Advertisement
২২ জুন ২০২৪
Shiv Sena

বেকারত্বের জন্যও কি নেহরু-গাঁধী পরিবারকে দুষবেন মোদী? কটাক্ষ শিবসেনার

নয়া সরকার গঠনের পর এক সপ্তাহও কাটেনি, তার মধ্যেই ফের নরেন্দ্র মোদী সরকারকে তীব্র আক্রমণ করল শিবসেনা।

ভোট মিটতেই ফের বিজেপিকে আক্রমণ শিবনেসার। —ফাইল চিত্র।

ভোট মিটতেই ফের বিজেপিকে আক্রমণ শিবনেসার। —ফাইল চিত্র।

সংবাদ সংস্থা
নয়াদিল্লি শেষ আপডেট: ০৩ জুন ২০১৯ ২০:০৫
Share: Save:

প্রধানমন্ত্রী পদে নরেন্দ্র মোদী দ্বিতীয় বার শপথ নেওয়ার পরই রেকর্ড বেকারত্বের কথা মেনে নিয়েছে কেন্দ্রীয় পরিসংখ্যান মন্ত্রক। তা নিয়ে এ বার কেন্দ্রীয় সরকারকে তীব্র আক্রমণ করল এনডিএ-রই শরিক শিবসেনা। তাদের কথায়, বাগাড়ম্বর চালিয়ে আর দেওয়াল জোড়া বিজ্ঞাপন দিয়ে দেশবাসীর জন্য কর্মসংস্থান করা সম্ভব নয়।

এর আগে, প্রথম দফাতেও নরেন্দ্র মোদী সরকারের সমালোচনায় একাধিক বার সরব হয়েছে শিবসেনা। নোটবন্দি, রাফাল কেলেঙ্কারি, রামমন্দির নির্মাণ-সহ নানা ইস্যুতে তীব্র আক্রমণ করেছে। এমনকি, জোট ছেড়ে বেরিয়ে যাওয়ার হুমকিও দিয়েছে। তা সত্ত্বেও এ বছর লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ সরকারে শামিল হয় শিবসেনা।

তবে নয়া সরকার গঠনের পর এক সপ্তাহও কাটেনি, তার মধ্যেই ফের নরেন্দ্র মোদী সরকারকে তীব্র আক্রমণ করল তারা। সোমবার দলের মুখপত্র ‘সামনা’য় বলা হয়,‘দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা ক্রমশ খারাপ দিকে এগোচ্ছে।ন্যাশনাল স্যাম্পল সার্ভে অফিস (এনএসএসও)-এর সমীক্ষায় জানা গিয়েছে, গত ৪৫ বছরে দেশে বেকারত্বের হার সর্বোচ্চে গিয়ে ঠেকেছে। ২০১৭-’১৮অর্থবর্ষেই বেকারত্বের হার বেড়েছে ৬.১ শতাংশ। শুধু গলাবাজি করে আর বিজ্ঞাপন ছাপিয়ে এই ক্রমবর্ধমান বেকারত্বের হার চাপা দেওয়া যাবে না। অবিলম্বে এই পরিস্থিতি কাটিয়ে বেরিয়ে আসার সমাধান খুঁজে বার করতে হবে নয়া অর্থমন্ত্রীকে।’

আরও পড়ুন: ‘ইভিএম হঠাও, ব্যালট ফেরাও’, দলকে জাগাতে নতুন আহ্বান মমতার​

এ বছর নির্বাচনী প্রচারে বার বার কংগ্রেসকে আক্রমণ করেছেন নরেন্দ্র মোদী। তাদের আক্রমণ করতে গিয়ে একাধিক বার টেনে এনেছেন গাঁধী পরিবারকে। শুধু তাই নয়, বেকারত্ব নিয়ে সমালোচনার মুখে পড়ে সম্প্রতি পূর্বতন ইউপিএ সরকারের ঘাড়েই যাবতীয় দায় চাপিয়ে দিতে দেখা যায় কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নিতিন গডকরীকে। তা নিয়েও এ দিন মোদী সরকাকে কটাক্ষ করা হয় ‘সামনা’-তে। বলা হয়, ‘বেকারত্ব সৃষ্টির জন্য বিজেপি না হয় দায়ী নয়, কিন্তু বছরে দু’কোটি কর্মসংস্থানের প্রতিশ্রুতি তো তারাই দিয়েছিল, যা পূরণে ব্যর্থ হয়েছে মোদী সরকার। সেই ব্যর্থতার দায় নেহরু-গাঁধী পরিবারের উপর চাপিয়ে দেওয়া উচিত নয়। কারণ মোদী সরকার ক্ষমতায় আসার পরই কর্মসংস্থানের হার ক্রমশ তলানিতে এসে ঠেকেছে।’

আরও পড়ুন: রদবদলের মুখে রাজ্য বিজেপি, দেবশ্রী-লকেটকে অব্যাহতির সম্ভাবনা, উত্তরসূরি নিয়ে জল্পনা​

সম্প্রতি ভারতকে দেওয়া বিশেষ বাণিজ্যিক সুযোগসুবিধা বাতিল করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ৫ জুন থেকে ভারতীয় পণ্যের উপর শুল্ক বসানোর কথা ঘোষণা করেছেন তিনি। অথচ নির্বাচনী প্রচারে চিনে বিনিয়োগকারী ৩০০ মার্কিন সংস্থা ভারতে চলে আসবে বলে মানুষকে বিভ্রান্ত করা হয়েছিল বলেও অভিযোগ তোলে শিবসেনা। যে মুম্বই-আমদাবাদ বুলেট ট্রেন প্রকল্প এবং রাফাল চুক্তি নিয়ে মোদী সরকার গলাবাজি করছে, তাতেও যথেষ্ট কর্মসংস্থান হওয়া সম্ভব নয় বলে দাবি করেছে তারা।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE