• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

ঢাকায় আস্থানা, শুরু সীমান্ত বৈঠক

Rakesh Asthana
বাংলাদেশের সীমান্তরক্ষীদের হাতে সৌহার্দ্যের প্রতীক মিষ্টির ঝুড়ি তুলে দিচ্ছেন বিএসএফ-এর ডিজি রাকেশ আস্থানা। বুধবার আখাউড়া সীমান্তে। ছবি: বাপী রায়চৌধুরী

ওড়ার ঠিক আগে বাহিনীর নিজস্ব বিমানটিতে কারিগরি ত্রুটি ধরা পড়ায় রবিবার দিল্লি থেকে ঢাকায় যেতেই পারেননি বিএসএফ-এর নতুন ডিজি রাকেশ আস্থানা। সঙ্গে উচ্চ পর্যায়ের একটি প্রতিনিধি দলও ছিল। সে দিন দুপুর থেকে বাংলাদেশের সীমান্তরক্ষীদের সঙ্গে ডিজি পর্যায়ের বৈঠকটি তাই স্থগিত করে দিতে হয়েছিল। অবশেষে আগরতলা-আখাউড়া সীমান্ত চেকপোস্ট দিয়ে বুধবার সকালে ঢাকায় গিয়েছেন বিএসএফ-এর ডিজি। বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)-র সঙ্গে বৈঠকটি কাল শুরু হয়ে চলবে শনিবার পর্যন্ত। 

আগরতলা-আখাউড়া চেকপোষ্ট দিয়ে রবিবার সকালে বাংলাদেশে যান বিএসএফ-র ডিজি আস্থানা ও প্রতিনিধি দলের আরও তিন সদস্য। সীমান্তের জিরো পয়েন্টে তাঁদের ফুল দিয়ে অভ্যর্থনা জানান বিজিবি-র উত্তর-পূর্ব অঞ্চল সরাইল বিভাগের আঞ্চলিক অধিনায়ক ব্রিগেডিয়ার জাকির হোসেন। দুপুরেই ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সুলতানপুর থেকে হেলিকপ্টারে ঢাকা রওনা হয় বিএসএফের দলটি। সেখানে পিলখানায় নিজেদের সদর দফতরে বিজিবি-র ডিজি মেজর জেনারেল মোহম্মদ সাফিনুল ইসলামের নেতৃত্বে ১৩ জনের একটি দলের সঙ্গে আলোচনা হবে আস্থানাদের। ভারতীয় দলে স্বরাষ্ট্র ও বিদেশ মন্ত্রকের দুই কর্তা রয়েছেন। বিজিবি-র ডিজির নেতৃত্বে বাংলাদেশের প্রতিনিধি দলে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক, বিদেশ মন্ত্রক, যৌথ নদী কমিশন এবং ভূমি রেকর্ড ও জরিপ বিভাগের কর্মকর্তারা রয়েছেন।

বৈঠকে সীমান্তে হত্যাকাণ্ড সম্পূর্ণ বন্ধ করার বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে তুলবে বাংলাদেশ। এ বছর অগস্ট পর্যন্ত বিএসএফ-এর গুলিতে ৪৪ জন বাংলাদেশি প্রাণ হারিয়েছেন। অন্য দিকে মাদক, গরু, জাল নোট, সোনা ও অস্ত্র চোরাচালান রুখতে যৌথ টহলদারি আরও জোরদার করার বিষয়ে বেশ কিছু প্রস্তাব বাংলাদেশের কাছে উত্থাপন করবেন ভারতীয় প্রতিনিধিরা। আলোচনা ফলপ্রসূ হলে শনিবার দু’পক্ষের মধ্যে একটি বোঝাপড়া চুক্তি স্বাক্ষর হতে পারে। 

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন