মেক আপ কিট থেকে ম্যাচিং গয়না, চুলের জেল থেকে নকশাদার পাঞ্জাবি, সপ্তমী তিথিতে নিজেকে সুন্দর করে তোলার সব রকম উপাদান নিয়েই সাজঘর সাজিয়েছে বাঙালি।

কিন্তু সব কিছু গুছিয়ে রাখার পরেও শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতিতে ছোটখাটো কিছু ভুলচুক থেকে যাচ্ছে না তো? এমন কিছু বাদ পড়ছে কি, যা হয়তো আপাত দৃষ্টিতে খুবই নগণ্য বিষয়, কিন্তু সাজগোজে বেশ গুরুত্বের।

আচ্ছা, এ বার সাজের বাক্সে প্রাইমার রেখেছেন তো? ছেলে হোক বা মেয়ে, মেক আপের আগে প্রাইমারের ভূমিকা কিন্তু খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ইতিমধ্যেই আবহবিদরা জানিয়েছেন, পুজোয় মেঘমুক্ত আকাশ থাকবে। কাজেই, ঘুরতে-বেড়াতে ঘাম হবেই। তাই মেক আপ নষ্ট হওয়ার সম্ভাবনাও উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না কিন্তু! আর এখানেই প্রাইমারের খেল শুরু! জানেন কি, পুজোর সাজে প্রাইমার কেন এত প্রয়োজনীয়?

আরও পড়ুন: কেমন হবে আপনার চোখের সাজ? জানালেন শর্মিলা সিংহ ফ্লোরা​

  • সাজের শুরুতেই মুখ টোনার দিয়ে পরিষ্কার করে প্রাইমার লাগান। এর মূল কাজ মেক আপকে মুখে বসিয়ে তা দীর্ঘ ক্ষণ ধরে রাখা।
  • যাঁরা অতিরিক্ত ঘামেন, প্রাইমার থাকলে সেই ঘাম থেকেও মুক্তি মিলবে। প্রাইমার শরীরের রোমকূপকে ঠান্ডা রেখে ঘাম হতে বাধা দেয়।
  • ম্যাট ফিনিশ হোক বা গ্লসি মেক আপ, প্রাইমার ব্যবহার করলে সেই মেক আপ মুখে শুধু বসেই না, মেক আপের বেস-কে আরও জোরদার করে সাজকে সুন্দর করে।

আরও পড়ুন: কোন পোশাকের সঙ্গে কেমন হেয়ারস্টাইল, তা নিয়ে চিন্তায়? রইল সমাধান​

  • প্রাইমার নিজে খুব হালকা, তাই চেহারায় একটা ফুরফুরে ভাব আনতেও প্রাইমার কাজে আসে। খুব সাজতে ইচ্ছা না করলে প্রাইমারের উপর ব্লাশার ও কম্প্যাক্ট দিয়েও সম্পূর্ণ করতে পারেন সাজ।
  • প্রাইমারের নিজেরই একটা উজ্জ্বলতা আছে। তাই মুখের ত্বককে চকচকে করে তোলে, সাজে ঔজ্জ্বল্য আসে।
  • তবে প্রাইমার ব্যবহার করলে মেক আপ তোলার সময় সতর্ক থাকুন। প্রাইমার খুব তাড়াতাড়ি ত্বকে বসে যায়। তাই তা ভাল করে না তুললে তা কিন্তু ত্বকের ক্ষতি করবে।