেই ব্যাখ্যা করলেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধন। তাঁর দাবি, লকডাউনের জন্য বিপুল সংখ্যক করোনা সংক্রমণ এবং মৃত্যু এড়ানো গিয়েছে।

সংসদের বাদল অধিবেশনের শুরুর দিনেই লকডাউন নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারকে একপ্রস্থ আক্রমণ শানিয়েছেন রাহুল গাঁধী। এ দিন লোকসভায় দাঁড়িয়ে বিরোধীদের সম্মিলিত সেই আক্রমণেরই যেন জবাব দিলেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী। বললেন, ‘‘দেশ জুড়ে লকডাউন একটি সাহসী সিদ্ধান্ত। কোভিডের আক্রমণাত্মক অগ্রগতিকে ভারত কী ভাবে ভোঁতা করে দিয়েছে, এটা তারই সাক্ষ্য।’’ সেই সঙ্গে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী দাবি করেছেন, লকডাউনের জন্য ‘‘আনুমানিক ১৪ থেকে ২৯ লক্ষ মানুষের করোনা সংক্রমণ এড়ানো গিয়েছে। ৩৭ হাজার থেকে ৭৮ হাজার মানুষের প্রাণ রক্ষা করা গিয়েছে।’’

এ দিন সংসদে হর্ষবর্ধন এই পরিসংখ্যান তুলে ধরলেও, গত পাঁচ দিন ধরে দেশে দৈনিক করোনা সংক্রমণ ৯০-এর ঘরে ঘোরাফেরা করছে। গত ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে ৯২ হাজার ৭১ জন নতুন করে কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন। তার জেরে দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা এখন ৪৮ লক্ষ ৪৬ হাজার ৪২৭ জন। গোটা বিশ্বের নিরিখে করোনা সংক্রমণের ভারত এখন দু’নম্বরে। তার ঠিক আগে অর্থাৎ প্রথম স্থানে রয়েছে আমেরিকা। সারা দেশে মৃত্যু হয়েছে ৭৯ হাজার ৭২২ জনের। বাদল অধিবেশনের প্রথম দিনই বাধ্যতামূলক পরীক্ষায় দেখা যায় ২৫ জন সাংসদ করোনা আক্রান্ত।

Advertisement

আরও পড়ুন: লোকসভার অন্তত ১৭ সাংসদের করোনা রিপোর্ট পজিটিভ, বাড়ছে উদ্বেগ

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রীর আরও দাবি করেছেন, গোটা দুনিয়ার প্রেক্ষিতে প্রতি দশ লক্ষ মানুষ পিছু করোনা সংক্রমণ এবং মৃত্যুর হার ভারতে সবচেয়ে কম। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু) যে পরিমাণ করোনা পরীক্ষা করতে বলেছে, ভারতে তার চেয়ে বেশি পরীক্ষা হচ্ছে বলেও জানিয়েছেন তিনি। দেশে যথেষ্ট পরিমাণ অক্সিজেন সিলিন্ডার মজুত রয়েছে বলেও দাবি করেছেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

আরও পড়ুন: ২৪ ঘণ্টায় দৈনিক আক্রান্ত কমলেও সংক্রমণ হার ছাড়াল ৯ শতাংশ

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement