Advertisement
২১ জুলাই ২০২৪
Dharmendra Pradhan

দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ে ধর্মেন্দ্র প্রধানকে কালো পতাকা! অনুষ্ঠান বাতিল, নিট-নেট নিয়ে বিড়ম্বনায় শিক্ষামন্ত্রী

নিট পরীক্ষায় দুর্নীতি এবং ইউজিসি নেট বাতিলের বিরুদ্ধে দিকে দিকে বিক্ষোভের মুখে পড়ছেন কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান। শুক্রবার তাঁর বাসভবনের সামনেও বিক্ষোভ দেখিয়েছে যুব কংগ্রেস।

বিক্ষোভের মুখে কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান।

বিক্ষোভের মুখে কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান। —ফাইল চিত্র।

আনন্দবাজার অনলাইন ডেস্ক
কলকাতা শেষ আপডেট: ২১ জুন ২০২৪ ১১:২৪
Share: Save:

ডাক্তারির প্রবেশিকা পরীক্ষা নিটে দুর্নীতির অভিযোগ এবং বিভিন্ন বিষয়ে গবেষণার প্রবেশিকা পরীক্ষা নেট বাতিল করে দেওয়ার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ আন্দোলন চলছে দেশ জুড়ে। বার বার বিক্ষোভের মুখে পড়ছেন কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান। বিক্ষোভ দেখাতে পথে নেমেছেন ছাত্রছাত্রীরাও। এই বিক্ষোভের জেরেই শুক্রবার দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুষ্ঠান বাতিল করতে বাধ্য হলেন শিক্ষামন্ত্রী। তিনি সেখানে গিয়েছিলেন। কিন্তু তাঁকে কালো পতাকা দেখানো হয়। তার পর অনুষ্ঠান বাতিল করে বেরিয়ে যান ধর্মেন্দ্র। ঘরে এবং বাইরে বিড়ম্বনায় পড়েছেন তিনি। কারণ, তাঁর নয়াদিল্লির বাসভবনের সামনেও শুক্রবার সকাল থেকে বিক্ষোভ দেখাচ্ছে যুব কংগ্রেস। দাবি, নিট পরীক্ষা বাতিল করে লক্ষ লক্ষ ছাত্রছাত্রীর সুবিচার সুনিশ্চিত করতে হবে।

নিট এবং নেট নিয়ে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সাংবাদিক বৈঠক করেছিলেন ধর্মেন্দ্র। সেখানে এই পরিস্থিতির জন্য নিজেই দায় স্বীকার করেছেন তিনি। জানিয়েছেন, সরকারের অগ্রাধিকার ছাত্রছাত্রীদের ভবিষ্যৎ। তার সঙ্গে কোনও ভাবেই আপস করা হবে না। যে বা যাঁরা দোষী, তাঁদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ করা হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী। তিনি আরও জানিয়েছেন, নিট এবং নেট পরীক্ষার আয়োজন সংস্থা এনটিএ-র (জাতীয় টেস্টিং এজেন্সি) কাঠামোগত এবং প্রক্রিয়াগত সংশোধন করা হবে। তার জন্য উচ্চ পর্যায়ের একটি কমিটিও গঠন করবে কেন্দ্রীয় সরকার। কমিটির সুপারিশ অনুযায়ী এনটিএ-র শোধন করা হবে। নেট বাতিলকে ‘প্রতিষ্ঠানগত ব্যর্থতা’ বলে উল্লেখ করেন শিক্ষামন্ত্রী।

কিন্তু শিক্ষামন্ত্রীর আশ্বাসে ‘চিড়ে ভেজেনি’। প্রতিবাদ কর্মসূচি চলছে শুক্রবারও। দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়ারা বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন। শুক্রবার বিশ্ব যোগ দিবস উপলক্ষে ওই বিশ্ববিদ্যালয়ে একটি অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার কথা ছিল ধর্মেন্দ্রের। সকালেই তিনি সেখানে পৌঁছে গিয়েছিলেন। তাঁর উপস্থিতিতেই পড়ুয়ারা বিক্ষোভ দেখান। অভিযোগ, কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রীকে কালো পতাকা দেখানো হয়। নিট এবং নেটে দুর্নীতি নিয়ে স্লোগানও দেওয়া হয়। অনুষ্ঠান বাতিল করে দেন তিনি।

শিক্ষামন্ত্রীর বাড়ির সামনে বিক্ষোভরত যুব কংগ্রেসের প্রেসিডেন্ট শ্রীনিবাস বিভি বলেন, ‘‘ধর্মেন্দ্র প্রধানের অবিলম্বে পদত্যাগ করা উচিত। শুধু তা-ই নয়, তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদও করা উচিত। এই দেশে দুর্নীতি ছাড়া কোনও পরীক্ষাই হয় না। সমাজমাধ্যমে ছাত্রছাত্রীরা ক্ষোভ উগরে দিচ্ছেন।’’ নিট এবং নেটের মতো পরীক্ষায় দুর্নীতি এবং প্রশ্নফাঁসের বিষয়টিতে সুপ্রিম কোর্টের তত্ত্বাবধানে তদন্তের দাবি জানিয়েছে যুব কংগ্রেস।

উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার দেশ জুড়ে ইউজিসি নেট পরীক্ষা হয়। কয়েক লক্ষ পরীক্ষার্থী তাতে অংশ নিয়েছিলেন। কিন্তু বুধবার রাতে সরকার জানিয়ে দেয়, পরীক্ষাটি বাতিল করা হচ্ছে। পরীক্ষার স্বচ্ছতা সংক্রান্ত গোলমাল ধরা পড়ায় এই সিদ্ধান্ত। দেশ জুড়ে সরকারের এই সিদ্ধান্তে আলোড়ন পড়ে গিয়েছে। বিরক্ত ছাত্রছাত্রীরাও। পরবর্তী পরীক্ষার দিন জানানো হবে বলে জানিয়েছে সরকার। একই ভাবে নিটের ফলপ্রকাশের পর তাতে দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। ৬৭ জন ওই পরীক্ষায় ১০০ শতাংশ নম্বর পেয়ে প্রথম হয়েছেন। তাঁদের মধ্যে অনেকে একই পরীক্ষাকেন্দ্রের। বিহারে প্রশ্নফাঁসের অভিযোগে ধরপাকড়ও শুরু হয়েছে। যদিও কাউন্সেলিংয়ে এখনই স্থগিতাদেশ দেয়নি সুপ্রিম কোর্ট।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE