চেহারা ভারী বলে বয়সের তুলনায় বয়স্ক দেখায় অনেককেই। চেহারা ভারী বলে চার পাশের নানা লোকজনের কাছ থেকেই শুনতে হয় বিভিন্ন ব্যঙ্গবিদ্রুপ। বডি শেমিংয়ের শিকার হতে হয় অনেক ক্ষেত্রেই। ঠাট্টার ছলে হোক বা সরাসরি, মেদবহুল চেহারা নিয়ে সুস্থ সমাজেও নানা অসুস্থ প্রতিক্রিয়া দেখা যায়। সে সব ব্যঙ্গের উত্তর দিন নিজস্ব ভঙ্গিতে। তবে চেহারায় তারুণ্যের অভাব কেবল ভারী চেহারার জন্যই মনে হয় এমন নয়, অনেক সময় পোশাক নির্বাচনের ক্ষেত্রেও থেকে যায় গলদ।

সেই গলদের জেরেই ভারী চেহারাকে আরও ভারী লাগে অনেক সময়। কখনও কখনও দেখা যায় জমকালো নকশা বা নকশার অবস্থানের উপরও চেহারার গড়ন অনেকটা নির্ভর করে। তাই এ সব দিকে খেয়াল রাখাটাও ফ্যাশনিস্তার অন্যতম লক্ষণ।

চেহারার সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে পোশাক নির্বাচন করতে হয়, এ কথা কমবেশি সকলেই জানি। তবু বাছাইয়ের সময় স্বচ্ছ ধারণার অভাবই আপনার চেহারাকে আরও বয়স্ক করে তোলে। চেহারায় তারুণ্য ধরে রাখতে মেনে চলুন বিশেষ ক’টা নিয়ম, এতে ভারী চেহারা হলেও বয়স্ক দেখানোর হাত থেকে মুক্তি মিলবে। ফ্যাশন ডিজাইনার অদিতি চক্রবর্তী জানালেন এমন কয়েকটা সহজ সমাধান।

আরও পড়ুন: এ সব নিয়মে কাচলে বার বার ব্যবহারের পরেও জিনস থাকবে নতুনের মতো

আড়াআড়ি দাগ নয়: চেহারা ভারীর দিকে হলে এড়িয়ে চলুন আড়াআড়ি দাগের যে কোনও পোশাক। তার চেয়ে ওয়ার্ডরোবে থাকুক প্রচুর লম্বালম্বি দাগের পোশাক। রোগা ও কমবয়সি দেখাতে চাইলে এই লম্বালম্বি স্ট্রাইপ খুবই কাজে আসবে।

লং স্কার্ট নয়: লং স্কার্ট যতই পছন্দ হোক, চেহারা ভারী হলে তা এড়িয়ে চলুন। হাঁটুর চেয়ে নীচে স্কার্ট পরলে শরীরের নীচের অংশ অনেকটা ভারী দেখায়। অনেকে রোগা দেখাতে পারে ভেবে চোঙাকৃতি লং পেনসিল স্কার্ট কেনেন। এই ধারণাও ভুল। ঘের না থাকায় এই ধরনের স্কার্ট কোমরের মেদকে আরও বাড়তি দেখায়। তাই স্কার্ট ভালবাসলে ঘের দেওয়া নি লেংথ স্কার্টে ভরসা রাখুন।

স্কার্ফে ‘না’:  শুধু ফ্যাশনের কারণেই ঠান্ডা না পড়লেও পোশাকের সঙ্গে মানানসই স্কার্ফ কিনে ফেলাটা আমাদের স্বভাব। গলায় গোল করে স্কার্ফ জড়ালে গলার লম্বাটে আকার ঢেকে তা আরও ভারিক্কি ভাব আনে।

আরও পড়ুন: পুজোর অনিয়মে ওজন বেড়েছে? এই সব কসরতেই ঝরবে বাড়তি মেদ

ঠিক মাপ: পোশাক বাছাইয়ের সময় কেউ ছিপছিপে দেখাতে চেয়ে আঁটো পোশাক পরেন, কেউ আবার ঢিলেঢালা পোশাকেই আস্থা রাখেন। ফ্যাশন ডিজাইনারদের মতে, এর কোনওটাই ঠিক ধারণা নয়। ঢিলেঢালা পোশাক যেমন চেহারাকে ভারী করে, তেমনই আঁটসাট পোশাকে স্পষ্ট হয় শরীরের মেদ। কাজেই খুব ঢিলে বা খুব আঁটো নয়, এমন পোশাকই বাছুন।

অন্তর্বাস: শারীরিক গঠন অনুযায়ী ঠিক মাপের অন্তর্বাস বাছাইয়ের উপরও চেহারার গড়ন অনেকটা নির্ভর করে। তাই সে ক্ষেত্রেও খুব ঢিলেঢালা বা আঁটো অন্তর্বাস এড়িয়ে আরামদায়ক মাপ বাছুন।