Advertisement
০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
Karnataka Teacher

‘তুমি মুসলিম, কসাভের মতো?’, ক্লাসে পড়ুয়াকে প্রশ্ন শিক্ষকের! পাল্টা জবাব দিলেন ছাত্র

ঘটনাটি ঘটেছে কর্নাটকের উদুপি জেলার মনিপাল ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজিতে। বরখাস্ত হওয়া শিক্ষকের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি ভরা শ্রেণিকক্ষে এক জন মুসলমান পড়ুয়ার সঙ্গে বৈষম্যমূলক আচরণ করেছেন।

ছাত্র-শিক্ষকের কথোপকথনের সেই ভিডিয়ো।

ছাত্র-শিক্ষকের কথোপকথনের সেই ভিডিয়ো। ভিডিয়ো থেকে প্রাপ্ত ছবি।

সংবাদ সংস্থা
বেঙ্গালুরু শেষ আপডেট: ২৮ নভেম্বর ২০২২ ১৯:১৫
Share: Save:

ছাত্রের নাম জানতে চেয়েছিলেন কলেজের শিক্ষক। ছাত্র নাম বলার পরেই শিক্ষক বুঝতে পারেন, তিনি ধর্মে মুসলমান। তারপরই বিদ্রুপ করে বলেন, ও তুমি মুসলমান, কসাভের মতো! শিক্ষকের টিপ্পনীর জবাবও দেন সেই ছাত্র। ছাত্র-শিক্ষকের সেই কথোপকথনের ভিডিয়ো ইতিমধ্যেই সমাজমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। আনন্দবাজার অনলাইন ওই ভিডিয়ো যাচাই করেনি। ওই শিক্ষককে বরখাস্ত করেছেন কলেজ কর্তৃপক্ষ।

Advertisement

ঘটনাটি ঘটেছে কর্নাটকের উদুপি জেলার মনিপাল ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজিতে। বরখাস্ত হওয়া শিক্ষকের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি ভরা শ্রেণিকক্ষে এক জন পড়ুয়ার সঙ্গে বৈষম্যমূলক আচরণ করেছেন। তবে শিক্ষকের এই মন্তব্য এবং তাঁর বহিষ্কারের থেকেও বড় হয়ে উঠেছে, ওই ছাত্রের প্রতিবাদী মানসিকতা।

সমাজমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ওই ভিডিয়োয় দেখা যাচ্ছে, শিক্ষকের মন্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় ওই পড়ুয়া বলছেন, “মুম্বই হামলার ঘটনা মোটেই মজার নয়। আবার এ দেশের এক জন মুসলমান হিসাবে প্রতিদিন এ ভাবে হেনস্থার শিকার হওয়াও মজার বিষয় নয়, স্যর।” ছাত্রের কাছ থেকে এমন বলিষ্ঠ প্রত্যুত্তর পাওয়ার পরেই শিক্ষক বিষয়টাকে লঘু করার চেষ্টা করেন। বলেন, ‘‘আমি তো তোমাকে নিজের ছেলের মতোই দেখি।’’

ছাত্রটি শিক্ষককে পাল্টা প্রশ্ন করে, “আপনি কি আপনার সন্তানকে এক জন সন্ত্রাসবাদীর সঙ্গে তুলনা করেন?” এই প্রশ্নের কোনও উত্তর দিতে পারেননি ওই শিক্ষক। ছাত্রের কাছে তাঁর ওই মন্তব্যের জন্য নিঃস্বার্থ ক্ষমা চান। যদিও তাতেও চাকরি বাঁচাতে পারেননি ওই শিক্ষক। কলেজ কর্তৃপক্ষের তরফে জানা হয়েছে, শিক্ষকের এমন অসংবেদনশীল মন্তব্যে পড়ুয়ার মনে গভীর ক্ষত তৈরি হয়েছে। কলেজের তরফে ওই পড়ুয়ার কাউন্সেলিংয়ের বন্দোবস্ত করা হয়েছে। প্রসঙ্গত, আজমল কসাভ মুম্বই হামলায় যুক্ত এক মাত্র সন্ত্রাসবাদী, যাকে জীবিত অবস্থায় পাওয়া গিয়েছিল। পরে তাঁকে ফাঁসি দেওয়া হয়। কসাভের নামোল্লেখ করেই মুসলমান পড়ুয়াকে নিয়ে বিদ্রুপ করেছিলেন ওই শিক্ষক।

Advertisement
(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.