Advertisement
১৭ জুন ২০২৪
Homemade Ghee Recipe

বাজারচলতি ঘিয়ে ভরসা নেই? মাত্র ১০ মিনিটেই প্রেশার কুকারে বানিয়ে ফেলুন খাঁটি ঘি

ফ্যাটজাতীয় খাবার হলেও পরিমিত পরিমাণে ঘি খাওয়া ভাল। তেল, মাখন, বনষ্পতির তুলনায় ঘি অনেক বেশি পুষ্টিকর। দুগ্ধজাত খাবারে অ্যালার্জি থাকলেও ঘি খেলে অসুবিধা হওয়ার কথা নয়।

Image of Ghee

মাত্র দশ মিনিটে বাড়িতেই তৈরি করা যায় ঘি। ছবি: সংগৃহীত।

আনন্দবাজার অনলাইন ডেস্ক
কলকাতা শেষ আপডেট: ২৩ জানুয়ারি ২০২৪ ১৪:৪৯
Share: Save:

ঘন দুধের উপর থেকে সর তুলে, তা দিয়ে ঘি তৈরি করার পদ্ধতি নতুন নয়। একটা সময়ে দেশে মাখনের চেয়ে ঘি খাওয়ার চলই ছিল বেশি। ঘিয়ের মধ্যে যেহেতু স্যাচুরেটেড ফ্যাট বেশি, তাই সেই সময়ে হার্টের রোগে আক্রান্ত হওয়ার জন্য এই ঘি-কেই দায়ী করা হত। তবে সে সব পুরনো ধ্যানধারণাকে মুছে ফেলে বর্তমান চিকিৎসাবিজ্ঞান কিন্তু ঘি খাওয়ার পক্ষেই রায় দেয়। কারণ, তেল, মাখন বা বনস্পতির তুলনায় ঘি খাওয়া স্বাস্থ্যকর। হার্ট ভাল রাখা, রক্তে শর্করা নিয়ন্ত্রণে রাখা, মেদ ঝরানো— ঘিয়ের অনেক গুণ। ত্বক এবং চুলের যত্নেও খেতে বলা হয় ঘি। তবে, তা খেতে হবে পরিমিত পরিমাণে। পুষ্টিবিদেরা বলছেন, অসাধু ব্যবসায়ীরা অনেক সময়ে বনস্পতির সঙ্গে কৃত্রিম উপাদান মিশিয়ে ঘি বলে বাজারে বিক্রি করেন। আর তা থেকেই শরীরের ক্ষতি হয়। তবে এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে গেলে ঘি বানাতে হবে বাড়িতেই। তার জন্য যে খুব ঝক্কি পোহাতে হবে, এমনটাও নয়। মাত্র দশ মিনিটে ঘি তৈরি করার পদ্ধতি রইল এখানে।

মাত্র ১০ মিনিটে বাড়িতে ঘি তৈরি করবেন কী ভাবে?

উপকরণ:

দুধের ঘন সর বা মালাই: ২ কাপ

জল: আধ কাপ

বেকিং সোডা: ১ চা চামচ

পদ্ধতি:

১) প্রথমে প্রেশার কুকারে দুধের সর এবং জল দিয়ে একটি সিটি দিয়ে নিন।

২) এ বার প্রেশার কুকারের ঢাকনা খুলে বেকিং সোডা মিশিয়ে নিন।

৩) একেবারে অল্প আঁচে ৫-৭ মিনিট নাড়াচাড়া করুন।

৪) এ বার পরিষ্কার একটি কাচের পাত্রের মুখে সুতির কাপড় আটকে নিন।

৫) প্রেশার কুকার থেকে ঘি ছেঁকে ওই কাচের পাত্রে ঢেলে নিন।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)

অন্য বিষয়গুলি:

Ghee Healthy Fat
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE