• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

এই এসেনশিয়াল অয়েলেই নিয়ন্ত্রণে থাকে কোলেস্টেরল, সুস্থ থাকতে ডায়েটে রাখুন এ ভাবে

cholesterol
কোলেস্টেরল রুখতে অ্যারোমাথেরাপির ভূমিকা রয়েছে। ছবি: আইস্টক।

লিপিড-প্রোফাইলের রিপোর্ট হাতে এলেই মাথায় হাত প্রায় ৮০ শতাংশ ভারতীয়র। কোলেস্টেরলের কোঠা সব সময়ই উপরের দিকে। কারও কারও ক্ষেত্রে আবার তা বিপজ্জনক ভাবে বেশি থাকে। হার্টকে সুস্থ রাখতে গেলে কোলেস্টেরলের মাত্রায় রাশ টানা ছাড়া গতি নেই। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, প্রায় ৮০ শতাংশ ভারতীয়ই উচ্চ কোলেস্টেরলের সমস্যায় ভোগেন।

শরীরের পক্ষে ভাল ও খারাপ দু’ধরনের কোলেস্টেরল থাকে। সাধারণত এক জন সুস্থ মানুষের এলডিএল (লো ডেনসিটি কোলেস্টেরল) বা খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা রক্তের প্রতি ডেসিলিটারে ১০০-১৩০-এর নীচে থাকা উচিত। ভাল কোলেস্টেরল বা এইচডিএল (হাউ ডেনসিটি কোলেস্টেরল)-এর বেলায় সেই গণ্ডি রক্তের প্রতি ডেসিলিটারে ৪০-এর নীচে নেমে গেলে তা বিপজ্জনক।

সুষম আহার, শরীরচর্চা ও তেল-মশলাদার খাবার পাত থেকে বাদ দিলেই কোলেস্টেরলকে আয়ত্তে রাখা যায়। শুধু নিয়ম মেনে চলাই নয়, কোলেস্টেরল ঠেকানো নিয়ে দেশ-বিদেশের নানা গবেষণায় উঠে এসেছে এসেনশিয়াল অয়েলের ভূমিকার বিষয়টিও। বিভিন্ন অসুখ প্রতিকারে অ্যারোমাথেরাপির নানা গুণ রয়েছে। নানা পরীক্ষা-নিরীক্ষায় জানা গিয়েছে, লেমনগ্রাস এসেনশিয়াল অয়েলে এমন কিছু গুণ থাকে, যা রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রাকে অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারে।

আরও পড়ুন: সব বয়সের মানুষ আক্রান্ত হতে পারেন করোনায়

রান্নাঘরের উপাদান এই তেল সাধারণত বিভিন্ন রান্নায় গন্ধ যোগ করতে ব্যবহৃত হয়। ‘আমেরিকান হার্ট অ্যাসোসিয়েশন’-এর গবেষণা অনুসারে, এর পাতায় নানা টেরপেনয়েড যৌগ, যেমন জেরানয়েল ও সাইট্রাল রয়েছে। যা মেভালোনিক অ্যাসিড উৎপাদনে বাধা দেয়। এই মেভালোনিকই কোলেস্টেরল জমতে সাহায্য করে। কোলেস্টেরল কমানোর বিভিন্ন ওষুধেও এই যৌগগুলি যুক্ত থাকে।

লেমনগ্রাস অয়েলের যৌগ কোলেস্টেরল ঠেকায়।

২০১০ সালে কানাডায় কোলেস্টেরল সংক্রান্ত অপর একটি গবেষণা দেখিয়েছিল, এই লেমনগ্রাস অয়েল প্রতি দিন ব্যবহার করলে তা শরীরে অ্যান্টিঅক্সিড্যান্টের মাত্রা বাড়ায়। যা হৃদরোগ প্রতিহত করে। শরীরে অতিরিক্ত মেদ জমে যাওয়াতেও রাশ টানে। শরীরে লিপিডস্তরকে নিয়ন্ত্রণেও বিশেষ ভূমিকা পালন করে এই তেল।

আরও পড়ুন: উচ্চ রক্তচাপ ডেকে আনে হার্ট অ্যাটাক-স্ট্রোক, অসুখ নিয়ন্ত্রণে রাখতে কী কী করবেন?

তার মানে কি যত বেশি এই তেল খাওয়া যাবে ততই লাভ?

তা একেবারেই নয়। বরং এই তেলের ঘনত্ব না কমিয়ে খাওয়া একেবারেই উচিত নয়। পরিমাণও হওয়া উচিত কম। লেমনগ্রাসের গুণ পেতে, গরম জলে কয়েকটা লেমনগ্রাস পাতা ছড়িয়ে সেই জলে চা ফুটিয়ে খেতে পারেন।  কোনও কোনও রান্নায় লেমনগ্রাসের স্বাদ ও গন্ধ যোগ করতে দু’-এক ফোঁটা লেমনগ্রাস তেল মিশিয়ে খেলেও একই উপকার পাবেন।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন