Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৩ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

প্রধানমন্ত্রীর ‘মন কি বাত’-এ ডিসলাইক পড়ল প্রায় ৬ গুণ, নিট-জি প্রসঙ্গে ক্ষোভ প্রকাশ নেটাগরিকদের

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি ৩১ অগস্ট ২০২০ ১৬:৪৬
ইউটিউব থেকে নেওয়া ছবি।

ইউটিউব থেকে নেওয়া ছবি।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর মাসিক রেডিও অনুষ্ঠান ‘মন কি বাত’ এবার নতুন রেকর্ড গড়ল। তবে তা তা মোটেই সুখকর নয়, বরং বিজেপির ক্ষেত্রে বেশ অস্বস্তিকর। সম্প্রতি বিজেপির ভেরিফায়েড ইউটিউব চ্যানেলে প্রধানমন্ত্রীর ‘মন কি বাত’ অনুষ্ঠানটি সম্প্রচার করা হয়। আর তাতে লাইকের থেকে ডিসলাইকের সংখ্যা অনেক বেশি। সেই সঙ্গে বিরূপ মন্তব্যের সংখ্যাও যথেষ্ট কমেন্ট সেকশনে। যা স্বাভাবিক ভাবেই আবার অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়াতেও চর্চার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে।

বিজেপির ইউটিউব চ্যানেলে সাবসক্রাইবারের সংখ্যা ৩০ লাখের উপর। সেই ভেরিফায়েড চ্যানেলেই ৩০ অগস্ট এবারের 'মন কি বাত' আপলোড হয়। প্রতিবারের মতো এবারও 'মন কি বাত'-এ প্রধানমন্ত্রী দেশের বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে বক্তব্য রাখেন। দেশের আত্মনির্ভরতা প্রসঙ্গে একাধিক বিষয়ের উল্লেখ করেন। সেখানে দেশি কুকুর, বাচ্চাদের খেলনার মতো প্রসঙ্গও আসে। এমনকি কৃষি পরিকাঠামো পোক্ত করার প্রয়োজনীয়তার কথাও বলেন। যদিও সেই পরিকাঠামো নির্মাণে বিপুল বিনিয়োগ কোথা থেকে আসবে, সে প্রসঙ্গে কিছু উল্লেখ করেননি প্রধানমন্ত্রী।

এমন নানান বিষয় নিয়ে আলোচনা করলেনও নিট, জি-র পিছিয়ে দেওয়ার বিষয়ে কিছু উল্লেখ করেননি প্রধানমন্ত্রী। যা নিয়ে পড়ুয়াদের একটি বড় অংশ ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তাঁরা ইউটিউবে ভিডিয়োটি ডিসলাইক করার পাশাপাশি কমেন্টে তাঁদের মনের কথা বুঝিয়ে দিয়েছেন। পড়ুয়াদের দাবি, এই পরিস্থিতিতে প্রবেশীকা পরীক্ষা না নিয়ে, পিছিয়ে দেওয়া হোক। কিন্তু কেন্দ্রীয় সরকার উল্টোটাই চাইছে। ফলে ক্ষোভ তৈরি হচ্ছে পডু়য়াদের মধ্যে। তারই প্রতিফলন দেখা গেল ইউটিউবে।

Advertisement

আরও পড়ুন: আশা ভোঁসলের গানে রাস্তায় দুই বৃদ্ধার প্রাণ খোলা নাচ

আরও পড়ুন: প্রতিবেশীদের জন্য পাঁচিলে লেখা ওয়াইফাইয়ের পাসওয়ার্ড

ভিডিয়োটি ২৪ ঘণ্টার কিছু বেশি সময়ে ভিউ পেয়েছে প্রায় ২২ লাখ ২০ হাজার, লাইক পেয়েছে প্রায় ৮৫ হাজার। কিন্তু সেই জায়গায় ডিসলাইক পেয়েছে প্রায় পাঁচ লাখ ৬৭ হাজার। আর এই সময়ের মধ্যে কমেন্ট এসেছে প্রায় ৯৮ হাজার, যার সিংহভাগই বিরূপ মন্তব্যে ভরা। লাইক এবং ডিসলাইকের সংখ্যা এখনও পাল্লা দিয়ে বেড়েই চলেছে।

দেখুন সেই ভিডিয়ো:

শুধু যে ইউটিউবেই এই ছবি তা নয়, টুইটার-ফেসবুকের মতো জায়গায়তেও এটি চর্চার বিষয় হয়ে গিয়েছে।

দেখুন সেই পোস্ট:








আরও পড়ুন

Advertisement