×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১৯ এপ্রিল ২০২১ ই-পেপার

‘বেটি বচাও’ কি আগাম সতর্কতা ছিল? দুই দলিত তরুণীর মৃত্যুতে প্রশ্ন কংগ্রেসের

সংবাদসংস্থা
নয়াদিল্লি ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ১৮:৩৩


প্রতীকী চিত্র

আদরের ‘বেটি’কে বাঁচানো মুশকিল হবে বুঝেই কি ‘বেটি বচাও’ স্লোগান দিয়েছিল বিজেপি সরকার? জানতে চাইল কংগ্রেস। উত্তরপ্রদেশে যোগী আদিত্যনাথ সরকারের আমলে নারী নিরাপত্তার অবনতি নিয়ে বিজেপির দেওয়া স্লোগানেই তাদের কটাক্ষ করল কংগ্রেস। দলের নেত্রী অলকা লাম্বা যোগী সরকারের কাছে জানতে চাইলেন, ‘বেটি বচাও বেটি পড়াও’ বলে কি তবে আগাম রাজ্যের মেয়েদের সতর্ক করতে চেয়েছিল উত্তরপ্রদেশের বিজেপি সরকার?

বৃহস্পতিবার উত্তরপ্রদেশের উন্নাওয়ে দুই দলিত তরুণীর দেহ উদ্ধারের ঘটনার প্রসঙ্গ টেনেই বিজেপি সরকারের কাছে এই প্রশ্ন রাখেন লাম্বা। গত কয়েক বছরে যোগীর জমানায় মেয়েদের বিরুদ্ধে হওয়া অপরাধের ঘটনা যে ভাবে উত্তরপ্রদেশে উত্তরোত্তর বেড়েছে, তার পরিসংখ্যান তুলে ধরে লাম্বা কটাক্ষও করেন উত্তরপ্রদেশ সরকারকে।

দিল্লিতে সর্বভারতীয় কংগ্রেসের একটি সাংবাদিক বৈঠকে হাজির ছিলেন অলকা। সেখানেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর একটি ভিডিয়ো প্রদর্শন করেন তিনি। ২০১৭ সালের ওই ভিডিয়োতে প্রধানমন্ত্রীকে দেখা যাচ্ছে দেশের মেয়েদের শিক্ষার বার্তা দিতে। একই সঙ্গে উত্তরপ্রদেশের তৎকালীন সমাজবাদী পার্টির সরকারের ভূমিকা নিয়েও ওই বক্তৃতায় প্রশ্ন তুলেছিলেন তিনি। উত্তরপ্রদেশে মেয়েদের বিরুদ্ধে একের পর এক অপরাধমূলক ঘটনা ঘটছে বলে মন্তব্য করে মোদী প্রশ্ন করেছিলেন সমাজবাদী পার্টির সরকার কেন এসব দেখেও কোনও পদক্ষেপ করছে না? মোদীর সেই মন্তব্য উদ্ধৃত করেই লাম্বা জানতে চান, ‘‘এখন কেন চুপ করে আছেন প্রধানমন্ত্রী? যোগীর রাজ্যে হওয়া মহিলাদের বিরুদ্ধে অপরাধের ঘটনা কি তাঁর চোখে পড়ছে না? হাথরসের পর উন্নাও, গোরক্ষপুরে একের পর এক নৃশংস ঘটনা ঘটেছে মেয়েদের উপর অত্যাচারের ঘটনা বেড়েই চলেছে উত্তরপ্রদেশে। সাম্প্রতিকতম ঘটনা উন্নাওয়ের দুই দলিত তরুণীর মৃত্যু।’’

Advertisement

লাম্বা এব্যাপারে যোগী সরকার ও মোদীকে কটাক্ষ করে বলেন, ‘‘যা বুঝলাম মেয়েদের শিক্ষিত করার লক্ষ্যে বিজেপির স্লোগান ‘বেটি বচাও বেটি পড়াও’ আসলে দেশবাসীর উদ্দেশ পরামর্শ নয়, বরং বিজেপি জমানায় মেয়েদের দুরবস্থারই আগাম সতর্কতা ছিল।’’

লাম্বা এব্যাপারে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরাণির প্রসঙ্গও টেনে আনেন। বলেন, তিনি উত্তরপ্রদেশের সাংসদ। তার উপর মহিলা ও শিশুকল্যাণ মন্ত্রী। উত্তরপ্রদেশের সরকারের কাছে তো জোড়া ইঞ্জিন রয়েছে। এক, কেন্দ্রে ক্ষমতায় থাকা শাসক দলের সরকার এবং তার উপর মহিলা শিশুকল্যাণের কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। তারপরও উত্তরপ্রদেশের মেয়েদের এই দুরবস্থা কেন হবে? কেন এরাজ্যের মেয়েরা নিরাপত্তা আর বিচার পাবে না জানতে চান লাম্বা।

উন্নাওয়ের দুই দলিত তরুণীর দেহ উদ্ধারের ঘটনার জের টেনে তিনি জানতে চান, যে মেয়েটি গুরুতর জখম এবং এখনও বেঁচে রয়েছে, তাঁকে কেন চিকিৎসার জন্য দিল্লির এইমসে নিয়ে আসা হল না? তাকে প্রশ্ন করে তো দোষীদের কথা জানতে পারতেন তদন্তকারীরা।

Advertisement