Advertisement
৩০ জানুয়ারি ২০২৩
Farmers Loan

এ বার কৃষিঋণ মকুব মহারাষ্ট্রে, ৩৪০০০ কোটি টাকার দায় নিল সরকার

মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী জানান, ১.৫ লাখ পর্যন্ত প্রত্যেক কৃষকের ঋণ মকুব করা হচ্ছে। যে সব কৃষক নিয়মিত ঋণ শোধ করছেন তাঁদের সুদ-আসল বাবদ ২৫ শতাংশ কমানো হবে।

কৃষিঋণ মকুব করে দেওয়ার কথা ঘোষণা করলেন বিজেপি শাসিত মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফ়ডণবীস। ছবি: পিটিআই

কৃষিঋণ মকুব করে দেওয়ার কথা ঘোষণা করলেন বিজেপি শাসিত মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফ়ডণবীস। ছবি: পিটিআই

সংবাদ সংস্থা
শেষ আপডেট: ২৪ জুন ২০১৭ ১৯:১৫
Share: Save:

উত্তরপ্রদেশ, পঞ্জাব, কর্নাটকের পর এ বার মহারাষ্ট্র। বিপুল অঙ্কের কৃষিঋণ মকুব করে দেওয়ার কথা ঘোষণা করলেন বিজেপি শাসিত মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফ়ডণবীস। শনিবার কৃষক পিছু দেড় লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ মকুব করার কথা ঘোষণা করেন তিনি। আগামী মঙ্গলবার রাজ্য মন্ত্রিসভার বৈঠকে এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত ঘোষণা হবে।

Advertisement

এ দিন মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী জানান, ১.৫ লাখ পর্যন্ত প্রত্যেক কৃষকের ঋণ মকুব করা হচ্ছে। যে সব কৃষক নিয়মিত ঋণ শোধ করছেন তাঁদের সুদ-আসল বাবদ ২৫ শতাংশ কমানো হবে। এতে রাজ্য সরকারের কোষাগার থেকে ৩৪,০০০ কোটি টাকা খরচ হবে। ফডণবীস এ দিন বলেন, কৃষকদের ঋণ মকুবের ফলে যাতে রাজ্যে কোনও আর্থিক সঙ্কট তৈরি না হয়, সে জন্য রাজ্যের প্রত্যেক মন্ত্রী এবং বিধায়ক তাঁদের এক মাসের বেতন দান করবেন। এই ঋণ মকুবের ফলে রাজ্যের প্রায় ৮৯ লাখ কৃষক উপকৃত হবেন বলেও মন্তব্য করেন মুখ্যমন্ত্রী। মহারাষ্ট্র বিজেপি সরকারের এই ঘোষণাকে স্বাগত জানিয়েছেন শিবসেনা প্রধান উদ্ধব ঠাকরে।

আরও পড়ুন: কর্নাটকেও ঋণ মাফ, চাপ মোদীকেই

গত কয়েক বছর ধরে মহারাষ্ট্রর বিস্তীর্ণ এলাকা খরার সঙ্গে যুঝছিল। ফলন মার খাওয়ায় কৃষকেরা ঋণের জালে জড়িয়ে পড়ছিলেন। পঞ্জাব, হরিয়ানা, উত্তরপ্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ, তামিলনাড়ু, কর্নাটকের মতো মহারাষ্ট্রেও ঋণ মকুবের দাবি উঠতে শুরু করেছিল। ফডণবীসের এ দিন কৃষিঋণ মকুবের কথা ঘোষণা করে দেওয়ায় কৃষকদের মধ্যে স্বাভাবিক ভাবেই খুশির হাওয়া। পাশাপাশি, বিজেপি শাসিত মহারাষ্ট্র সরকার কৃষিঋণ মকুব করায় কেন্দ্রের নরেন্দ্র মোদী সরকারের উপর চাপ বাড়ল বলেই মত রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের। কারণ, কংগ্রেস বা অন্য বিরোধী দলগুলি যতই দাবি তুলুক, কেন্দ্র ঋণ মাফের পথে হাঁটতে রাজি নয়। এ দিন মহারাষ্ট্র সরকারের ঘোষণার পর কেন্দ্র কী পদক্ষেপ করে সে দিকেই তাকিয়ে রয়েছে রাজনৈতিক মহল।

Advertisement
(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.