Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৪ অক্টোবর ২০২১ ই-পেপার

পুরুলিয়ায় চার কেজির টিউমার বাদ অস্ত্রোপচারে

নিজস্ব সংবাদদাতা
পুরুলিয়া ২৬ জুন ২০১৫ ০২:৩৭

এক মহিলার তলপেট থেকে চার কেজির একটি বড় টিউমার অস্ত্রোপচারে বাদ হল পুরুলিয়া দেবেন মাহাতো সদর হাসপাতালে। সীমিত পরিকাঠামো নিয়ে হাসপাতালের চিকিৎসকেরা ফের জটিল অস্ত্রোপচার সম্ভব করায় বিষয়টিকে চিকিৎসকদের আন্তরিকতার উদাহরণ হিসেবেই দেখছেন জেলা স্বাস্থ্য দফতরের কর্তারা।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, কিছুদিন আগে এক মহিলা হাসপাতালের পিপি (পোস্টপার্টম) ইউনিটে যান। উদ্দেশ্য, গর্ভকালীন চেকআপ। সেখানে পরীক্ষা করাতে গিয়েই ধরা পড়ে পুরুলিয়া শহরের ধোবঘাটা এলাকার বাসিন্দা ওই মহিলা গর্ভবতী নন, তাঁর পেটে টিউমার রয়েছে। পরীক্ষায় দেখা যায়, টিউমারটি এত বড় যে এই হাসপাতালে সেটির অস্ত্রোপচার করা ঝুঁকির। চিকিৎসকেরা প্রথমে টিউমার অস্ত্রোপচারের ঝুঁকি নিতে রাজি হননি। মহিলাকে বাঁকুড়া মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোর কথা বলা হয়। হাসপাতালের এক চিকিৎসক বলেন, ‘‘ওই মহিলার স্বামী আমাদের জানান, তিনি খুব কষ্টে সংসার চালান। তাঁর পক্ষে স্ত্রীকে বাইরে নিয়ে গিয়ে কোনও ভাবেই অস্ত্রোপচার করানো সম্ভব নয়।’’ এ কথা শুনে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ একটি মেডিক্যাল টিম তৈরি করে ওই মহিলার অস্ত্রোপচারের সিদ্ধান্ত নেন।

হাসপাতালের শল্য চিকিৎসক পবন মণ্ডল বলেন, ‘‘স্ত্রী-রোগ বিশেষজ্ঞ প্রিয়ব্রত কারক, জয়ন্ত চন্দ্র, অ্যানাস্থেটিস্ট আশুতোষ সোরেন ও দুই নার্সকে নিয়ে টিম তৈরি করা হয়। বুধবার রাতে অস্ত্রোপচার করা হয়।’’ তিনি জানান, টিউমারটির ওজন চার কেজি। মহিলার বয়স চব্বিশ। এই বয়সে সাধারণত এত বড় টিউমার দেখা যায় না। চিকিৎসা পরিভাষায় একে বলা হয় ‘ওভারিয়ান বিনাইন টিউমার’। অস্ত্রোপচার না হলে পরে বড় ধরনের বিপত্তি তৈরি করতে পারত ওই টিউমার। অস্ত্রোপচারের পরে আপাতত ওই মহিলা ভাল আছেন। জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক মানবেন্দ্র ঘোষ বলেন, ‘‘আমাদের চিকিৎসকেরা অত্যন্ত দক্ষতার পরিচয় দিয়েছেন। সীমিত পরিকাঠামোয় এই অস্ত্রোপচার সম্ভব করেছেন।’’ আর যাঁর অস্ত্রোপচার হয়েছে, সেই বাসন্তী সহিস বলেন, ‘‘পেটে যে এত বড় টিউমার আছে, ভাবতেই পারিনি।এখন অনেকটা ভাল লাগছে।’’

Advertisement

আরও পড়ুন

Advertisement