বিভিন্ন সময়ে নেতা মন্ত্রীদের হাতে সাংবাদিকদের হেনস্থা হওয়ার ঘটনা নতুন কিছু নয়। তা বলে স্টুডিয়োতে একেবারে লাইভ অনুষ্ঠানের মধ্যে সাংবাদিকের নিগৃহীত হওয়ার ঘটনার উদাহরণ তেমন একটা নেই! পাকিস্তানের এক খবরের চ্যানেলের একটি অনুষ্ঠানের সৌজন্যে এই দৃশ্যেরই সাক্ষী থাকল নেট দুনিয়া। অনুষ্ঠানে কথা চলতে চলতেই তেহরিক-ই-ইনসাফ পার্টির নেতা মাসুর আলি সিয়াল মারতে শুরু করেন সাংবাদিক ইমতিয়াজ খান ফাহরানকে। সেই ভিডিয়ো নেট দুনিয়ায় ছড়িয়ে পড়তেই নিন্দার ঝড় উঠল বিভিন্ন মহলে।

গত সোমবার সন্ধ্যায় পাকিস্তানের এক খবরের চ্যানেলে বসেছিল বিতর্কসভা। বিতর্কে অংশ নিয়েছিলেন সে দেশের শাসক দল তেহরিক-ই-ইনসাফের নেতা মাসুর আলি সিয়াল। এ ছাড়াও বিশিষ্ট সাংবাদিক ও করাচি প্রেস ক্লাবের সেক্রেটারি ইমতিয়াজ খান ফারহানও উপস্থিত ছিলেন সেখানে। কোনও বিষয় নিয়ে উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় চলতে চলতেই হঠাৎ মাসুর মারতে শুরু করেন ইমতিয়াজকে। ধাক্কা দিয়ে ইমতিয়াজকে স্টুডিয়োর মাটিতে ফেলে এলোপাথারি কিল, চড় মারতে থাকেন ইমরান খানের দলের ওই নেতা।

ভাইরাল হওয়া সেই ভিডিয়োতে দেখা যাচ্ছে, ইমতিয়াজ ও মাসুরের হাতাহাতির সময় উঠে যান প্যানেলে থাকা আরও দু’জন। বন্ধ হয়ে যায় শো। তাঁদের নিরস্ত করেন স্টুডিয়োতে থাকা অন্য কর্মীরা। হাতাহাতির শেষে ফের তারা এসে বসলেন শোয়ে। এবং ফের শুরু হল অনুষ্ঠান!

আরও পড়ুন: সেলিব্রিটিদের বাহুমূলের ব্যাক্টেরিয়া দিয়ে তৈরি হচ্ছে ‘হিউম্যান চিজ’!

এই ঘটনার ভিডিয়ো নেট দুনিয়ায় ছড়িয়ে পড়তেই বিতর্ক দানা বেঁধেছে। পাকিস্তানের ওই নেতার শাস্তির দাবিতে মুখর হয়েছেন নেটিজেনদের একাংশ। নিজের দলের নেতার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সোশ্যাল মিডিয়ায় পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকেও অনুরোধ করেছেন অনেকে। 

আরও পড়ুন: নষ্ট হয়ে যাওয়া টেনিস বল রাখা ব্রোঞ্জের পাত্র নিলামে বিক্রি হল ৩৪ কোটি টাকায়!