Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৭ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

‘কর্তৃপক্ষের সাজানো ঘটনা’, এফআইআর নিয়ে বলছেন ঐশী

রবিবার যখন রক্তাক্ত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছেন ঐশী ঠিক তখনই কয়েক মিনিটের ব্যবধানে দু’টি এফআইআর দায়ের করে দিল্লি পুলিশ।

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি ০৭ জানুয়ারি ২০২০ ২০:৩৫
Save
Something isn't right! Please refresh.
পুলিশের অভিযোগ উড়িয়ে দিলেন ঐশী ঘোষ। —ফাইল চিত্র

পুলিশের অভিযোগ উড়িয়ে দিলেন ঐশী ঘোষ। —ফাইল চিত্র

Popup Close

রবিবার জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ে (জেএনইউ) হামলার পরে সোমবার হাসপাতাল থেকে বেরিয়েই সাংবাদিক বৈঠকে‌ রুখে দাঁড়ানোর বার্তা দিয়েছিলেন জেএনইউ-র ছাত্র সংসদের সভানেত্রী ঐশী ঘোষ। মঙ্গলবার মুখ খুললেন তাঁর বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া এফআইআর নিয়ে। এই এসএফআই নেত্রীর দাবি, তিনি কোনও ভাঙচুরের ঘটনায় জড়িত নন। তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকেই দায়ী করেছেন ঐশী।

রবিবার যখন রক্তাক্ত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছেন ঐশী ঠিক তখনই কয়েক মিনিটের ব্যবধানে দু’টি এফআইআর দায়ের করে দিল্লি পুলিশ। ক্যাম্পাসে হামলার আগের দিন, অর্থাৎ শনিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্ভার রুমে ভাঙচুরের অভিযোগে ঐশী-সহ বেশ কয়েক জনের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করা হয়েছে। সে ব্যাপারেই ঐশী বলছেন, ‘‘আমি কোনও হিংসার ঘটনার সঙ্গে জড়িয়ে পড়িনি। আমার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার আগে পুলিশকে প্রমাণ জোগাড় করতে হবে।’’ তাঁর অভিযোগ, ‘‘কর্তৃপক্ষই গোটা ঘটনাটা সাজিয়েছেন।’’

ভাঙচুর ও রক্ষীদের উপর হামলার অভিযোগ নিয়ে ঐশী আরও বলছেন, ‘‘সার্ভার রুমে এমন কোনও ঘটনাই ঘটেনি। আমার কাছে ভয়েস মেসেজের প্রমাণ আছে। কল রেকর্ড রয়েছে যে রক্ষীরা সার্ভার রুমে পড়ুয়াদের মারধর করেছিল। এবিভিপি সমর্থকেরা এসেছিল এবং আক্ষরিক অর্থেই সতীশকে গণপিটুনি দিয়েছিল।’’

Advertisement

রবিবার রাতে মুখে কাপড় বাঁধা এক দল যুবক হামলা চালায় বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে। ব্যাপক ভাঙচুরের পাশাপাশি মারধর করা হয় ছাত্রছাত্রীদের। ঘটনায় আহত হন ঐশী ঘোষও। এ ছাড়া মোট ৩৪ জন ওই ঘটনায় আহত হয়েছেন। রবিবারের সেই ঘটনার পরে অবশ্য মঙ্গলবার রাত পর্যন্ত কেউ গ্রেফতার হয়নি।



Something isn't right! Please refresh.

Advertisement