বর্ষা মানেই জামাকাপড় শুকনো করা এক ঝক্কির ব্যাপার। সারা দিন রোদ নেই, বাতাসে আর্দ্রতাও বেশি। উপায়ান্তর না থাকায় খোলামেলা জায়গার বদলে ঘরের মধ্যেই দড়ি টাঙিয়ে শুকোতে দিতে হয় পোশাক। তবে বর্ষায় ভাল করে জামাকাপড় শুকাতে চায় না বলে এতে একটা স্যাঁতসেঁতে ভাব তো থাকেই, সঙ্গে ছত্রাকের হানাও অসম্ভব নয়।

অন্য সময় সূর্যের কড়া আলোয় জীবাণু বাসা বাঁধতে পারে না। কিন্তু ভিজে ভাব থাকায় বা দীর্ঘ সময় ধরে শুকোতে থাকায় এই সময় জামা-কাপড়ে দুর্গন্ধ হয়, ছত্রাকও হানা দেয়।

তবে যদি কিছু ঘরোয়া উপায় মাথায় রাখেন তা হলে বর্ষা কালেও জামা-কাপড়ে দুর্গন্ধ হয় না। জীবাণুর হানা থেকেও দূরে রাখা যায় পোশাক। জানেন কী কী উপায়ে তা সম্ভব? রইল বর্ষায় পোশাক কাচা ও শুকিয়ে নেওয়ার কিছু জরুরি টিপ্‌স।

আরও পড়ুন: বর্ষায় চুল ঝরছে বা বৃষ্টি ভিজে চিটচিটে? বাড়ির এই উপাদানেই জব্দ নানা সমস্যা

  • বাড়ির মধ্যে কাপড় শুকনো করতে হলে পাখার নীচে মেলুন জামাকাপড়। শোওয়ার ঘর বাদ দিয়ে অন্য ঘরে শুকোতে দিন পোশাক। তবে এমন ঘরে দিন, যেখানে বাইরের হাওয়া-বাতাস খেলে। বারান্দা থাকলে সেটাও হতে পারে ভাল বিকল্প।

  • বর্ষায় জামা-কাপড় জলকাচার তুলনায় ডিটারজেন্ট মিশিয়ে কাচুন। এতে জীবাণু ঠেকানো সহজ হবে।

  • বাইরে শুকোতে দেওয়া কাপড় হঠাৎ বৃষ্টিতে ভিজে গেলে, সেই কাপড় আরও এক বার জল দিয়ে ধুয়ে নিন। তার পর মেলুন পাখার হাওয়ায়।

  • কাচা কাপড় শুকিয়ে ভাঁজ করে তুলে রাখার সময় কাপড়ের মাঝে মাঝে কালো জিরে ছড়িয়ে রাখুন। আলমারিতে আলাদা করে দিন ন্যাপথলিন জাতীয় কীটনাশক।

আরও পড়ুন: একনাগাড়ে চেয়ারে বসে কাজ? পিঠের ব্যথা কমানোর কৌশল এ বার হাতের মুঠোয়

জীবাণু রুখতে ইস্ত্রি হতে পারে বড় দাওয়াই।

  • কাপড়ে হালকা স্যাঁতসেঁতে ভাব থাকলে ভাল করে ইস্ত্রি করে নিন। এতে পোশাকের স্যাতসেঁতে ভাবও যাবে আবার জীবাণুও গরমের জেরে বাসা বাঁধবে না।

  • কাচার আগে জামাকাপড় জলে ভিজিয়ে রাখুন কিছু ক্ষণ। এতে ময়লা সরবে দ্রুত। ভাল করে নিংড়ে শুকোতে দিলে শুকোবেও তাড়াতাড়ি।