×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২১ জুন ২০২১ ই-পেপার

চিনের সঙ্গে সংঘাতের মধ্যেই নিয়ন্ত্রণরেখায় সেনা সমাবেশ করছে পাকিস্তান

সাবির ইবন ইউসুফ
শ্রীনগর ২৮ জুন ২০২০ ০১:৩৯
প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

চিনের সঙ্গে সংঘাতের মধ্যেই পাকিস্তান নিয়ন্ত্রণরেখায় সেনা সমাবেশ করছে বলে জানাল ভারতীয় সেনা। পাকিস্তান কোনও অভিযানে নামলে উপযুক্ত জবাব দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন ১৫ নম্বর কোরের কমান্ডার লেফটেন্যান্ট জেনারেল পি রাজু।

লেফটেন্যান্ট জেনারেল রাজুর বক্তব্য, ‘‘লাদাখ পরিস্থিতির কোনও প্রভাব এখনও কাশ্মীরে পড়েনি। ১৪ নম্বর কোর সেখানকার পরিস্থিতি সামলাচ্ছে। অতিরিক্ত বাহিনী কাশ্মীর হয়ে লাদাখ গিয়েছে। কারণ সেটাই লাদাখ যাওয়ার স্বাভাবিক পথ। তবে পাকিস্তানও সেনা সমাবেশ করছে।’’ তাঁর কথায়, ‘‘পাকিস্তান সম্প্রতি জানিয়েছিল তারা ভারতের তরফে আক্রমণের আশঙ্কা করছে। হয়তো তারা নিজেদের সুরক্ষার জন্যই সেনা সমাবেশ করেছে। আমরা সতর্ক আছি।’’ পাক সংঘর্ষবিরতি ভঙ্গ নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে ১৫ নম্বর কোরের কমান্ডার বলেন, ‘‘জঙ্গি অনুপ্রবেশ ঘটাতেই সংঘর্ষবিরতি ভঙ্গ করে পাকিস্তান। তবে গত বছরের চেয়ে সংঘর্ষবিরতি ভঙ্গের ঘটনা কম। এর সঙ্গে লাদাখ পরিস্থিতির কোনও সম্পর্ক নেই।’’ জম্মু-কাশ্মীরে সংযুক্ত কমান্ডের বৈঠকে সেনার তরফে নিয়ন্ত্রণরেখার কাছাকাছি এলাকায় দ্রুত বাঙ্কার তৈরির উপরে জোর দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

চলতি বছরের অমরনাথ যাত্রা নিয়ে এখনও কোনও স্পষ্ট নির্দেশিকা জারি হয়নি বলে জানিয়েছেন রাজু। তাঁর কথায়, ‘‘সংযুক্ত কমান্ডের বৈঠকে উপরাজ্যপালই জানিয়েছেন এ নিয়ে কোনও স্পষ্ট নির্দেশিকা নেই।’’ উপত্যকায় প্রযুক্তিগত নজরদারি ও চরেদের মাধ্যমে পাওয়া সূত্রের ভিত্তিতে জঙ্গি-দমন অভিযান চালানো হচ্ছে বলে জানিয়েছেন রাজু। তাঁর বক্তব্য, ‘‘স্থানীয় যুবকদের জঙ্গি দলে যোগ দেওয়া রুখতে সব ধরনের চেষ্টা করছি আমরা। জঙ্গি-দমন অভিযানের সময়ে তাদের আত্মসমর্পণ করারও সুযোগ দেওয়া হচ্ছে।’’

Advertisement

আরও পড়ুন: আহমেদের বাড়িতে ইডি

এ দিনই জম্মু-কাশ্মীর পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, দক্ষিণ কাশ্মীরের কোকেরনাগ, ত্রাল ও খ্রু-তে ২৯ জন বিদেশি জঙ্গি সক্রিয় রয়েছে। জম্মু-কাশ্মীর পুলিশের ডিজি দিলবাগ সিংহের বক্তব্য, ‘‘বিদেশি জঙ্গিরা অনেক বেশি প্রশিক্ষিত। তবে আমাদের বাহিনী সব ধরনের চ্যালেঞ্জের মোকাবিলা করতে সক্ষম।’’ দিলবাগ জানিয়েছেন, দক্ষিণ কাশ্মীরে জঙ্গির সংখ্যা এখনও উত্তর কাশ্মীরের চেয়ে বেশি। তবে উত্তর কাশ্মীরেও জঙ্গি-দমন অভিযান শুরু হয়েছে।

Advertisement