×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

০৭ মার্চ ২০২১ ই-পেপার

অন্দরসাজে বাল্বের বাহার

 ঈপ্সিতা বসু
২০ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ০৫:৩৮
বাল্বে বাগান।

বাল্বে বাগান।

অনেক ভাবেই ব্যবহার করা যায় একটা বাল্ব। এমন অনেক কিছু তৈরি করা যায়, যা শোভাবর্ধন করবে আপনার ড্রয়িংরুম ও বারান্দার। আবার পেশাদারি দক্ষতা ছাড়াও ফিউজ়ড বাল্ব দিয়ে বানিয়ে ফেলতে পারেন গৃহস্থালির প্রয়োজনীয় হরেক জিনিসও।

কাজ শুরুর আগে

বাল্বের মুখে পিতল বা রুপোলি রঙের একটি গোলাকার চাকতি লাগানো থাকে। চিমটে দিয়ে সেটি তুলে ফেলুন। চাকতির নীচেই কালো রঙের একটি অংশও থাকে। এটি কিন্তু ধাতু বা প্লাস্টিকের নয়, কাচের তৈরি হয়। একটি স্ক্রু ড্রাইভার দিয়ে সাবধানে এই কালো অংশটিকে ভেঙে ফেলুন। পুরো কাজটি কোনও কাগজের উপরে করুন, যাতে মেঝে বা অন্য কোথাও কাচের গুঁড়ো পড়ে না যায়। আর খুব সাবধানে। সামনে যেন কোনও শিশু না থাকে। একটু অমনোযোগী হলেই কিন্তু আঘাত লাগার সম্ভাবনা।

Advertisement

বাল্বের ভিতরেই দেখতে পাবেন বেশ কিছু কাচের টিউব আর ছোট ছোট তার রয়েছে। স্ক্রু ড্রাইভার বা চিমটে দিয়ে আস্তে আস্তে সেগুলো ভেঙে দিন। খেয়াল রাখবেন, বাল্ব যেন না ভাঙে বা হাত যেন কেটে না যায়। যখন মনে হবে বাল্বের ভিতরে অবশিষ্ট কিছু নেই, তখন বাল্বটি জল দিয়ে ধুয়ে কাজ শুরু করুন।

বাল্বে বাগান...

যদি প্রকৃতিপ্রেমী হন, তবে নষ্ট বাল্বের মধ্যে নিয়ে আসতে পারেন প্রকৃতিকে। বাল্বের উপরের অংশ খুলে আর ভিতরের অংশ ভাল করে পরিষ্কার করার পরে বালি, পাথরের টুকরো এবং মস রাখুন। জীবন্ত মস রাখবেন না। সংরক্ষিত মস পাওয়া যায় বাজারে। সেগুলো রাখবেন। প্লাস্টিকের ছোট কোনও প্রাণীও রেখে দিতে পারেন। কাজ শেষ হলে হালকা জল ছিটিয়ে দিন। দেখুন কেমন চমৎকার বাগানের আবহ চলে এসেছে! বাল্বটি এমন জায়গায় রাখুন, যেখানে আলোবাতাস খেলে।

ফুলদানি

বাল্বের ভিতরে জল ঢেলে আপনার পছন্দের ফুল নতুন এই ‘বাল্ব ফুলদানি’তে রাখুন। ঘরের এক কোণে ঝুলিয়ে রাখতে চাইলে বাল্বের মুখে থাকা রুপোর ক্যাপের সঙ্গে তার বা সুতো পেঁচিয়ে নিতে পারেন। এ ছাড়া টেবিলের উপরেও এই বাল্ব ফুলদানি সাজিয়ে রাখতে পারেন। তবে সে ক্ষেত্রে বাল্বটিকে কোনও বোতলের গোল ঢাকনি বা ক্যাপের উপরে দাঁড় করিয়ে রাখতে হবে। বাল্বের নীচের অংশটি খুব সহজেই বোতলের ক্যাপের ভিতরের খাপে বসে যাবে। বাল্বের আকৃতি অনুযায়ী বোতলের ক্যাপ ব্যবহার করুন। ঘরের কোণে কিংবা স্টাডি টেবিলের উপরে তাজা ফুলের সুবাস কার না ভাল লাগে!

আরও আলো

লম্বা দড়ি দিয়ে তার মাথায় বাল্ব ঝুলিয়ে জ্বালিয়ে দিন। নতুন ধরনের লাইটিং পেয়ে যাবেন।

ঝুলন্ত টব

ইনডোর প্ল্যান্ট রাখতে পারেন বাল্বের মধ্যে। বালি ও ঝুরঝুরে মাটি পুরে তার মধ্যে লাগিয়ে দিন ছোট্ট মানিপ্ল্যান্ট। বাল্বটি ঝুলিয়ে দিন বসার ঘরে বা ডাইনিংয়ে।

ক্রিয়েটিভ কর্নার

পলিমার ক্লে দিয়ে ছোট্ট বাড়ি তৈরি করে বাল্বের ভিতরে বসিয়ে নিন সাবধানে। গ্লিটার ছিটিয়ে দিন। দেখুন কেমন চমৎকার বরফের ঘর তৈরি হয়ে গিয়েছে! আবার অ্যাক্রিলিক ও তুলো দিয়ে পেঙ্গুইনের আকার আনতে পারেন বাল্বেই। ডানা ও পায়ের অংশটি ক্লে’র সাহায্যে গড়ে নিন।

ঝুলন্ত টব।

ঝুলন্ত টব।


বাল্ব যখন উপহার

রঙিন কাপড়ে মুড়ে দিন টুনির চেয়ে একটু বড় ধরনের বাল্ব। গোলাকার কাঠের ফ্রেমের মধ্যে প্রত্যেকটি বাল্ব পর পর পুঁতির মালার সঙ্গে ঝুলিয়ে দিন। এ বার আলো জ্বালিয়ে দিলে খুব সুন্দর রঙিন আলো পেয়ে যাবেন। আবার বাল্বগুলোকে একটু রং করে নিন। হলুদ-সাদা-ফুশিয়া-পিঙ্ক চমৎকার লাগবে দেখতে। সেগুলোকে গৃহস্থালির নানা কাজে ব্যবহার করতে পারবেন। আবার নষ্ট বাল্বের ভিতরে তেল দিয়ে বানিয়ে ফেলুন চমৎকার ল্যাম্প। অন্দরসাজে তো ব্যবহার করতেই পারেন, উপহার হিসেবেও এগুলি দারুণ।

ছোটদের জন্য

বড়দের সঙ্গে সঙ্গে ছোটদেরও মন ভাল করতে পারে বাল্বের হট এয়ার বেলুন আইডিয়া। অ্যাক্রিলিক রং করার পর আঠার সাহায্যে মোটা সুতো বেঁধে দিন বাল্বের চারপাশে। আর বাল্বের নীচের তারের সঙ্গে ঝুলিয়ে দিন একই সুতো। ছোটদের ঘরের সিলিংয়ে ঝুলিয়ে দেওয়া যেতে পারে যেমন। আবার ঘর বা বারান্দা ছাড়া, বাগানেও ঝোলানো যেতে পারে।

এ ভাবে সব ধরনের বাল্বেই সেজে উঠবে আপনার অন্দর। দরকার শুধু একটু ধৈর্য ও সৃজনশীলতা।

Advertisement