Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৬ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

Petrol-Diesel: তেলের দাম কমানো দীপাবলির উপহার, না রাজনীতির চাল? জানুন শুল্ক হ্রাসের তিন কারণ

২০২০ সালের মে মাস থেকে লিটার প্রতি পেট্রলের দাম বেড়েছে ৩৮ টাকা ৮৫ পয়সা এবং লিটার প্রতি ডিজেলের দাম বেড়েছে ২৯ টাকা ৩৫ পয়সা।

নিজস্ব প্রতিবেদন
কলকাতা ০৪ নভেম্বর ২০২১ ১৮:৪০
তেলের উৎপাদন শুল্ক প্রত্যাহারের কারণে কমল দাম।

তেলের উৎপাদন শুল্ক প্রত্যাহারের কারণে কমল দাম।
ফাইল ছবি।

উৎপাদন শুল্কে ছাড়। উৎসবের মরসুমে রাতারাতি কমে গেল পেট্রল-ডিজেলের দাম। কেন্দ্রীয় সরকার প্রতি লিটার পেট্রলে ৫ টাকা এবং ডিজেলে লিটারে ১০ টাকা উৎপাদন শুল্ক প্রত্যাহার করেছে। তার জেরেই কমেছে দাম। ২০২০ সালের মে মাস থেকে লিটার প্রতি পেট্রলের দাম বেড়েছে ৩৮ টাকা ৮৫ পয়সা এবং ডিজেলের দাম বেড়েছে ২৯ টাকা ৩৫ পয়সা।

শুল্ক প্রত্যাহারের ফলে সরকারের কোষাগারে বাড়তি ৫৫ হাজার কোটি টাকার বোঝা চাপবে। কেন্দ্রের তরফে বলা হচ্ছে, দেশবাসীকে দীপাবলির উপহার। কিন্তু বিরোধীরা তা মানতে নারাজ। তাঁদের পাল্টা দাবি, ভয়ের চোটে তেলের দম কমাতে বাধ্য হয়েছে মোদী সরকার। সত্যিই কি দীপাবলির উপহার, না কি ভোটের ভয়েই শুল্ক হ্রাস? উৎপাদন শুল্ক হ্রাসের কারণ অনুসন্ধান করতে গিয়ে উঠে আসছে মূল তিনটি কারণ।

Advertisement

প্রথমত, লকডাউনের প্রভাব কাটিয়ে সরকারের রাজস্ব সংগ্রহ ফের স্বাভাবিক হওয়ার পথে। অর্থনীতিবিদদের আশা, বাজেটে রাজস্ব সংগ্রহের যা লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল, তা ছাপিয়ে আরও অতিরিক্ত দু’লক্ষ কোটি টাকা উঠতে পারে। শেষ পরিসংখ্যান অনুযায়ী, এ বছরের এপ্রিল থেকে সেপ্টেম্বরের মধ্যেই লক্ষ্যমাত্রা ১৫.৪৫ লক্ষ কোটি টাকার ৬০ শতাংশ রাজস্ব উঠে গিয়েছে।

দ্বিতীয়ত, তেলের দামে বিপুল বৃদ্ধির জেরে দেশে মুদ্রাস্ফিতি লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছিল। যার সবচেয়ে বেশি প্রভাব পড়ছিল মধ্যবিত্ত ও নিম্নবিত্তদের মধ্যে। বাজারে সব জিনিসের ব্যাপক দাম বৃদ্ধি সাধারণ মানুষের ক্ষোভের কারণ হচ্ছিল। সবচেয়ে বড় কথা, এর ফলে প্রভাব পড়ছিল দেশের সামগ্রিক বৃদ্ধিতে। উৎপাদন শুল্ক কমিয়ে আসলে সেই শ্রেণিকে সুরাহা দেওয়ার পাশাপাশি অর্থনীতিতেও খানিক অক্সিজেনের সঞ্চার করতে চাইল কেন্দ্রীয় সরকার। পাশাপাশি আন্তর্জাতিক বাজারে বুধবার অপরিশোধিত তেলের দাম কমেছে। ফলে দেশের বাজারেও তেলের দাম কমানোর পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে।

তৃতীয়ত, আসছে রবি শস্যের মরসুম। এই পরিস্থিতিতে ডিজেলের দাম না কমালে তার সরাসরি প্রভাব পড়বে দেশের কৃষি উৎপাদনে। যা তিন কৃষি আইন প্রত্যাহারের দাবিতে দেশের বিভিন্ন অংশে কৃষক আন্দোলনকে আরও উসকে দিতে পারে। তাই রবি চাষের সময় শুরুর ঠিক আগে ডিজেলের উপর থেকে উৎপাদন শুল্ক প্রত্যাহার করল কেন্দ্রীয় সরকার, এমনটাই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, মূলত এই তিন কারণের জেরেই রাতারাতি দাম কমানোর সিদ্ধান্ত নিল মোদী সরকার। যদিও রাজনীতির কারবারিরা বলছেন, ভোট বড় বালাই। আগামী বছরের গোড়াতেই যে উত্তরপ্রদেশ-সহ পাঁচ রাজ্যের নির্বাচন!

আরও পড়ুন

Advertisement