ব্রেকফাস্ট হোক বা সন্ধের জলখাবার, চটজলদি মুখরোচক রেসিপির জন্য ডিমের জুড়ি মেলা ভার। আবার তাড়াহুড়োয় রান্না করার সময় না পেলেও রয়েছে ডিমের ঝোল। আপাতদৃষ্টিতে ত্রাতার কাজ করলেও, নিঃশব্দে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিতে ডিমের নাকি জুড়ি মেলা ভার। সম্প্রতি আমেরিকান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন-এর জার্নাল ‘জামা’-য় এমনই একটি গবেষণা রিপোর্ট প্রকাশ করেছেন বিশেষজ্ঞরা।

ওই রিপোর্টে দাবি করা হয়েছে, প্রাপ্তবয়স্করা সপ্তাহে তিন থেকে চারটি ডিম খেলে, তাঁদের হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা কয়েক গুণ বেড়ে যায়। কুসুমে কোলেস্টেরল, ভিটামিন ও প্রোটিনের পরিমাণ অত্যাধিক হওয়ায় হার্টের অসুখের সম্ভাবনা কয়েক গুণ বাড়িয়ে দেয় তা। এমনকি, ওই নয়া গবেষণা অনুযায়ী, রেড মিট, অ্যালকোহোল বা কফির থেকেও বেশি ক্ষতি করতে পারে ডিম। দ্রুত হৃদ্‌রোগের দরজায় পৌঁছে দিতে বেশ কার্যকরী ভূমিকা রয়েছে ডিমের।

পুরনো গবেষণায় অবশ্য বরাবরই উল্টো তথ্য উঠে এসেছে। ২০০৪-’০৭ সালের একটি গবেষণার মাধ্যমে চিনের বিশেষজ্ঞরা দাবি করেছিলেন, প্রতি দিন একটি করে ডিম খেলে স্ট্রোক বা হার্ট অ্যাটাকের সম্ভাবনা ২৬ শতাংশ কমে যায়। আন্তর্জাতিক হেলথ জার্নাল হা‌র্-এ এই গবেষণার রিপোর্ট প্রকাশ পেয়েছিল। কিন্তু সম্প্রতি হওয়া গবেষণায় সিঁদুরে মেঘ দেখছেন এগিটেরিয়ানরা।

দিল্লি দখলের লড়াই, লোকসভা নির্বাচন ২০১৯

সপ্তাহে ৩-৪টে ডিম খেলে হার্টের অসুখের সম্ভাবনা ৬ শতাংশ বেড়ে যায়। দাবি গবেষকদের।

গবেষকরা প্রায় ৩০,০০০ হাজার প্রাপ্তবয়স্কের উপরে একটি সমীক্ষা করেন। সে সমীক্ষার রিপোর্টে দেখা যায়, প্রতি দিন একটি করে ডিম খেলে হৃদ্‌রোগের সম্ভাবনা প্রায় ১৭ শতাংশ বেড়ে যায় এবং শীঘ্র মৃত্যুর সম্ভাবনাও বাড়ে ১৮ শতাংশ। সপ্তাহে ৩-৪টে ডিম খেলেও হার্টের অসুখের সম্ভাবনা ৬ শতাংশ বাড়ে।

আরও পড়ুন: আজই দাঁড়ি টানুন এই খাবারে, নইলে খাদ্যনালীর ক্যানসার থেকে রেহাই মিলবে না

আরও পড়ুন: চুপিসারে ওজন বাড়াচ্ছে এ সব কাজ, মেদ ঝরাতে আজই সচেতন হোন

একটি বেসরকারি হাসপাতালের চিকিৎসক তনুজ সরকার বলেন, “মূলত কোলেস্টেরলের কারণেই এই সমস্যা হতে পারে। ডিমে দু’ধরনের কোলেস্টেরল থাকে। হাই ডেনসিটি কোলেস্টেরল ও লো ডেনসিটি কোলেস্টেরল। এই দুই কোলেস্টেরলের অনুপাতের মধ্যে সমতা থাকলে হৃদ্‌রোগের চোখরাঙানি থেকে দূরে থাকা যায়। কিন্তু অনেকেই ডিমের সঙ্গে মাখন, চিজ, বেকন ইত্যাদি খান। তাতে কোলেস্টেরলের মাত্রা বেশ কয়েক গুণ বেড়ে যায়। সে জন্যই হৃদ্‌রোগে আক্রান্ত হওয়ার প্রবণতাও দিন দিন বাড়ছে বলে দাবি গবেষকদের।

আরও পড়ুন: দোলে অনিয়মে জেরবার শরীর, কী ভাবে সামাল দেবেন এ বার?

আরও পড়ুন: ক্যানসার থেকে ডায়াবিটিস, রোগ নিয়ন্ত্রণে পাতে রাখুন এই জাদু চাল!

তবে ডিমপ্রেমীরা হতাশ হবেন না। যেহেতু কুসুমই কোলেস্টেরলের মূল উৎস তাই কুসুম বাদ দিয়ে ডিম খান। চেষ্টা করুন, ডিমের সঙ্গে মাখন, চিজের মতো প্রোটিন ও কোলেস্টেরলযুক্ত খাবার না খাওয়ার। সপ্তাহে ১-২টো গোটা ডিম খেতে পারেন। আর ডিমের আসল স্বাদ উপভোগ করতে ডিম সিদ্ধ বা পোচড এগ খান।