মধ্যপ্রদেশের রাওয়াধ গ্রামে বাস করত বুলবুল ও কুলদীপ। তাঁদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক ছিল। সেই প্রেমকে পরিণতি দিতে মাস ছয়েক আগে তাঁরা বিয়ে করেছিল একে অপরকে। কিন্তু বুলবুলের বাড়ির লোকের সায় ছিল না সেই বিয়েতে। কারণ, কুলদীপের ‘জাত’ বুলবুলের থেকে আলাদা। বুলবুলের বাড়ির লোকে চোখে সে তথাকথিত ‘নিম্ন’ বর্ণের।

বাড়ির অমতে মাস ছ’য়েক আগে বিয়ে করে তাঁরা। যদিও বিয়ে করে ওই গ্রামে সংসার পাতা সম্ভব হয়নি তাঁদের পক্ষে। স্বাভাবিকভাবেই বাইরে থাকছিলেন তাঁরা। বিয়ের পর গত শনিবার প্রথমবারের জন্য নিজের বাড়িতে এসেছিলেন ২১ বছরের যুবতী বুলবুল। কিন্তু ভিন ‘জাত’-এর ছেলেকে বিয়ে করার জন্য তাঁর উপর বাড়ির লোকের ক্রোধ বিয়ের ছ’মাস পরেও এতটুকু কমেনি। তাই বাড়ির ফেরার পরই বুলবুলকে লক্ষ্য করে গুলি চালায় তাঁর ১৭ বছরের ভাই। সেই গুলি বুলবুলের মাথায় লাগে।

তার পর বুলবুলকে ইনদওর মহারাজা যশবন্ত রাও হাসপাতালে নিয়ে গেলে তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা। সাব ডিভিশনাল পুলিশ অফিসার রামকুমার রাই বলেছেন, ‘‘বুলবুল ও কুলদীপ দু’জনেই রাওয়াধ গ্রামের বাসিন্দা। বিয়ের পর শনিবার বাড়ি এসেছিল বুলবুল। তখনই তাঁর ভাই গুলি করে তাঁকে।’’ ভিন ‘জাত’-এ বিয়ে করার ‘শাস্তি’ দিদিকে দিয়ে বেতমা থানায়  আত্মসমর্পণ করেছে অভিযুক্ত ১৭ বছরের ওই কিশোর। 

আরও পড়ুন: সরকারি কর্মীকে দিয়ে জুতোর ফিতে বাঁধালেন মন্ত্রী! শোনালেন রামের গল্প!

আরও পড়ুন: ইনি নাকি ইমরান খান! দাবি করছেন তাঁরই বিশেষ সহায়ক